বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কোস্টা রিকা: প্রথম মহিলা রাষ্ট্রপতি লরা চিনচিলা

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১০-এ কোস্টা রিকার জনগণ ভোট প্রদান করে এবং দেশটির ইতিহাসে প্রথম মহিলা রাষ্ট্রপতি হিসেবে লরা চিনচিলাকে নির্বাচিত করে। তিনি বর্তমান ক্ষমতাসীন শাসক দল ন্যাশনাল লিবারেশন পার্টি (স্প্যানিশ ভাষায় তার নামের আদ্যাক্ষর গুলো নিয়ে একে পিএলএন নামে ডাকা হয়) থেকে নির্বাচিত হয়েছেন। সর্বোচ্চ নির্বাচনী আদালত (সুপ্রীম কোর্ট ইলেকশন বা টিএসই) যে সমস্ত তথ্য সরবরাহ করেছে, তাতে দেখা যাচ্ছে তিনি বিশাল ভোটের ব্যবধানের জয়ী হয়েছেন। চিনচিলা প্রদত্ত ভোটের ৪৬.৭৮ শতাংশ অর্জন করেছেন এবং তিনি তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী অটোন সোলিসকে পরাজিত করেছেন। অটোন সিটিজেন এ্যাকশান পার্টির (পাক) এর প্রার্থী ছিলেন, এবং তিনি নির্বাচনে প্রদত্ত মোট ভোটের ২৫.১১ শতাংশ অর্জন করেছেন। কোন ধরনের দুর্ঘটনা ছাড়াই এই নির্বাচন সমাপ্ত হয়। ব্লগ ইলেকশন ২০১৪-২০১৮ [স্প্যানিশ ভাষায়] (সালগুলো পরবর্তী নির্বাচনের প্রতিফলন হিসেবে এখানে বসানো হয়েছে) লিখেছে:

Las elecciones se celebraron en un ambiente de fiesta, como lo marca la tradición en esta nación centroamericana en los últimos 50 años y que es considerada una de las democracias más sólidas y antiguas de América Latina.

এই নির্বাচন এক উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়। এটি মধ্য আমেরিকার এই রাষ্ট্রটিতে ৫০ বছর ধরে চলা আসা এক ঐতিহ্য এবং ল্যাটিন আমেরিকার মধ্যে এই দেশটির গণতন্ত্রকে সবচেয়ে পুরোনো ও শক্তিশালী গণতন্ত্র বলে বিবেচিত করা হয়।

চিনচিলার বিজয়ে ব্লগাররা প্রতিক্রিয়া জানাতে দেরি করেনি। কেউ এই ঘটনার বিশ্লেষণ করেছে, অন্যরা তাদের মতামত প্রদান করেছে। ব্লগ ফুসিল ডে চিসপাস [স্প্যানিশ ভাষায়]-এর ব্লগার ক্রিস্টিয়ান কামব্রোনেরো তার ব্লগে লিখেছেন, সংসদে চিনচিলার দল সবচেয়ে বেশি আসন লাভ করেছে:

Según la proyecciones hasta la media noche del domingo, la próxima Asamblea, compuesta por 57 diputados, quería conformada por PLN 24 diputados del oficialista PLN (centro-derecha), 10 del opositor PAC (centro-izquierda), 10 del derechista Movimiento Libertario, 6 del PUSC (derecha), 4 del PASE, 1 del Frente Amplio (Izquierda), y 2 diputados de partidos de fuerte raíz religiosa-conservadora: 1 de Restauración Nacional y 1 de Renovación Costarricense.

রোববার মধ্যরাত পর্যন্ত প্রাপ্ত ভোটের হিসেবে পরবর্তী সংসদের ৫৭ টি আসনের মধ্যে ক্ষমতাসীন পিএলন (মধ্য ডান) দলের ২৪ জন প্রার্থী, বিরোধী দল পাক থেকে সাংসদ হয়েছেন ১০ জন (মধ্য বাম), ১০ জন সদস্য জিতেছেন ডানপন্থী দল লিবারেশন মুভমেন্ট দল থেকে, পুসাক (পিইউএসসি, ডানপন্থী দল) জিতেছে ৬ টি আসন, পাসে দলটির ৪ জন প্রার্থী জয়লাভ করেছে, ১ জন জিতেছে ব্রড ফ্রন্ট থেকে (বাম দল)। ধর্মীয় দলগুলোর মধ্য থেকে নির্বাচিত হয়েছে ২ জন যারা অতি রক্ষণশীল বলে বিবেচিত: এদের একজন ন্যাশনাল রেস্টোরেশন থেকে ১ জন এবং কোস্টা রিকান রেনোভেশন থেকে ১ জন প্রার্থী সংসদে আসন লাভ করেছে।

ইউটিউব ব্যবহারকারী মানরিকেসর এর ভিডিও, কোস্টা রিকার রাজধানী সান কর্লোসের চারপাশের দৃশ্য:

রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের বিষয়ে ফিরে আসা যাক, এ ব্যাপারে ব্লগারদের প্রতিক্রিয়া ছিল মিশ্র। কয়েকজন ব্লগারের কাছে ন্যাশনাল লিবারেশন পার্টির (পিএনএল) আবার শাসনকার্য চালিয়ে যাবার ক্ষমতা অর্জনের বিষয়টিকে উৎসাহ জনক বলে মনে হয়নি। যেমন, ব্লগ কোনচে সান জোসে ডে নোচে [স্প্যানিশ ভাষায়] এ ধরনের মনোভাব ব্যক্ত করেছেন। তিনি লিখেছেন:

En mi humilde criterio se vienen cuatro años más de lo mismo de los últimos 25 años, donde el pobre se hace cada vez más pobre y el rico continua llenando sus bolsillos a costa del sudor de sus “colaboradores”, además claro el pueblo con su voto dio permiso a que los diputados sigan paseando en avioneta y escribiendo memorándums de terror para el pueblo.

আমার বিনম্র দৃষ্টিতে, একই রকম শাসন আরো চার বছরের জন্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এবং এই ঘটনাটি বিগত ২৫ বছর ধরে ঘটে আসছে। এই শাসনে গরিবেরা আরো গরিব হয়েছে এবং ধনীরা তার “বন্ধুদের” মিষ্টির টাকায় তাদের পকেট ভরেছে। অবশ্য বলা যায়, জনগণ তাদের ভোট সংসদদের প্রদান করে তাদের আবারো বিমানে চড়ার এবং জনগণকে ভয়াবহ সব মেমো বা স্মারক প্রদান করার অনুমতি প্রদান করেছে।

পিএলএনের জয় বাম সমর্থকদের জন্য এক আঘাত স্বরূপ। ব্লগ এল মায়ে ডেল বাজো [স্প্যানিশ ভাষায়] এর লেখক বিষয়টি বর্ণনা করছে। তিনি লিখেছেন:

Ha llegado la hora para que la izquierda se una, esta elección ha manifestado la necesidad de una gran coalición de partidos de izquierda, solo así se formara un gran frente de lucha en contra de los neoliberales, pero si los mezquinos dirigente de estos partidos se niegan a unirse el único camino que les queda es la disolución, abran los ojos ante esta realidad…

এখন সময় এসেছে বামদল গুলোকে একত্রিত হবার, এই নির্বাচন তাদের জানিয়ে দিয়েছে যে বামদলগুলোর জন্য এক মহাজোট গড়া কতটা প্রয়োজনীয়, এবং এভাবে নব্য উদার-নৈতিকতাবাদের বিপক্ষে লড়ার জন্য বড় একটি জোট তৈরি করা সম্ভব। কিন্তু যদি এ সমস্ত দলগুলোর নেতার সেই জোটে যোগ দিতে অস্বীকার করে, তা হলে বাকী যে পথটি রয়েছে তা হলে নিজেদের বিলুপ্ত করা ফেলা। এখন এই বাস্তবতার প্রতি তাদের চোখ মেলে দেখা উচিত।

ব্লগ জগৎে নির্বাচনের ফলাফলে এক হতাশার অনুভূতি তৈরি হয়েছে, যেমন ব্লগার জুলিয়া আর্ডেনের এই দশা হয়েছে। তিনি চিনচিলার জয়ের ব্যাপারে তার অনুভূতি ব্যক্ত করেছেন [স্প্যানিশ ভাষায়]:

No me siento representada por ella. Es raro. Lloré cuando Michelle llegó a la presidencia en Chile. Pero ahorita, cuando ella dió su discurso de aceptación la escuché con atención y no sentí nada. No sé si eran los jingles que la interrumpían, no sé si era la redacción de su discurso. No sé si es que me siento muy lejos de sus ideas y de quienes la colocaron como candidata. No sé. Pero no me conecté con su corazón. No pude.

আমি মনে করি না চিলচিলা আমার প্রতিনিধিত্ব করে। যখন মিশেল (ব্যাসলেট) চিলির রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হয়েছিল, তখন আমি আনন্দে কেঁদে উঠেছিলাম। কিন্তু এখানে যখন সে (চিনচিলা) তার বিজয়ী ভাষণ প্রদান করেন, তখন আমি তা মনোযোগ দিয়ে শুনি। সেই ভাষণে আমি কিছুই পাই নি। আমি জানি না এটি কি বিজ্ঞাপনের সঙ্গীত যা সেটিতে বাঁধাগ্রস্ত করেছিল, না কি লেখার কারণে ভাষণটির এই দশা হয়েছে। আমি জানি না, কিন্তু আমি উপলব্ধি করলাম এই ভাষণ তার চিন্তা এবং প্রার্থী হিসেবে নিজেকে যে ভাবে উপস্থাপন করেছিল তার থেকে অনেক দুরে অবস্থান করছে। আমি জানি না, কিন্তু আমি তার হৃদয়ের সাথে নিজেকে যুক্ত করতে পারলাম না। আমি তা পারি নি।

তবে অন্য কয়েকজন ব্লগার রয়েছে, যারা সংখ্যাগরিষ্ঠ জনতার পছন্দের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর কথা বলছে। এই বিষয়টি ব্লগার উলভারিন লিখেছে:

Ya es nuestra presidente, démosle oportunidad de demostrar su independencia y probar que ella es bastante capaz como mujer de llevar a cabo y ejercer satisfactoriamente su cargo como Presidenta de Costa Rica y superar las expectativas del pueblo, al fin y al cabo Costa Rica somos todos los ticos, no solo el Presidente y su comitiva

তিনি এখন আমাদের রাষ্ট্রপতি, তাকে স্বাধীন ভাবে কাজ করার ও নিজেকে প্রমাণ করার সুযোগ দিন, যাতে একজন মহিলা হিসেবে তিনি সামনে এগিয়ে যেতে পারেন এবং কোস্টা রিকার রাষ্ট্রপতির দপ্তরে শান্তিতে কাজ করতে পারেন। একই সাথে কোস্টা রিকার জনগণের তার উপর যে প্রত্যাশা রয়েছে তিনি তা পুরণ করতে পারেন। সর্বপোরি বলতে পারি, কোস্টা রিকায় কেবল রাষ্ট্রপতি এবং তার দল নয়, আমরা সবাই “টিকোস” (কোস্টা রিকাবাসী)।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .