বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকা: এইচ১এন১, প্রতিষেধক টিকা ও ষড়যন্ত্র তত্ত্ব

বিশ্বের অনেক দেশে এইচ১এন১ বা সোয়াইন ফ্লুর বিস্তার রোধে প্রতিষেধক টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে। যখন এই রোগে আক্রান্তদের সংখ্যা বাড়ছে, তখন এই রোগ নিয়ে অনলাইনেও গুঞ্জন বাড়ছে।

সৌদি আরব এ বছরের হজ মৌসুমের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে। সে সময় সারা বিশ্বের লক্ষ লক্ষ মুসলিম মক্কায় হজ করতে আসবে। ক্রসরোড অফ এরাবিয়া ব্লগের জন বার্জেস লিখেছেন:

আর মাত্র কয়েক সপ্তাহ পরেই হজ শুরু হতে যাচ্ছে। সে সময় সৌদি আরবে সোয়াইন ফ্লুর প্রাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা তৈরি হতে যাচ্ছে। সৌদি গেজেট্টে জানাচ্ছে যে, সৌদই আরবের জরুরী অবস্থা পর্যবেক্ষণকারী বিশেষজ্ঞরা এক বিশেষ সভায় বসেছিলেন, যাতে সোয়াইন ফ্লু নিয়ে যে পরিকল্পনা, সেটি বাস্তবায়ন করা যায়। প্রবন্ধটি জানাচ্ছে, সৌদি আরবের সকল এলাকার মধ্যে মক্কা ও মদিনার লোকজনকে প্রথমে সোয়াইন ফ্লুর টিকা নিতে অনুরোধ জানানো হবে। এই উদ্যোগ এ রোগের দ্রুত ছড়িয়ে পড়া রোধ করতে সহায়তা করবে।

তুরস্কের লোকদের কাছে পরিস্থিতি এতটা স্পষ্ট নয়। তুরস্কের ব্লগার এরকান স্বীকার করে নিয়েছেন যে এর আগে সেখানে ছড়িয়ে পড়া ব্যাপক মহামারীর সময় তিনি অনেক ভীত ছিলেন:

এক মুহূর্ত উদ্বিগ্ন হবার মত সময় আমার নেই। আমি জানি না কেন, আমি ‘ক্রিমেন কঙ্গো হেমেরেজিক ফ্লু’ বা ‘বার্ড ফ্লু’ নিয়ে বেশ শঙ্কিত ছিলাম।
তবে সোয়াইন ফ্লু নিয়ে ইস্তাম্বুলে সামান্য উদ্বিগ্নতা দেখা যাচ্ছে। এখানে ভালো লক্ষণ এই যে, জনতা সরকারের নির্দেশ পালন করছে এবং যতটা পারছে সতর্কতা অবলম্বন করছে। তারা সব কিছু ভাগ্যের উপর ছেড়ে দেবার দলে নয় এবং তারা আমার থেকে আলাদা নয়।

ইতোমধ্যে মেমরিজ ডকুমেন্টেড-ব্লগে জর্ডানের কুইডার আমাদের একটি ষড়যন্ত্র তত্ত্বের কথা জানাচ্ছেন:

আমার এক বান্ধবী বিশ্বাস করেন যে জর্ডানের ওষুধ কোম্পানীগুলো একটি ষড়যন্ত্রের সাথে জড়িত। সে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যুক্তি প্রদর্শন করেছে প্রতিষেধকগুলো আসলে কতটা খারাপ, এবং কি ভাবে কোম্পানীগুলো ইচ্ছাকৃতভাবে এই মানব প্রজাতির সংখ্যা কমিয়ে আনার কাজের সাথে জড়িয়ে রয়েছে। তারা তরুণ, দুর্বল এবং অসুস্থদের এই পৃথিবী থেকে বিদায় করে দিচ্ছে। আর এর মধ্যে দিয়ে পৃথিবীর জনসংখ্যা কমিয়ে আনছে।

তিনি এর সাথে আরো যোগ করেন:

আমি মনে করি লোকজন ভয় পেয়েছে এবং যখন তারা ভয় পায়, তখন তারা এক শয়তান সৃষ্টি করে এবং তারা ভয় পায় ও নিজেদের ভয়ের দ্বারা সৃষ্ট হুমকির মুখে ফেলে দেয়। যখন লোকজন ভীত হয়ে পড়ে, তখন তারা অনেক নিয়মের বেড়াজালে নিজেদের আটকাতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে।

কিন্তু জীবাণুরও একজন মানুষ প্রয়োজন নিয়মিতভাবে সুস্থ হবার জন্য….

আমি নিশ্চিত নই, কিন্তু আমি বিজ্ঞানে বিশ্বাস করি….সত্যিই আমি তা বিশ্বাস করি, যতই তারা আমাকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করুক না কেন, আমি ডাক্তার ও ফার্মাসিস্টদের কাছ থেকে ষড়যন্ত্র তত্ত্বের বিষয়টি সম্বন্ধে শুনতে চাই ।

দি ভিউ ফ্রম ফেজ মরোক্কোর একজন ব্লগার। তিনি এইচ১এন১ সম্বন্ধে নিম্নলিখিত তাজা সংবাদ জানাচ্ছেন:

মরোক্কোর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে কাসাব্লাঙ্কা, তানজের, মারাকেশ, ফেজ, বেনসালিমানে, অজুদা এবং মেকনেস শহরের বেয়াল্লিশ জন ব্যক্তি নতুন করে এইচ১এন১ রোগে আক্রান্ত হয়েছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানাচ্ছে, মরোক্কোতে মোট সোয়াইন ফ্লু আক্রান্তের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৫৯২ জনে, যার মধ্যে ২৯৭ জন স্কুলের ছাত্রছাত্রী।

মন্ত্রণালয় বলছে, সকল রোগীকে ঘরের মধ্যে রাখা হয়েছে, যাতে তাদের ঠিকমতো যত্ন নেওয়া যায়, এবং এর সাথে সাথে তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে। তারা বলছে, এই সমস্ত রোগীদের মধ্যে কারো অবস্থাই তেমন জটিল নয়। এই রোগে আক্রান্ত হয়ে মরোক্কোতে কেউ মারা যায় নি।

রোগটি সম্বন্ধে সহজ এক পর্যবেক্ষণ করেছেন জর্ডানের হারেগা। তিনি লিখেছেন:

আমি বুঝতে পারি এইচ১এন১ কতটা বিপজ্জনক, কিন্তু যদি আপনি প্রতিদিন ৩ প্যাকেট সিগারেট খান অথবা মানসাফের জিনারোমাস সেডার (ভাত দিয়ে তৈরি জর্ডানের বিশেষ খাবার) খান তা হলে আপনাকে আর এইচ১এন১ নিয়ে শঙ্কিত হতে হবে না, এইচ১এন১ রোগটি আপনাকে ধরার আগেই ভিন্ন কিছু রোগ আপনাকে দ্রুত ধরে ফেলবে।

একই পোস্টে হারেগা আরো যোগ করেছেন:

যতদূর জানা যায় জর্ডানের সাত জন নাগরিক এইচ১এন১ রোগে মৃত্যুবরণ করেছে। এর চেয়ে দশগুণ বেশি লোক মারা যায় যখন সংযুক্ত আরব আমিরাতের কাছে জর্ডানের ফুটবল দল ৩-১ গোলে হেরে যায়। কোন টি বেশি প্রয়োজন তা আমাদের আগে নির্ধারণ করা উচিত। সোয়াইন ফ্লুর প্রতিষেধক টিকা দেবার আগে জর্ডানের জাতীয় ফুটবল দলকে জেলে পাঠানো উচিত।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .