বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

নির্বাচিত লেখিকা: মারিনা রেশেটনিয়াক

গ্লোবাল ভয়েসেস এর রুশ ভাষাভাষী স্বাস্থ্য সম্পাদিকা হিসেবে মারিনা রেশেটনিয়াক তার বেশীর ভাগ সময় কাটান কিয়েভ ভিত্তিক রাইজিং ভয়েসেসের ক্ষুদ্র-অনুদান প্রাপ্ত প্রকল্প ড্রপ-ইন-সেন্টার (মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্র) এর সংবাদ সংগ্রহের জন্যে। রুশভাষী ব্লগ জগৎে স্বাস্থ্য বিষয়ক যে সমস্ত আলোচনা হয় সেগুলো নিয়েও তিনি গ্লোবাল ভয়েসেসে লেখেন। খুব সম্প্রতি সোয়াইন ফ্লু নিয়ে ইউক্রেনে যে উন্মাদনা শুরু হয়েছে সে বিষয়ে তিনি গ্লোবাল ভয়েসেস লিখেছেন। নীচের এই ভিডিওতে তিনি বর্ণনা করেছেন রাইজিং ভয়েসেস- এর অনুদানপ্রাপ্ত (ড্রপ ইন সেন্টারের) পাভেল কুটসেভের সাথে প্রথম সাক্ষাৎ -এর কথা। একই ভিডিওতে তিনি স্মরণ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের ডেলওয়ারে অবস্থান করার কথা।

ভিডিও সাক্ষাৎকারের প্রতিলিপি

আমার নাম মারিনা রেশেটনিয়াক। আমি ইউক্রেইনের ওডেসায় বাস করি।

ডেভিড: আপনি গ্লোবাল ভয়েসেসের জন্য কি কি কাজ করেন?

মারিনা: আমি রাইজিং ভয়েসেসের রুশ ভাষাভাষী স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদিকা। আমি বিশেষ করে ড্রপ-ইন সেন্টার নামক প্রকল্প নিয়ে লিখি। এই উদ্যোগ ইউক্রেইনের একদল লোককে এক সাথে করেছে, যারা ‘হার্ম রিডাকশন মুভমেন্ট’ (‘ক্ষতি কমিয়ে আনা আন্দোলন’) এর নেতৃত্ব দিচ্ছে। তারা মাদকাসক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে বাস করে তাদের কাজ করছে। এখানকার মাদকাসক্তরা এক বিকল্প এক চিকিৎসার মধ্যে রয়েছে, যাতে তারা প্রতিদিনের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার জন্য মিথাডোন (হিরোইন সেবীদের নেশা থেকে মুক্ত করার সময় ব্যথা কমানোর জন্য দেওয়া হয়) নিচ্ছে, এবং তাদের জীবনে যে সমস্ত সমস্যা রয়েছে সে সম্বন্ধে তারা ব্লগ করছে। এই সমস্ত ব্লগ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্তৃপক্ষকে তাদের সম্বন্ধে জানতে এবং তাদের কণ্ঠস্বর তুলে ধরতে সাহায্য করছে। আর আমি, এই সমস্ত সংবাদ সংগ্রহ করছি।

ডেভিড: আজ, প্রথমবার ড্রপ-ইন-সেন্টারে আপনি পাভেলের সাথে সাক্ষাৎ করেছেন… তার ব্লগের লেখা আপনি প্রায় এক বছর ধরে অনুবাদ করছেন, তাই না? অনলাইনে তার সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখার পর সরাসরি তার সাথে প্রথমবার দেখা করার আলাদা কি কোন তাৎপর্য রয়েছে?

মারিনা: বিস্ময়কর ভাবে, যখন আমি তার সাথে দেখা করলাম, আমি সেই ব্যক্তির সাথে সাক্ষাৎ করলাম, যার সাথে আমি অনেকদিন ধরে দেখা করতে চাইছিলাম। আমার মনে হয়েছিল, সে যা লেখে তা পড়ার পর আমি তাকে খুব ভালোভাবে জানতে পেরেছিলাম। সাক্ষাৎ-এর সময় মনে হয়েছে, আমি যেন আমার পুরোনো এক বন্ধুর সাথে দেখা করতে এসেছি। আমি গণ প্রশাসন বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নেবার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের ডেলওয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই বছর কাটাই। সেই দুই বছর আমি চমৎকার এক এলাকা ডেলওয়ারে কাটিয়েছি, এলাকাটিকে আমি অনেকবার স্মরণ করি। এছাড়া ইন্টার্নি করার সময় তিন মাস আমি ওয়াশিংটন ডি.সিতে কাটিয়েছি এবং আমি সেই জায়গাটিকেও খুব পছন্দ করি।

ডেভিড: যখন আপনি আমেরিকায় বাস করতেন তখন ইউক্রেইনের প্রতি আমেরিকার কি কি ধরনের মনোভাব ছিল?

মারিনা: তাদের ধারণা ছিল যে দেশটি খুব ঠাণ্ডা। আমি জানি না কেন, কিন্তু সেখানে সবাই ভাবে যে ইউক্রেইনে খুব শীত পড়ে।

ডেভিড: আসলেই কি এটা খুব ঠাণ্ডা এলাকা!

মারিনা: অনেক শিক্ষিত ব্যক্তি….আমাকে জিজ্ঞাসা করে, আমি কি উত্তরের আলোকচ্ছটা দেখেছি কিনা। না, আমি দেখি নি। আমি ওডেসায় বাস করি। শহরটা সত্যি উষ্ণ এবং এই শহরের সুন্দর সব সমুদ্র তীর রয়েছে। হ্যাঁ, তারা ইউক্রেইন সম্বন্ধে কেবল একটা বিষয় জানে যে, দেশটি খুবই ঠাণ্ডা। কিন্তু আমি আমার সর্বোত্তর শক্তি দিয়ে তাদের বলি যে ইউক্রেইন একটা সুন্দর দেশ, যে দেশ অজস্র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যে পরিপূর্ণ।

ডেভিড: গ্লোবাল ভয়েসেস সম্বন্ধে আপনার ধারণা কি?

মারিনা: এটা আসলে একটা চমৎকার উদ্যোগ। এটা সত্যি এক চমৎকার অনুভূতি যে একই কাজ করতে গিয়ে সারা বিশ্বের প্রায় ২০০ জনেরও বেশী লেখকের সাথে এখানে এক যোগাযোগ তৈরি হয় এবং সেই দলের একটি অংশ হতে পারে আমি সত্যিই গর্বিত। এটা আমার কাছে অনেক কিছু।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .