বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

লেবানন: আমরা এখানে, আমরা সমকামী, আমরা অনলাইনে

bekhoos-screenshot-211x300বেকহোসস অনলাইনের একটি পত্রিকা যা আরব জগৎের [সমকামী] যৌনতার মতো বিষয়কে তুলে আনে। এই পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা লেবাননের দল মীম। তারা মহিলা সমকামী, উভকামী, ভিন্ন বা অস্বাভাবিক ব্যক্তিত্ব, যে সমস্ত মেয়েদের উপর প্রশ্ন তোলা হয় এবং লিঙ্গ পরিবর্তনকারী ব্যক্তিদের সাহায্য করে থাকে। সম্প্রতি বেকহোসস পুনরায় প্রকাশিত হচ্ছে এবং এখন থেকে পত্রিকাটি প্রতি সপ্তাহে প্রকাশিত হবে।

বেকহোসস মানে হচ্ছে জানা বা উদ্বিগ্ন হওয়া… এবং প্রতি সপ্তাহের তার একটি ভিন্ন বিষয়ের উল্লেখ থাকে, এবং সেখানে সংবাদ এ মতামত থাকে। বেকহোসসে থাকবে কবিতা, গল্প, এবং ব্যক্তিগত ঘটনার গল্প, আরব বিশ্বের অনেক সময় অস্বাভাবিক এবং লিঙ্গ পরিবর্তনকারীর পরিচয়ের উপর গউরুত্ব প্রদান করে থাকে। এটি এখন অনেক তদন্ত মূলক সংবাদ পরিকল্পনা করেছে।

এর অন্যতম এক সম্পাদক নাদজ, তিনি পত্রিকাটি পুনরায় চালু করার বিষয়টি ব্যাখ্যা করেন:

এটা নতুন এক বেকহোসস, প্রায় একটি বছর চুপচাপ থাকার পর আমরা আবার পত্রিকা বের করা শুরু করেছি (এর আগে শেষ যে সংখ্যাটি বের হয়েছিল তা ২০০৮ সালের ডিসেম্বর মাসে), এখন উভয়ের মধ্যে পার্থক্য কোথায়? একটা বিষয়ে পার্থক্য রয়েছে, এখন এই পত্রিকাটি প্রতি সপ্তাহে বের হবে।[…] বেকহোসস.কম কাগজের পত্রিকার বদলে তা অনলাইনে ছাপা শুরু হয়েছে। আমরা জানি যে আমরা ছাপার অক্ষরে এই পত্রিকা বের করতে পারব না, কারণ এর মালিকানা স্বত্ব কেনার জন্য আমাদের প্রচুর পরিমাণ টাকা প্রয়োজন এবং ছাপার ক্ষেত্রে বলা যায়, এটা মীমের গোপনীয় অবস্থানের সাথে যায় না। এখন সময়ের বাস্তবতায় (প্রায় দুই বছর আগে) বেকহোসস-এর অনলাইনে আগমন ছিল কাগজের পত্রিকার প্রতি স্থাপন এবং আজকে এবং যেভাবে তথ্য সবার সাথে ভাগাভাগি করে নেওয়া হচ্ছে তার বিবর্তন ঘটেছে, এটা আমার কাছে পরিষ্কার যে বেকহোসস অনলাইনে ভালো মানায়, এ কারণেই লেবাননের তরুণ সমকামী সম্প্রদায় তথ্য, যোগাযোগ এবং সমর্থনের জন্য এখানে প্রবেশ করছে। কাজেই আমাদের উপর দায়িত্ব বর্তায় তথ্য সঠিক সময়ে সঠিক ভাবে এবং ধারাবাহিক ভাবে প্রদান করতে থাকা।

নাদজ বলেই চলেছেন:

এই যুগে, কেউ বলে ওহ, লেবাননে পুরুষ সমকামী দল রয়েছে, যা বেশ আকর্ষণীয় বিষয়” এই ভাবনার যুগ পার হয়ে গেছে। এটা এখন আর কোন আকর্ষণীয় বিষয় নয়। এখন সময় এসেছে আমাদের নিজেদের সমাজের সাথে নিজেদের যুক্ত কর, বিশ্লেষণাত্বক চিন্তা করা, রাজনৈতিকভাবে অগ্রসর হওয়া চাপ সম্বন্ধে সত্যিকারে উপলব্ধি লাভ করা, সৃষ্টি করা, অনুসন্ধান করা, সক্রিয় হওয়া, লেখা, লেখা, লেখা! সমকামী সম্প্রদায়ের সবসময় অনলাইনে এক শক্তিশালী উপস্থিতি ছিল-যখন লোকজন একে আইসিটি [ইনফরমেশন এন্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি বা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি হিসেবে বিবেচনা করত] “সামাজিক পরিবর্তন” ও “সামাজিক যোগাযোগের” জন্য। এর কারণ ছিল আমাদের কাছে বিকল্প কোন পদ্ধতি ছিল না। এ কারণেই আমরা এমআইআরসি-এ ওয়েবসাইট ও চ্যাটরুম তৈরি করেছি। এরপর আমরা ব্লগারে পরিণত হয়েছি। এরপর আমরা মাই স্পেস এ এসেছি এবং ফেসবুক গ্রুপ ও কজ তৈরি করেছি। এরপর আমরা ইউটিউব চ্যানেলে কাজ শুরু করেছি। এখন আমরা টুইটার করছি এবং ধারণা করুন, এখন বিশ্ব আমাদের পাশে রয়েছে এবং যখন প্রচার মাধ্যম অনলাইনে আসতে শুরু করে, তারা সেখানে প্রবেশ করে যেখানে আমরা শক্তিশালী, পরিমাণে অসংখ্য এবং অসম সাহসী। তারা সেখানেই আসছে যেখানে তরুণ প্রজন্ম রয়েছে এবং বলা যায় এই অংশটি সবচেয়ে সেরা নয়, কারণ, এরা পুরোনো প্রজন্মকে ত্যাগ করেছে, কারণ তারা সেই মানুষদের ত্যাগ করেছে, যারা ইন্টারনেট অথবা কম্পিউটার ব্যবহার করার মতো অর্থ বান নয়, এটা আমার মাকে পরিত্যাগ করেছে। কিন্তু তারা সেখানে পৌঁছানোর মত অবস্থায় রয়েছে। অনেক এখন এর মূল্য প্রদান করতে সক্ষম, এটি এখন অনেক বেশি আরবীয় এবং অনেক বেশি বিস্তৃত। বর্তমানে মধ্য প্রাচ্যের নেটে প্রতিমাসে প্রায় ৫০০,০০০ টি ইন্টারনেট যুক্ত হচ্ছে, যার মানে বছরে প্রায় ৬ মিলিয়ান লোক ইন্টারনেটের সাথে যুক্ত হচ্ছে। যদি অনলাইনের সব জায়গায় সমকামী সম্প্রদায় থাকে তাহলে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা কোথাও না কোথাও আমাদের সাইটের সাথে পরিচিত হবে। আমরা যা বলবো তারা তা শুনতে বাধ্য হবে।

সম্প্রতি বেকহোসস-এ এক প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে যার শিরোনাম, “লেবাননের মহিলা সমকামীদের স্বাস্থ্য সচেতনতা বাড়ানোর পাঁচটি কারণ”:

লেবাননের মহিলা সমকামী ও উভয়কামী মহিলার দেশটির স্বাস্থ্য সেবা থেকে বিচ্ছিন্ন রয়েছে। স্বাস্থ্য সেবা পাওয়ার ক্ষেত্রে যে বাঁধা রয়েছে তার ফলে এখানকার মহিলা সমকামীরা বাজে মানসিক ও শারীরিক স্বাস্থ্যের শিকার হতে পারে। […] সমকামীদের প্রতি সংস্কার ও ঘৃণা লেবাননে এক ধরনের রোগের মতো। নিজের ডাক্তারের কাছে যাওয়া, এমনকি যদিও তা প্রয়োজনীয় কিন্তু তা চ্যালেঞ্জের বিষয় […]। মহিলা সমকামীদের ক্ষেত্রে যথাযথ প্রশিক্ষণের অভাব রয়েছে। চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় ও গৃহে সমকামীতে বিষয়ে সাধারণ প্রশিক্ষণের অভাব বিপজ্জনক মাত্রায় সমকামী স্বাস্থ্য সচেতনতা সম্বন্ধে ধারণা দিতে ব্যর্থ হয়। লেবাননে সমকামীতা সম্বন্ধে ভ্রান্ত ধারণা এবং গোঁড়ামি রয়ে গেছে। […] এখানকার অনেক চিকিৎসক বিশ্বাস করে মেয়েদের সমকামিতা এক ধরনের মানসিক রোগ। যদি এখন থেকে ১৫ বছর আগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা তার মানসিক রোগের তালিকা থেকে মহিলা সমকামিতার নাম কেটে দিয়েছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .