বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ক্রোয়েশিয়া: নতুন প্রেসিডেন্ট, নতুন পথ

গত ১৮ই মার্চ ইভো জোসিপোভিচ পরপর দুইবার প্রেসিডেন্ট থাকা স্টেপান মেসিচকে সরিয়ে ক্রোয়েশিয়ার তৃতীয় প্রেসিডেন্ট হিসাবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। বিবিসি বিশদ একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে যেখানে বলা হয়েছে নতুন প্রেসিডেন্ট কিসের প্রতীক আর ক্রোয়েশিয়া কি কি বাধার সম্মুখীন হচ্ছে ২০১১ বা ২০১২ সালে ইউ এর সদস্যপদ পাওয়ার ক্ষেত্রে। কিন্তু আসুন দেখি এই বিশাল ক্ষমতার বদলে ব্লগারদের কি বলার আছে যা প্রধানমন্ত্রী ইভো সানাদেরের সাথে মিলেছে, যিনি হঠাৎ করে গত বছর অফিস থেকে সরে দাঁড়ান আর রাজনীতি থেকে পুরোপুরি সরে যান।

ফাঙ্কি বিজনেস রাষ্ট্রপতির ক্ষমতা গ্রহণ অনুষ্ঠান নিয়ে লিখেছেন:

নতুন রাষ্ট্রপতির উদ্বোধনী অনুষ্ঠান আমার আজ খুব পছন্দ হয়েছে। পুরো অনুষ্ঠান সাংস্কৃতিকভাবে খুব উচ্চমানের আর ইউরোপিয়ান ধাঁচের ছিল।

আগের একটা পোস্টে, যেদিন ফলাফল ঘোষণা করা হয়, ফাঙ্কি বিজনেস আরো লিখেছিলেন:

ক্রোয়েশিয়া বিচারকে নির্বাচিত করেছে। ক্রোয়েশিয়া আলোকে নির্বাচিত করেছে। ক্রোয়েশিয়া ভালো একটা ভবিষ্যৎ বেছে নিয়েছে। ক্রোয়েশিয়া শিক্ষিত এক ইউরোপিয়ান প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করেছে। ক্রোয়েশিয়া বুদ্ধিমত্তার সাথে বাছাই করেছে। অবশেষে!

অন্যরা আরো বেশী সাবধান – যেমন ফ্রা গাভুন (ফরাসী গলিত) লিখেছেন:

আজকে আমি খুশি, খুশি তবে আনন্দিত না। খুশি কারন আমি হতাশ হইনি, খুশি কারন তিনি মন জয় করেছেন।

স্বাভাবিকভাবে পথভ্রষ্ট কারী আছে, যেমন এই মন্তব্য গুলো, বিশেষ করে ভিদি পিস্মে ওভেরটা:

এগুলো শুধু অভিনয়, আর কিছু না…

আমরা অনেক আগে থেকেই ক্রয়কৃত বা বিক্রিত…

রাজনীতিবিদরা কেবলমাত্র অভিনেতা, যারা কারো লেখা নিয়ে কাজ করে…

যা কিছু আমরা পছন্দ করি না, যদি না আপনি অনুষ্ঠান দেখতে চান কিনা, এটাই সব…

দোসাঞ্জানির করা একটি দীর্ঘ মন্তব্যে এটার প্রতিধ্বনি আছে:

যদিও এসবে অংশগ্রহনের জন্য আমার বয়স কম ছিল , আমার আগের যুগোস্লাভিয়ার নির্বাচনের কথা মনে আছে যখন আমাদেরকে দলের প্রতিনিধিদের নাম দেয়া হত- একটা কাগজে পাঁচ ছয়জন যাতে আপনি এই বাছাই থেকে পছন্দ করতে পারেন। এখনো এমনি।

জসিপোভিচের সামনে বিরাট কাজ আছে যেহেতু ক্রোয়েশিয়া বিশাল অর্থনৈতিক মন্দার ভিতরে আছে আর দেশের ইউর সদস্যপদ পাওয়ার মত অনেক বড় লক্ষ্য আছে। এটা বোঝা যায় যে ক্রোয়েশিয়ানদের কাছ থেকে খোলাখুলি মন্তব্য আসে নি যখন তারা অপেক্ষা করছেন দেখার জন্য যে নতুন নেতৃত্ব অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি আর স্থিতি আনতে পারে কিনা।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .