বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ফ্রান্স: অভিবাসীহীন একটি দিন

LA_JOURNEE_SANS_IMMIGRES_-_24H_SANS_NOUS1ফ্রান্সের “জাতীয় পরিচয়” নিয়ে রাষ্ট্রপতি নিকোলাস সারকোজি ও তার অভিবাসন, সংযুক্ত করণ, জাতীয় পরিচয় ও সংহতি উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রী এরকি বেসঁও-এর, তৈরি করা বিতর্কের পেছনে একটা গোপন বিষয় রয়েছে বলে অনেক রাজনৈতিক মঞ্চের অভিনেতা ও পর্যবেক্ষক মনে করেন [ফরাসী ভাষায়]। সরকারের সুনির্দিষ্ট উদ্যোগ প্রিফেক্টসরা আস্থার সাথে গ্রহণ করেছে। ফরাসী দেশে প্রিফেক্ট হচ্ছে স্থানীয় সরকার প্রতিনিধি।

বিরোধী দলীয় ব্যক্তিরা এই বিষয়টির বিরোধিতা করছে। মার্টিন অউব্রি সমাজতান্ত্রিক দলের নেতা। গ্রীনোবেলের এক সভায় তিনি বলেন, রাষ্ট্রপতি নিকোলাস সারকোজি অভিবাসীদের জাতীয় পরিচয় প্রদানের বিরোধিতা করে ফ্রান্সকে বিব্রত করছেন।

যাই হোক, প্রশ্ন থেকে যায়, কোন ভাবনায় বাইরে থেকে আসা ব্যক্তিদের মধ্যে যারা দ্বিতীয় ও তৃতীয় প্রজন্মের নাগরিক তাদের কি অভিবাসী বলে ডাকা যায়?

স্মরণ করুন যুক্তরাষ্ট্রের সেই দি গ্রেট আমেরিকান বয়কটের কথা। সেদিন সারা যুক্তরাষ্ট্রের সকল বৈধ এবং অবৈধ অভিবাসী সে দেশের সকল স্কুল ও ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান বয়কট করেছিল। দিনটি ছিল ১ মে,২০০৬। মূলতঃ ল্যাটিন আমেরিকান বংশদ্ভূত ব্যক্তিরা এই বয়কটের আয়োজন করেছিল। এ মাসের শুরুতে ফ্রান্সে একটি দল বা “যৌথ বাহিনী” তৈরি করা হয়েছে। “অভিবাসীহীন একদিন -আমাদের ছাড়া ২৪ ঘন্টা” এই শিরোনামের অধীনে এই দলটি তৈরি করা হয়। ১ মার্চ, ২০১০-এ তাদের একটি অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। এই দলের প্রচারপত্র তাদের ওয়েবসাইটে জুড়ে দেওয়া হয়েছে [ফরাসী ভাষায়] এবং যত দুর জানা যায় ১০টি শাখার ফেসবুক গ্রুপ বা দল স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া এই ঘটনার উপর একটি ব্লগফোরামও রয়েছে।

এই বিষয়ে যে প্রচারপত্র সেটি এসব শব্দ দিয়ে শুরু হয়েছে:

Nous, femmes et hommes, de toutes croyances, de tous bords politiques, et de toutes couleurs de peaux, immigrés, descendants d’immigrés, citoyens conscients de l’apport essentiel de l’immigration à notre pays, en avons assez des propos indignes tenus par certains responsables politiques visant à stigmatiser ou criminaliser les immigrés et leurs descendants. Rappelons qu’un immigré est celui qui est perçu comme tel par les autres au-delà même de ses origines. Nous voulons nous réapproprier et réhabiliter ce terme devenu péjoratif par la force de l’instrumentalisation politique.

আমরা, সকল পুরুষ এবং মেয়েরা, সকল মতবাদ, রাজনৈতিক অবস্থান এবং গায়ের রঙ, অভিবাসী, অভিবাসীদের সন্তান, নাগরিক, আমরা আমাদের এই দেশে অভিবাসীদের প্রয়োজনীয় অবদানের ব্যাপারে সচেতন। আমরা, সেই অভিবাসী ও তাদের উত্তরসূরীরা বেশ কিছু রাজনৈতিক নেতার কারণে যথেষ্ট নিন্দা সূচক মন্তব্যের মুখোমুখি হয়েছি। এ সকল মন্তব্যের উদ্দেশ্য অভিবাসী এবং তাদের উত্তরসূরীদের সুনাম নষ্ট করা বা তাদের অপরাধী হিসেবে চিহ্নিত করা। চলুন আমরা স্মরণ করি যে একজন অভিবাসী এমন একজন ব্যক্তি যে অন্যদের কাছে এ ভাবেই পরিচিত, এমনকি তার নিজস্ব পরিচয়ের বাইরে। আমরা এই পদের সপক্ষে দাবি করতে ও তাকে আবার সংরক্ষিত করতে চাই, যা এক রাজনৈতিক হাতিয়ারের মাধ্যমে তাদের অবমাননা করা হয়।

ল ব্লগ ডে রোজে ব্লঁশে করা এক উদ্ধৃতি, যা এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে করা প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার সময় “অভিবাসীহীন একটি দিনের” ভাইস প্রেসিডেন্ট পেগি ডারডের ব্যাখ্যা করেন [ফরাসী ভাষায়]:

Notre collectif appelle les immigrés, descendants d'immigrés et citoyens conscients de l'apport essentiel de l'immigration à ne plus participer à la vie économique de la Cité pendant 24 heures. Ne pas travailler peut prendre plusieurs formes: faire grève, poser une journée de RTT ou de congé… On appelle également à ne pas consommer : ne pas aller au Mc Do, ne pas faire de shopping etc. Par cette absence, nous voulons marquer la nécessité de notre présence. En agissant sur le levier économique, on veut montrer que les immigrés sont une richesse au sens propre et figuré, des éléments moteurs de l'économie et de la société.

আমাদের দল অভিবাসী, অভিবাসীদের সন্তান এবং যে সমস্ত নাগরিক অভিবাসীদের প্রয়োজনীয় অবদানের ব্যাপারে সচেতন, তাদের দল। দলটি ২৪ ঘন্টার জন্য এই জাতীর যে কোন ধরনের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে অংশ নেওয়া থেকে বিরত থাকবে। কাজ না করার ব্যাপারটি বেশ কয়েক ভাবে ঘটতে পারে: হরতাল করা, রিডুকশিওঁ দু তম্প দো থ্রাবাইয়ে (আরটিটি) বা একদিন কাজের পরিমাণ কমিয়ে আনা বা কাজ থেকে ছুটি নেওয়ার মাধ্যমে.. একই সাথে আহ্বান রয়েছে কোন কিছু ব্যবহার (খাবার বা বিলাস ব্যসন) থেকে বিরত থাকা; ম্যাকডোনাল্ডস নামক দোকানে গিয়ে না খাওয়া, কেনাকাটা করতে না যাওয়া, ইত্যাদি। এই সব কাজ না করার মধ্য দিয়ে আমরা আমাদের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরতে চাই। অর্থনৈতিক চালিকা শক্তিতে ভূমিকা রেখে আমরা তাদের দেখাতে চাই যে অভিবাসীরা সম্পদ, শব্দগত এবং বাস্তব অর্থে তারা বিশ্বের সম্পদ। তারা অর্থনীতি এবং সমাজের চালিকা শক্তি।

এই উদ্যোগ রাজনৈতিক পরিসরে বেশ বড় আকারে সমর্থন লাভ করেছে। মধ্যপন্থী সদস্যরা এর বাইরে থাকতে চান না এবং বাম ধারার ব্লগার ইনটক্স ০০৭ এর সাথে যুক্ত হয়েছেন:

Alors, oui, si cette journée est l'occasion de montrer aux hypocrites que de nombreux jobs (et pas forcément ceux en bas de l'échelle) sont exercés par des immigrés, vocable réducteur et objet d'attaque ignobles. Et que ces citoyens là sont aussi dignes que le né-ici, mais qu'ils sont plus l'objet de mépris, et que cela doit être combattu.

হ্যাঁ, যদি ভণ্ডদের দেখানো যায় যে প্রচুর পেশায় (উপরের দিকের হোক বা নিচের দিকের হোক) হয়ত (খুব সহজ ভাবে) অভিবাসীরা কাজ করে থাকে, (যারা) এই রকম বিরক্তিকর সব আক্রমণের শিকার, এবং সে সমস্ত নাগরিক, যারা এদেশে জন্ম বলে দাবি করে, তাদের মতই সবকিছু পাবার অধিকার রাখে। কিন্তু তারা অনেক বেশি অবজ্ঞার শিকার এবং তাদের এর বিরুদ্ধে লড়াই করা প্রয়োজন।

ডেমোয়া ল নুভোয়া কঙ্গো ব্রাজিভিলই বার্তাটি খুশি মনে ছড়িয়ে দিতে চান, একই সাথে আলজেরীয় সংবাদ আলোচনা মাধ্যম সিটি ডেজ তা করতে চায়।

তবে কিছু ভিন্নস্বরও রয়েছে এবং কেবল এমন জায়গায় নয় যেখানে তাদের আশা করা হয়।

মারলে মোকিওর বা মোকিং বার্ড নামের ব্লগার উভয় দিন পালন নিয়ে বিরক্ত এবং ভদ্রমহিলা ব্যঙ্গোক্তির সাথে অভিবাসীহীন দিবসের উদ্দেশ্য নিয়ে যে কোন ভুল বোঝার বিষয়ে সতর্ক করে দেন:

Ah, ça nous manquait, la journée sans immigrés. Voilà une idée de gauche qu'elle est bonne , fédératrice, porteuse de lien social, et pas du tout nunuche. Voilà une formulation qui plaira à certains. Eteins ton ordinateur, prends ton flingue, monte dans le bus et va jusqu'à la cité des Primevères. Il n'y a plus de bus ? Il a brûlé ? Arrête tes conneries réactionnaires, camarade, et marche un peu, ça te fera du bien. Va chez les Noirs et tire dans le tas, c'est la journée sans immigrés, t'as le droit.

আহ! এটা এমনকি বিষয় যা আমরা উপলদ্ধি করতে পারছি না, অভিবাসীহীন একটি দিন। দেখুন বাম-পন্থীদের একটি চিন্তা যা একক চিন্তা, যা সমাজকে যুক্ত করে, এবং যা মোটেও বিচিত্র কোন চিন্তা নয়। এখানে একটি শব্দ রয়েছে, যা কিছু লোকের ক্ষেত্রে সুন্দর ভাবে খাপ খায়। আপনার কম্পিউটার বন্ধ করুন, বন্দুক নিয়ে বের হন, একটি বাসে চড়ুন এবং ভিন্ন ধারার উন্নয়ন থেকে বের হয়ে আসুন। কোন বাস নেই? সবগুলো জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে? আপনাদের অর্থহীন প্রতিক্রিয়া বন্ধ করুন এবং বন্ধুরা সামান্য হাঁটুন, এটা আপনাদের জন্য মঙ্গল বয়ে আনবে। কালো এলাকায় ফিরে যান এবং জনতার মাঝে আগুণ ধরান। এটা অভিবাসীহীন একটি দিন। আপনাদের এইসব কাজ করার অধিকার রয়েছে।

তবে মার্চের প্রথম দিনেই কেন এই আয়োজন, যতদুর জানা যায়? এই বিষয় সম্পর্কে জানতে প্রচারপত্রে ফিরে যাওয়া যাক:

Le 1er mars 2005 est entré en vigueur le «code de l'entrée et du séjour des étrangers et du droit d'asile» (CESEDA), plus communément appelé le code des étrangers. Cette loi symbolise une conception utilitariste de l’immigration, en d’autres termes, une immigration choisie sur critères économiques. Nous ne pouvions trouver de meilleur jour pour appeler à « une journée sans immigrés ».

২০০৫ সালের ১ লা মার্চের এই দিনটি নীতিগত ভাবে বিদেশীদের এ দেশে প্রবেশ এবং থাকা ও আশ্রয় নেবার অধিকার লাভের দিন। এই দিন থেকে তাদের এ সব অধিকার কার্যকর হওয়া শুরু হয়। এই আইন অভিবাসীদের প্রয়োজন প্রতীক হিসেবে বিবেচনা করে নেয়, অন্য কথায় বলা যায় এই দিন থেকে অভিবাসী ভিত্তিক অর্থনীতির গুরুত্ব স্বীকার করেন নেওয়া হয়। “অভিবাসীহীন” দিনের জন্য আমরা এর চেয়ে ভালো কোন দিন বেছে নিতে পারি না।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .