বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

পোল্যান্ড: অনলাইনের মাধ্যমে ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াই

লেনকা পাঁচ বছরের এক হাসিখুশি শিশু এবং পাওলা এক ঘর সজ্জাকারী বিভাগের ছাত্রী (ইনটেরিওর ডিজাইনার), যে বিশ বছরে পা দিয়েছে। আপনাদের হয়ত মনে হতে পারে এদের দুজনের মধ্য কোন মিল নেই, কিন্তু বাস্তবে উভয়ের মধ্যে একটি মিল রয়েছে, তা হল উভয়ের শরীরে ক্যান্সার বাসা বেঁধেছে এবং তারা উভয়ে ক্যান্সারের বিরুদ্ধে কি ভাবে লড়ছে, ব্লগের মাধ্যমে সে কথা জানাচ্ছে।

ব্লগস্ফেয়ার বর্তমানে কি ভাবে বিবর্তিত হচ্ছে, ব্লগ তার এক সুন্দর উদাহরণ। তারা প্রমাণ করেছে যে, ব্লগ অনলাইনে কেবল দিনপঞ্জিকা লেখার কোন উপাদান নয়: এটাকে শক্তিশালী সামাজিক প্রচার মাধ্যমের এক যন্ত্র বানানো সম্ভব।

পাওলা

তার প্রথম পোস্টে পাওলা সেই মুহূর্তের কথা বর্ণনা করেছেন, যখন তার শরীরে এই প্রাণঘাতী রোগের লক্ষণ দেখা দেয়:

আমার মনে হল কেউ যেন এক গরম তাওয়া দিয়ে আমার মুখে আঘাত করল।

এবং পরে সে লিখেছে যে, কি ভাবে সে উপলব্ধি করল রোগের লক্ষণ ধরা পড়া মানে সবকিছু শেষ হয়ে যাওয়া নয়:

এটা একটা ঝলকানির মত; আশা এবং লড়াই করার ইচ্ছের এক ঝলকানি। কোন একটি বিষয় আমাকে বিশ্বাস প্রদান করেছে, যে শরীরে কোন অসুখ তৈরি হওয়া সত্বেও আমি লম্বা সময় বেঁচে থাকব এবং সে রোগ যত ভয়ঙ্কর হোক না কেন, আমার শরীর যে কোন রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারে।

Paula

পাওলা

Paula

পাওলা

পাওলার শরীরে বাসা বাঁধা রোগটি খুব বিরল ধরনের এক ক্যান্সার এবং শরীরে এক শল্য চিকিৎসার পর তাকে বলা হয়, বর্তমানে বাজারে প্রচলিত এমন কোন ওষুধ নেই যা তার এই রোগের উপশম করতে পারে। “তোমার শরীরে রোগ (টিউমার) ছড়িয়ে পড়ছে এবং আমাদের জানা নেই কি ভাবে তা উপশম করা সম্ভব”। হাত-পা গুটিয়ে নিয়ে পোলান্ডের ডাক্তাররা এই কথাগুলো উচ্চারণ করেছিল। তবে, সৌভাগ্যক্রমে পাওলার বোন যুক্তরাষ্ট্রের বোস্টনে একটা ক্লিনিক খুঁজে পায়, যা এই ধরনের রোগের ক্ষেত্রে সফলভাবে চিকিৎসা সেবা প্রদান করতে সক্ষম। পাওলা আমেরিকার এই হাসপাতালের সাথে যোগাযোগ করে এবং সাথে সাথে সে সেখান সাক্ষাৎ-এর এক আমন্ত্রণপত্র পায়। সেখানকার ডাক্তাররা পাওলার চিকিৎসা করার সুযোগ পেয়ে আনন্দিত হয়েছিল। কিন্তু এই চিকিৎসার ক্ষেত্রে এর ব্যয়ভার নির্বাহ করা ছিল একটি মাত্র সমস্যা, এটি ছিল ২৫০,০০০ ডলারের এক বিশাল খরচের ধাক্কা। কিন্তু পাওলা হাল ছেড়ে দেয়নি। সে তার ব্লগ-এর মাধ্যমে আর্থিক সাহায্যের আবেদন জানায়। তার পাঠকদের মহানুভবতাকে ধন্যবাদ এবং অন্য ব্লগাররা পাওলার ওয়েবসাইটের সাথে নিজেদের সাইটকে যুক্ত করে। শীঘ্রই যথেষ্ট টাকা পরিমাণ টাকা সঞ্চিত হয় এবং গত বছরের আগস্ট মাসে পাওলা এক নতুন শল্য চিকিৎসার (অপারেশন) জন্য পাওলা যুক্তরাষ্ট্রে যেতে সক্ষম হয়।

এখনো তার শরীরের ফুসফুসে অনেক ঘা (টিউমার) রয়েছে এবং তার আরো চিকিৎসার প্রয়োজন, কিন্তু সে এখনো ইতিবাচক মানসিকতা বজায় রেখেছে এবং আশার দৃষ্টিতে ভবিষ্যৎ-এর দিকে তাকিয়ে রয়েছে। নিউজউইক পত্রিকার পোলিশ সংস্করণে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তাকে জিজ্ঞেস করা হয়, সে কি এখনো ভীত। তার জবাবে সে বলে:

হ্যাঁ আমি এখনো মাঝে মাঝে শঙ্কিত, কিন্তু যখনই আমি ভয় পাই, তখনই আমি ভাবি, যে সময় আমি বোস্টনে এসে হাজির হয়েছিলাম সে সময়কার কথা, সে সময় আমার বন্ধুরা সবাই বিমানবন্দরে এসে হাজির হয়েছিল। তারা সবাই আমাকে দেখে আনন্দিত হয়েছিল, লাফ দিচ্ছিল এবং আমার প্রতি হাত নাড়াচ্ছিল। সবকিছু যে ঠিক মত চলছে, এটা ছিল তার লক্ষণ। আমি সিন্ধান্ত নিলাম যে আমি বেঁচে থাকব এবং আমি বেঁচে রয়েছি।

লেনকা

পাওলা কখনোই হয়তো ব্লগ লিখতে শুরু করত না, যদি না ছোট্ট লেনকা এই কাজটি করত এবং সেই শিশুটির হয়ে তার বাবামা একটি ব্লগ লিখত, যা পাওলাকে ক্যান্সার বিষয়ে লিখতে উৎসাহী করে তোলে।

গত বছরের এপ্রিল মাসে লেনকা চতুর্থ জন্মদিনে তার শরীরে লিউকেমিয়া নামক ক্যান্সার ধরা পড়ে। তার মাতাপিতা এনিয়া এবং এন্ডি তখন এক ব্লগ লেখার সিদ্ধান্ত নেয়, যেখানে তাদের বন্ধু এবং পরিবারের লোকজনকে লেনকার অবস্থা সম্বন্ধে জানতে পারবে। তারা শীঘ্রই আবিষ্কার করল, লেখা, ভেতরের কষ্টকে বের করে দেওয়ার একটি উপায়। লেনকার ব্লগের অনেক পাঠক রয়েছে যারা এই পোস্টে বিভিন্ন মন্তব্য করেছে, এই ছোট্ট মেয়েটি ও তার বাবামাকে স্বস্তি ও সমর্থন প্রদান করা জন্য:

চলুন আমরা আমাদের হাত প্রসারিত করি। লেনাকে অবশ্যই সুস্থ হয়ে উঠতে হবে। সে অবশ্যই সুস্থ হবে!!!! এর কোন বিকল্প নেই, এবং তোমরা, তার পিতামাতা, নিজেদেরকে দৃঢ় রাখ। তোমরা একটি অসাধারণ পরিবার!!

আমি আশা করি এই ছোট্ট মেয়েটার জন্য শীঘ্রই সূর্য কিরণ প্রদান করবে এবং তোমাদের জন্য… সবসময় স্মরণ রেখ, আশা রাখতে হবে এবং বিশ্বাস বজায় রাখতে হবে… সে দেখতে একটা ছোট্ট পরীর মত মেয়ে। আমি তার জন্য প্রার্থনা করব, হাত প্রসারিত করব।

ব্লগে এ সব মন্তব্য এসেছে, তার পিতামাতা বলছে, এই সব মন্তব্য তাদের সামনে এগিয়ে যেতে এবং লেখার অনুপ্রেরণা জোগাতে থাকবে। সম্প্রতি লেনকার অবস্থার সামান্য উন্নতি ঘটে এবং সে সুন্দর আবহাওয়ার জন্য অপেক্ষা করছে, কারণ তার বাবামা অনেকদিন ধরে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, সুন্দর আবহাওয়ায় তারা তাকে আইসক্রিম খাওয়াতে নিয়ে যাবে।

লেনকা এবং পাওলার ব্লগ ২০০৯ সালের সেরা ব্লগ (ব্লগ অফ দি ইয়ার) প্রতিযোগিতার জন্য মনোনীত হয় এবং এর জন্য পাঠকদের ভোট প্রদানকে ধন্যবাদ, যাদের কারণে উভয়ে চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় পৌঁছেছে।


যদি আপনি পাওলা অথবা লেনকাকে সমর্থন করতে চান, তাহলে তাদের ব্লগে প্রবেশ করুন:
ডাব্লিডাব্লিডাব্লিউ.পাওলাপুরুস্কা.ব্লগস্পট.কম(www.paulapruska.blogspot.com)
ডাব্লিডাব্লিডাব্লি.ডিলালেনকাহ.ব্লগস্পট.কম(www.dlalenki.blogspot.com)

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .