বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ওমান: এলোপাতাড়িভাবে ইন্টারনেট সাইট বন্ধ করা

omantel অন্যান্য প্রতিবেশী দেশের সাথে তুলনা করলে ওমানের ইন্টারনেট সরকার দ্বারা খুব কমই সেন্সর বা নিয়ন্ত্রণ করা হয়। যে সমস্ত ওয়েবসাইট সরকারের সমালোচনা করে সেগুলোও খুব কমই নিয়ন্ত্রণ বা বন্ধ করা হয়।

এখানে এমন অনেক ব্লগ এবং ফোরাম রয়েছে, যারা সরকারের অনেক দলিল প্রকাশ করে এবং সরকারী উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের নিন্দা করে। তবে, এখন সরকার অনেক ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করে। এ ধরনের লেখকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবার জন্য আইনী পদ্ধতি তারা গ্রহণ করে, যদি লেখক ওমানের বাসিন্দা হয়ে থাকে। এ ক্ষেত্রে সরকার দেশটির অপরাধ আইন এবং বিতর্কিত ওমানি টেলিকমিউনিকেশন আইনের সাহায্য নিয়ে থাকে। তবে ওমান মত প্রকাশের স্বাধীনতার নিশ্চয়তা প্রদান করে। ইউটিউব, ফেসবুক এবং টুইটার এর মতো ওয়েবসাইট ওমানে কখনও বন্ধ করা হয় নি।

কিন্তু, ওমানের সেন্সরশীপ নিয়ে আমরা ভিন্ন এক ধরনের সমস্যায় পড়ি। এখানে সেন্সরশীপের বিষয়টি একটি সরকারি প্রতিষ্ঠান দেখাশুনা করে। প্রতিষ্ঠানটির নাম ওমানটেল। মানব বা যন্ত্রের ভুলে- যা আমরা ঠিক জানি না- প্রায়শ:ই এই প্রতিষ্ঠান ইচ্ছে মতো ওয়েবসাইট বন্ধ করে দেয়। যদিও প্রথমে শুনে মনে হয়, এটা খুব সামান্য একটা ত্রুটি, কিন্তু সেন্সরশীপ বিভাগের ব্ল্যাকবক্সের স্বভাবের কারণে একবার যদি একটা ওয়েবসাইট বন্ধ হয়ে যায়, তা হলে তা খোলা যেন রাতের এক দু:স্বপ্নের মত।

দুই মাস আগে, আমি আবিষ্কার করি ওমানের আইটি আইনের উপর যে ব্লগ আমি চালু করেছিলাম, সেটিকে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এই ওয়েব সাইটটি আবার চালু করতে দুই মাস সময় নিয়েছে। তার আগে আমাকে টেলিকমিউনিকেশন কর্তৃপক্ষের কাছে ওয়েবসাইট আবার চালুর জন্য অভিযোগ করতে হয়েছে।

ওয়েব সাইট বন্ধ করে দেবার ফলে আমার কেবল পুরো মাসের ট্রাফ্রিকিং বা প্রবেশ বন্ধ হয়েছে এবং আমাকে মাসের ওয়েব হোস্টিং বা ওয়েব সাইটে জায়গা কেনার বিল ভরতে হয়েছে। কিন্তু ভুল ক্রমে গুগলের সার্ভিস, যেমন জিমেইল, ব্লগার এবং স্কলার একদিনের বেশি বন্ধ করা হয়েছিল, ফলে তা লোকজনের জীবনের উপর এক গুরুতর প্রভাব তৈরি করেছিল।

সম্প্রতি মনে হচ্ছে, ওমান টেলিকমের এ রকম ভুল করে কিছু ওয়েবসাইট বন্ধ করার পদ্ধতি বন্ধ করার জন্য ওমানটেলকে দায়ী করার উপায় নেই, ওমান টেলিকম রেগুলেশন কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করার ছাড়া। অভিযোগ করার পর তারা ওমানটেলকে আদেশ দেবে এই সাইটটি আবার চালু করার জন্য। এ সব বিষয় এবং সেন্সরশীপ/নিয়ন্ত্রণের ভবিষ্যৎ এখনো অজানা, যদি দ্বিতীয় কোন তারযুক্ত ইন্টারনেট কোম্পানী এখানে কাজ করা শুরু করে, তখন আশা করি পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি ঘটবে।

তবে, যদিও বিষয়টি ভিন্ন গুরুত্ব বহন করে, বলা দরকার যে ওমানে গ্লোবাল ভয়েসেস-এর নিজস্ব বাংলা পোর্টাল এখন বন্ধ হয়ে রয়েছে। সম্ভবত ভুল করে এটিকে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আমি ইতোমধ্যে ওমানটেলকে, গ্লোবাল ভয়েসেসের বাংলা বিভাগটি খুলে দিতে বলেছি, কিন্তু কোন ধারণা নেই এটা খুলতে কতদিন সময় লাগবে। যদি আদৌ তা খুলে দেওয়া হয়!

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .