বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

চীন: দুর্নীতি জাদুঘর দুর্নীতিবাজদের মনোনয়ন চাচ্ছে

স্থানীয় সংবাদপত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে চায়না ডেইলি জানিয়েছে যে চীনের দক্ষিণপূর্ব প্রদেশ সিচুয়ানে একটা দুর্নীতি জাদুঘরের পরিকল্পনা করা হয়েছে। এই জাদুঘর নেট নাগরিকদের কাছ থেকে গত শতাব্দীর সব থেকে বেশী দুর্নীতিগ্রস্ত ১০০ কর্মকর্তাদের মনোনয়ন চাচ্ছে।

এই প্রকল্প প্রথমে প্রস্তাব করেন চেংদুর জিয়াঞ্চুয়ান জাদুঘরের প্রতিষ্ঠাতা ফান জিয়াঞ্চুয়ান তার মাইক্রোব্লগে। তিনি বলেছিলেন যে এই জাদুঘর মানুষের কাছ থেকে মনোনয়ন গ্রহণ করবে এবং তারা জাদুঘরের ওয়েবসাইটে ভোট করতে পারবে। প্রথম ১০০ জনকে বাছাই এর শর্তের মধ্যে থাকবে দুর্নীতিগ্রস্ত কর্মকর্তার জ্যেষ্ঠতা, কতো অর্থ এর সাথে সম্পৃক্ত, এবং কি উপায়ে আর কোন অবস্থায় সমাজের উপরে তা প্রভাব ফেলে।

জিয়াঞ্চুয়ান জাদুঘর সিচুয়ান প্রদেশের চেঙদুতে অবস্থিত ১৫টি জাদুঘরের মধ্যে একটি

জিয়াঞ্চুয়ান জাদুঘর সিচুয়ান প্রদেশের চেঙদুতে অবস্থিত ১৫টি জাদুঘরের মধ্যে একটি

ফান বলেছেন যে তিনি কমিউনিস্ট দলের শাস্তিমূলক কমিটির সাহায্য চাইবেন এই জাদুঘরকে দুর্নীতি বিরোধী একটি শিক্ষা কেন্দ্রে পরিণত করার জন্য। তিনি বলেছেন যে দলের শাস্তিমূলক কমিটি দ্বারা দেশব্যাপী দুর্নীতির প্রদর্শনী আয়োজন করা খুব স্বাভাবিক একটি জিনিষ, কিন্তু একটি জাদুঘর তৈরির কাজ এখনো বাকি। তিনি মনে করেন এই জাদুঘর সমাজে ভালো প্রভাব রাখবে। তিনি তার আশে পাশে থেকে ‘দুর্নীতির নিদর্শন’ খুঁজে বের করা শুরু করেছেন, যার মধ্যে আদালতের রায় আর স্বীকারোক্তির নথি আছে।

এই প্রস্তাব ইন্টারনেটে প্রচুর সারা পেয়েছে। কিয়ান গিলিন (钱桂林) মনে করেন এটা নতুন একটা ধারণা যার ভালো শিক্ষনীয় দিক আছে:

雨果说过:“多办一所学校,就可以少建一座监狱。”教育的力量是伟大的,没有什么比教育能够对人的思想产生更大的影响了。建贪官博物馆,比单纯让干部听一两次反腐报告或参观一两个图片展览更具震撼力和震慑力,能教育和警醒广大干部,让他们树立正确的人生观、权力观、地位观和价值观

ভিক্টর হুগো বলেছেন: “যিনি একটা স্কুলের দরজা খোলেন তিনি একটা জেলের দরজা বন্ধ করেন।“ শিক্ষার প্রভাব বিশাল। একটি দুটি দুর্নীতি বিরোধী বক্তব্য বা প্রদর্শনীর থেকে অনেক বড় হচ্ছে একটি জাদুঘরের প্রভাব আর ধাক্কা। এটি চীনা কর্মকর্তাদের মধ্যে জীবন সম্পর্কে সঠিক মূল্যবোধ আর ক্ষমতা জাগিয়ে তুলতে পারে।

ইতোমধ্যে, সান জিনডং (孙金栋) এই প্রস্তাবে বেশ কয়েকটি ত্রুটি দেখতে পেয়েছেন:

从内容看,百强以何标准衡量?如果以官员级别最高者入选,以贪污金额最多者入选,以手段最阴险者入选,以年龄最大、最小者入选,它是一个动态的过程,不可能象抗日战争、解放战争那样,成为已经过去、不再变化的一个静止点。因此,这个“百强”之最只能是相对而言,新的百强随时在产生,百强纪录将被不断刷新, “百强贪官”最终成为名不符实。

বিষয়ভিত্তিক: আপনি কি করে প্রথম ১০০ জনকে বাছাই করবেন? আপনি কর্মকর্তার অবস্থান, কতো অর্থ সম্পৃক্ত, দুর্নীতির প্রক্রিয়া বা বয়স দিয়ে নির্ধারণ করতে পারবেন না, যেহেতু এই বিষয়গুলো গতিময়। এটি ঐতিহাসিক ঘটনা থেকে পৃথক যেমন জাপান বিরোধী বা স্বাধীনতার যুদ্ধ, যা স্থায়ী। তাই প্রথম ১০০ জনের ধারণা আপেক্ষিক; ভবিষ্যতে রেকর্ড ভাঙ্গা প্রথম ১০০ জনের আবির্ভাব হবে, যা ‘প্রথম ১০০’ এর অর্থকে অর্থহীন করে তুলবে।

从冠名看更不确切,“百强贪官”强在何处?从本质上说,他们都是纸老虎。得势、得志、在位时,一个个貌似强大,呼风唤雨,猖狂之极。一旦败露,就成了不齿于人类的狗屎堆,成了人民的阶下囚,或者受到极刑严惩成为历史的罪人,他们强在何处?

নামের দিক থেকে কেন ‘প্রথম ১০০’ জনকে ‘প্রথম’ বলা হচ্ছে? তারা আসলে কাগুজে বাঘ। তারা কর্মকর্তা হিসাবে থাকাকালীন তাদের ক্ষমতার অপব্যবহার করে। একবার গ্রেপ্তার হলে, তারা কয়েদি হয়ে ইতিহাসে কালো দাগে পরিণত হয়। কেন তাদেরকে ‘প্রথম’ বলা হচ্ছে?

দুর্নীতির বিষয়ের দিকে দৃষ্টি ফেরালে, উ মিন (吴敏) মনে করেন চীনা জনগণ দুর্নীতিগ্রস্ত কর্মকর্তাদের কবলে ক্ষমতাহীন। তারা মজা হিসাবে একটা দুর্নীতির জাদুঘর পর্যন্তই নির্মান করতে পারেন।

“贪污、潜规则已经成为现在中国社会的一种文化。既然是文化,应该加以保护并好好研究。不但要建博物馆,同时,还应向联合国申请国际文化遗产。”有网友不无风趣地说到。笔者认为,导致建设“贪官馆”的根源是社会道德出现了短路。道德短路,致使良善缺失、黑白不分、公平失衡等,这种大社会背景,成为滋生腐败的温床。加之社会制度的不完善,催生着种种贪腐劣迹,充斥在民众的眼前。

একজন নেটিজেন মন্তব্য করেছেন যে দুর্নীতি আর লুকানো নিয়ম চীনা সংস্কৃতির একটা অংশ। যেহেতু এটা সংস্কৃতি তাই এটা ভালোভাবে সংরক্ষণ করে গবেষনা করা উচিত। জাদুঘর তৈরি করা যথেষ্ট না; আমাদের উচিত এটার নাম জাতিসংঘের স্পর্শাতীত সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় যাওয়া উচিত। আমি বিশ্বাস করি যে কোন ধরনে ‘নৈতিক শর্ট-সার্কিট’ হচ্ছে- ন্যায় বিচার, আর সততার অভাব দেখা দিয়েছে সমাজে। এমন পরিস্থিতিতে, আমাদের সামাজিক ব্যবস্থার ত্রুটি সহ দুর্নীতি ছড়িয়ে পড়েছে।

চীনের প্রিমিয়ার ওয়েন জিয়াবাও গত মার্চে বলেছেন যে চীন এখনো ‘দুর্নীতিপ্রবণ’ আর অনেক বছরের দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই সত্ত্বেও ‘অন্যায় আইন প্রয়োগ আর অকার্যকর সরকার ব্যবস্থাতে’ রুগ্ন। এই বছরের প্রথমে চীন কর্মকর্তাদের জন্য নীতিমালার একটি কোড জারি করেছে যার মধ্যে তাদের ৫২ টি ব্যবহার অগ্রহণযোগ্য বলা হয়েছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .