বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

রাশিয়া: রুনেটে স্ট্যালিনের ভুমিকা নিয়ে বিতর্ক

জোসেফ স্ট্যালিনের ১৩০ তম বার্ষিকীর শুরুতে, রাশিয়ার ব্লগ জগৎের বিভিন্ন লেখায় রাশিয়ার ইতিহাসে এই বিতর্কিত ব্যক্তির ভূমিকা সম্পর্কে গরম গরম বিতর্কে পূর্ণ ছিল। এই সব ব্লগ পোস্টে দেয়া বিভিন্ন মতামত আর বিশেষ করে তারা যে বেশ কয়েক হাজার মন্তব্যকে আকর্ষিত করেছেন তা স্ট্যালিন সম্পর্কে ভিন্ন মত ও মানুষের মধ্যকার গভীর বিভেদের ইঙ্গিত দেয়।

বেশীরভাগ ব্লগ পোস্টের আবির্ভাব হয়েছে জনপ্রিয় রাশিয়ান টিভি চ্যানেল এনটিভি তে ‘স্ট্যালিন’স নামি’ (স্ট্যালিন আমাদের সাথে আছেন) নামে টক শো প্রদর্শনের পরে যা উল্লেখযোগ্য সংখ্যক স্ট্যালিনের সমর্থক আর তার জনপ্রিয় সমালোচকদের একত্র করেছিল। এই অনুষ্ঠানের মূল উদ্দেশ্য ছিল স্ট্যালিনের ভাবমূর্তি পুন:প্রতিষ্ঠা করে তাকে যারা সমালোচনা করে তাদেরকে থামিয়ে দেয়া।

ছবি ফ্লিকার থেকে এক্স_রে_ডেল্টা_ওয়ান এর সৌজন্যে

ছবি ফ্লিকার থেকে এক্স_রে_ডেল্টা_ওয়ান এর সৌজন্যে

এই বিষয়ে সব থেকে বেশী পঠিত আর আলোচিত ব্লগ পোস্ট ছিল জিকিউ ম্যাগাজিনের প্রধান সম্পাদক নিকোলাই উস্কোভের (রাশিয়ান ভাষায় লেখা)। বেশ কঠোর কথা ব্যবহার করে এই টক শো আর সেই দেশ যেখানে মানুষ এখনো স্ট্যালিনকে পছন্দ করে তাদের সম্পর্কে উস্কোভ তার গভীর হতাশা প্রকাশ করেছেন:

Ничего, кроме желания уехать из страны навсегда, это ток-шоу не вызывает. […] Но меня, ей богу, заебал ваш Сталин, выжившие из ума бабки, генералы-козлы и депутаты-пустомели. Все это полный окончательный пиздец. Пиздец России, которая в 2009 году показывает по телевизору уебищных мудаков и видит в обсуждении их мудацкой позиции какой-то актуальный смысл. Пиздец стране, которая вместо удушающего стыда за Сталина испытывает гордость, вместо отвращения – страстную любовь.

এই টক শো দেশ ছেড়ে চলে যাওয়া ছাড়া আমার মধ্যে অন্য কোন বোধ জাগ্রত করে না। ইশ্বরের দিব্যি, আমি স্ট্যালিনকে নিয়ে বিরক্ত, পাগল সব দাদী নানী, জেনারেল আর সিনেটরদের নিয়ে। এটা সব কিছু একটা চূড়ান্ত খেলা। এটা রাশিয়ার জন্য খেলা যারা ২০০৯ সালে এখনো টিভিতে সব বোকাদের দেখায় আর তাদের ভূমিকা নিয়ে আলোচনার কারণ খুঁজে পায়। এটা একটা দেশের জন্য খেলা যারা স্ট্যালিনের জন্য গর্ব অনুভব করে লজ্জায় দম না আটকিয়ে, আশ্চর্য, এরা এখনো দারুন ভাবে ভালবাসে [স্ট্যালিনকে] তার উপরে বিতৃষ্ণ হওয়া বাদ দিয়ে।

এই পোস্টের উপর দুই দিনে ৯০০টিরও বেশী মন্তব্য এসেছে। অনেকে উস্কোভের রাশিয়ান টিভির ব্যাপারে মতামত আর দেশ সম্পর্কেও সাধারণ ভাবে হতাশার সাথে একমত। কিন্তু কয়েকজন ব্লগার স্ট্যালিনকে সমর্থন করেছেন আর তার কঠোর কাজের সমর্থন করেছেন তার অর্জনকে তুলে ধরে। লাইফ জার্নাল ব্যবহারকারী muf_dvr (মুফ ডিভিআর) উদাহরণ স্বরূপ লিখেছেন:

Печально, конечно, что при Сталине пострадали в том числе, скорее всего, и невинные люди. Но были бы мы сейчас свободными, если бы не сталинские жёсткие действия? Существовали бы как нация? Вопрос. Иногда стоит выбор между плохим вариантом и очень плохим, надо это понимать.

এটা অবশ্যই দু:খজনক, যে স্ট্যালিনের সময়ে নিরপরাধ লোক ভুগেছেন। কিন্তু আজকে কি আমরা মুক্ত হতাম স্ট্যালিনের কঠোর শাসন ছাড়া? ভাল প্রশ্ন। মাঝেমাঝে কাউকে কিছু খারাপ আর খুব খারাপ পরিস্থিতির মধ্যে বেছে নিতে হয় আর আপনাদের এটা বুঝতে হবে।

আর একজন লাইফ জার্নাল ব্যবহারকারী vasq (ভাস্ক) মনে করেছেন যে তখনকার দিনে মানুষ স্ট্যালিনের জন্য মারা যেতেও প্রস্তুত ছিল:

Что вы сделали для России, если имеете наглость хаять Сталина?
Я жил и работал рядом с людьми которые шли в бой с криком – “За Родину, за Сталина!”

আপনি রাশিয়ার জন্য কি করেছেন যে আপনার এই দু:সাহস থাকে স্ট্যালিন সম্পর্কে খারাপ বলা? আমি এমন লোকের সাথে থেকেছি আর কাজ করেছি যারা যুদ্ধে গেছেন এই স্লোগান দিয়ে “মাতৃভূমির জন্য! স্ট্যালিনের জন্য!”
ছবি বসনগো.রু (bosonogoe.ru) এর সৌজন্যে

ছবি বসনগো.রু (bosonogoe.ru) এর সৌজন্যে

কিছু ব্লগার তাদের মন্তব্যে তুলে ধরেছেন সম্প্রতি রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন স্ট্যালিনের যে সমস্ত গঠনমূলক কাজ তুলে ধরেছেন আর প্রধান ধারার মিডিয়ার এই সংক্রান্ত প্রচারণা। তবে এলজি ব্যবহারকারী স্টাইনক্রাউজ রাশিয়াতে স্ট্যালিনের ভালো চিত্র গঠনের ক্ষেত্রে প্রচারণার প্রভাবের কথা নাকচ করে দিয়েছেন:

Место Сталина на пьедестале обеспечено не пропагандой, а наличием его наследия в реальной жизни. Идёт человек по красивому проспекту — в 9 случаях из 10 этот проспект сталинский. Покупает человек квартиру — дом с нормальной толщиной стен и высотой потолков тоже “сталинка”. Слушает человек оперу — постановки Большого мирового уровня опять таки из того времени. И так далее.

স্ট্যালিনকে তার যৌক্তিক মূল্যায়ন প্রচারণা দিয়ে নির্দিষ্ট হয় না বরং আসল জীবনে তিনি কি রেখে গেছেন তা দিয়ে হয়। কেউ সুন্দর একটা রাস্তা দিয়ে হাঁটছেন- দশটির মধ্যে নয়টি ক্ষেত্রে, এটা স্ট্যালিনের সড়ক [স্ট্যালিনের সময়ে নির্মিত]। কেউ কোন বাড়ি কিনল ভালো মোটা দেয়াল আর উচুঁ ছাদসহ-এটাও স্ট্যালিনের আমলের। কেউ অপেরা শুনছেন, বলশয় থিয়েটারের কোন বিশ্ব মানের প্রযোজনা- এটাও সেই সময়ের। আরো অনেক কিছু।

জিকিউ এর সম্পাদকের সাথে আরো বেশ কয়েকজন বিখ্যাত ব্লগার যোগ দিয়েছেন স্ট্যালিনের কাজকে নীচু হিসেবে দেখানোর মাধ্যমে তিরস্কার করার জন্য। বিখ্যাত রুশ ব্লগার দ্রুগোয় উস্কোভের পোস্টকে স্বাগত জানিয়ে এনটিভিকে সমালোচনা করেছেন:

Вот так не смотришь телевизор месяцами, не смотришь, а потом раз, включишь, и словно в зловонную яму окунешься. […] Интересно, кто додумался вытащить городских сумасшедших, вроде Квачкова, на федеральный телеканал в воскресный прайм-тайм и заставить зрителей слушать эти бредни про конопатого упыря?

আপনারা কয়েক মাস টিভি না দেখে তার পরে সেটা চালু করেন তাহলে মনে হবে যেন আপনারা একটা দূর্গন্ধময় গর্তে পড়েছেন। আমি ভাবছি কার মাথায় এমন ধারণা এসেছিল কাভকোভ [রাশিয়া বৈদেশিক সেনা ইন্টেলিজেন্স ডাইরাক্টরেটের (গ্রু) ভূতপূর্ণ কর্নেল] এর মত পাগল লোককে ফেডারেল টিভি চ্যানেলের সপ্তাহান্তে মূল-সময়ের অনুষ্ঠানে আনার আর [স্ট্যালিন সম্পর্কে] এইসব রক্তচোষাদের প্রলাপ মানুষকে শুনতে বাধ্য করা ।

পূর্বের উদাহরণের মতো, দ্রুগোয়ের পোস্ট সাথে সাথে যুদ্ধ ক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে অসংখ্য স্ট্যালিনবাদী আর এই মতবাদের বিপক্ষে যারা শক্তিশালী মতামত রেখেছেন তাদের মধ্যে। লাইফ জার্নাল ব্যবহারকারী ৪ডি_ম্যান দ্রুগোয়কে অভিযুক্ত করেছেন ‘সমগ্র প্রজন্মের আত্মার উপরে থুথু ফেলার জন্য’। তিনি ২০০৭ এ জনগনের মতামত ফাউন্ডেশনের করা একটা জরীপের ফলাফলের দিকেও দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন:

…] по данным опроса общественного мнения 18-19 февраля 2006 г., 47 % жителей России считают роль Сталина в истории положительной, 29 % — отрицательной. Смерть Сталина стала для народа настоящим потрясением. Страна целиком погрузилась в траур. Люди, услышав про данную весть, не могли сдержать слез. Народ действительно горевал из-за смерти своего кумира. 2 миллиона человек пришли проститься с вождём лично.

২০০৭ সালের ফেব্রুয়ারীর ১৮-১৯ তারিখে অনুষ্ঠিত হওয়া জনগণের মতামতের জরীপ ৪৭% রাশিয়ান ইতিহাসে স্ট্যালিনের ভুমিকা ভালভাবে দেখেছেন, আর ২৯% খারাপভাবে। স্ট্যালিনের মৃত্যু মানুষের জন্যে বড় আঘাত ছিল এবং সে সময় সারা দেশ শোকে ডুবে যায়। অনেক মানুষ তার মুত্যুসংবাদ শোনার পরে, অশ্রু ধরে রাখতে পারেননি। মানুষ তাদের প্রতিকৃতির মৃত্যুতে আসলেই শোক প্রকাশ করেন। দুই মিলিয়ন লোক তাদের নেতাকে বিদায় জানাতে আসেন।

কিন্তু সকল জনপ্রিয় ব্লগ পোস্ট এই বার্ষিকির সাথে সম্পর্কিত স্ট্যালিনের সমালচোনা করেনি। স্বনামধন্য রাশিয়ার বুদ্ধিজীবি আনাটোলি ভাসেরম্যান স্ট্যালিনকে সমর্থন করে তার সাফল্যের দিকে দৃষ্টি দিতে বলেছেন:

…] по данным опроса общественного мнения 18-19 февраля 2006 г., 47 % жителей России считают роль Сталина в истории положительной, 29 % — отрицательной. Смерть Сталина стала для народа настоящим потрясением. Страна целиком погрузилась в траур. Люди, услышав про данную весть, не могли сдержать слез. Народ действительно горевал из-за смерти своего кумира. 2 миллиона человек пришли проститься с вождём лично.

আসল জোসেফ ভিসারিওনোভিচ জুগাশভিলি [স্ট্যালিনের আসল নাম] আমার জন্য বেশী গুরুত্বপূর্ণ। তিনি বিশ্ব পরিভ্রমণে একটি আত্মঘাতি পথকে পাশ কাটিয়েছেন যার মানে ছিল পুরো বিশ্বের বিরুদ্ধে একটা দেশের অবস্থান আর এর ফলে মৃত্যু। তিনি- অনেক শিকারের বিনিময়ে আমেরিকার গ্রেট ডিপ্রেশনের শিকারের সংখ্যার তুলনা করেছেন – (তিনি) আমাদের দেশকে অনুন্নত থেকে বিশ্বের একটা শক্তিশালী বানিজ্যিক সাম্রাজ্যে পরিণত করেছেন।

ভাসেরম্যান স্ট্যালিনের সাফল্যের একটি তালিকা দিয়েছেন আর ১৯৩৭ সালে রাশিয়ার দ্বিতীয় গৃহযুদ্ধ বন্ধে তার ভূমিকার প্রশংসা করেছেন। আরও রয়েছে নাৎসী জার্মানীর উপরে বিজয় পাওয়া, সমাজতন্ত্রে অর্থনৈতিক সমস্যা নিয়ে বির্তকের সৃষ্টি করে “কমিউনিস্ট ইউটোপিয়ার সাথে বাস্তবতার মিলন তৈরি করার পথ খোঁজা”। ভাসেরম্যানের ব্লগে এক হাজারের বেশী মন্তব্য স্ট্যালিনের ব্যাক্তিত্বের উপরে আরো গবেষনার প্রয়োজনীয়তাকে সমর্থন করেছে আর তার প্রাপ্তি ও বিফলতার সঠিক মূল্যায়নের দাবি করেছে।

ছবি ইন্টারভাইবস.নেট এর সৌজন্যে

ছবি ইন্টারভাইবস.নেট এর সৌজন্যে

আর একটা জনপ্রিয় জায়গা স্ট্যালিন নিয়ে আলোচভনার হলো আব-পোকোজের ব্লগ। ভারতের একজন অধ্যাপকের সাথে কাল্পনিক কথোপকথনের রুপে যা ১৯৪৫ এ হচ্ছে, আব-পোকোজ স্টালিনকে উইন্সটন চার্চিলের সাথে তুলনা করেছেন যার নীতির কারনে বলা হয়ে থাকে যে আফ্রিকা, ভারত আর আইরল্যান্ডের অনেক মানুষ ভুগেছে। আব-পোকোজ তার পোস্ট শেষ করেছেন নীচের মন্তব্য দিয়ে:

И никто не осудит преступления черчиллизма. Все будут думать, что он же победил немцев — разве можно припоминать ему всё остальное?

আর চার্চিলবাদীর অপরাধ কেউ বিচার করবেন না। সবাই ভাববেন: “তিনি জার্মানদের পরাজিত করেছেন। আমরা কিভাবে অন্য কিছু মনে করতে পারি?”

জোসেফ স্ট্যালিনের ১৩০তম বার্ষিকী রাশিয়ার সমাজের কষ্টকর ব্যাপারে একটা নতুন মোড় দিয়েছে। ব্লগ জগৎ কেবল তুলে ধরেছে স্ট্যালিনের ভূমিকা নিয়ে বির্তকের তীব্রতা যা ক্রেমলিনের সাহায্য ছাড়া গত পাঁচ বছরে আবার সামনে এসেছে। স্ট্যালিনকে নিয়ে বিভাজিত মতামত সেই গভীর বিভেদ তুলে ধরে বয়স্ক মানুষ, যারা সোভিয়েত সাম্রাজ্যের বিগত ক্ষমতার স্বপ্ন দেখেন, আর যুবাবয়সী খোলামেলা নতুন প্রজন্মের মধ্যে যারা অতীতে আটকিয়ে না থেকে সামনের দিকে যেতে চান।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .