বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

হাইতি: জীবিতদের জন্য উদ্ধার প্রচেষ্টা, তাদের সন্ধানে অভিযান

এখানে কয়েকটি অনলাইন যোগাযোগ ব্যবস্থা ও ডাটাবেজ বা তালিকাভাণ্ডার রয়েছে, যেগুলো গত কয়েকদিন ধরে যারা হাইতির বাইরে রয়েছে তাদের আত্মীয় ও পরিবার সম্বন্ধে তথ্য সংগ্রহ করার চেষ্টা করছে ও জীবিত যাদের জরুরী ভিত্তিতে সাহায্য প্রয়োজন, তাদের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। হাইতিতে অনেকে এখনো তাদের নিজেদের ভেঙ্গে পড়া বাড়ির নিচে আটকা পড়ে আছে।

রেড ক্রসের আন্তর্জাতিক কমিটির অনলাইনে এক বিস্তৃত তালিকা রয়েছে, যেখানে নিখোঁজ বন্ধু বা আত্মীয়দের অনুসন্ধান করা যেতে পারে।

প্রধান প্রধান সংবাদ সংস্থা যেমন, নিউ ইয়র্ক টাইমসসিএনএন এবং একই সাথে গুগলের মত প্রতিষ্ঠানও নিখোঁজ ব্যক্তিদের এক তালিকা তৈরি করেছে। হাইতি আর্থকোয়েক সাপোর্ট সেন্টার বা হাইতিতে ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্থের সাহায্য কেন্দ্র এমন এক যন্ত্রের (টুলস) উপর কাজ করছে, যা স্বেচ্ছাসেবীদের ছবি মেলাতে সাহায্য করবে। সংবাদে ছাপা ছবি থেকে পাওয়া বিভিন্ন মানুষের মুখের ছবি তারা হারিয়ে যাওয়া মানুষের ছবির সাথে মিলিয়ে দেখছে।

আর্থকোয়েক হাইতি নামের এক ফেসবুক গ্রুপে সম্প্রতি ১৫০,০০০ বেশি সদস্য এবং ৪,০০০ টি বেশি ছবি পোস্ট করা হয়েছে। ছবিগুলো পরিবারের সদস্যরা পোস্ট করেছে, যারা তাদের ভালবাসার মানুষটিকে খুঁজে বেড়াচ্ছে।

কেনিয়ার নির্বাচনী সংকটের সময় ব্যবহৃত উসাহিদিকে কার্যকর ভাবে ব্যবহার করা হয়েছে। এটি এখানেও সংকট বিষয়ক তথ্য মানচিত্র তৈরি করছে। এর মধ্যে রয়েছে হারিয়ে যাওয়া মানুষ, ভেঙ্গে পড়া ভবন এবং রাস্তাঘাটের অবস্থা কেমন, সে সম্বন্ধে তথ্য।

বিদেশে বাস করা হাইতিবাসীরা টুইটারে #রিলেটিভসইনহাইতি নামক ট্যাগ ব্যবহার করছে। তারা এখনো তাদের নিখোঁজ আত্মীয়দের অবস্থান খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে। ইতোমধ্যে #রেসকিউমিহাইতিকে ব্যবহার করা হচ্ছে রাজধানী পোর্ট-অ-প্রিন্স ও তার আশেপাশে সরাসরি উদ্ধার অভিযান ও বিশেষ উদ্ধার অভিযানের জন্য। জানা গেছে সেখানে এখনো অনেক বেঁচে যাওয়া লোক বাড়িঘরের ধ্বংসস্তুপের নিচে আটকা পড়ে আছে:

ক্রিস্টোফার ফ্রেসাইনেট এখনো জীবিত। তারা এই ব্যক্তিটির আর্তনাদ শুনতে পাচ্ছে। ৬৪ রু নর্ড আলেক্সি। চাচাতো ভাই ডাফেইকে ডাক ৫০৯-৩৯০৪৬৯৮৩

ক্যারিবিয়ান মার্কেটের ভেতরে ৬৩ জন লোক এখনো বেঁচে আছে। বেঁচে যাওয়া ব্যক্তিরা টেক্সট মেসেজ বা মোবাইলে বার্তা পাঠাচ্ছে, কাজেই আমরা তাদের সাহায্যের জন্য পাঠাতে পারি। দয়া করে লোকজনকে জানা।

হেলোইজ বয়ার নামক ভদ্রমহিলা তার নিজের ঘরে আটকা পড়ে রয়েছেন #৪০ রু ও, টুরগেউ।

সাহায্য প্রয়োজন! কলেজ কানাপে ভের্ট এর নিচে আটকা পড়া লোকগুলো এখনো জীবিত রয়েছে। তারা সাহায্যের জন্য চিৎকার করছে, যাতে তাদের সেখান থেকে বের করে আনা হয়…

অক্ষাংশ:১৮°৩১′২৫.৭৪″উ দ্রাঘিমাংশ: ৭২°১৬′২৮.২৫″প #ব্রেসমা #হাইতি, আমাদের খাবার এবং পানির প্রয়োজন। এখন সেখানে প্রায় ১৫০ জন লোক রয়েছে

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .