বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইন্দোনেশিয়াতে সন্ত্রাস দমন

গত ৮ই আগস্ট ইন্দোনেশিয়ার টেলিভিশনে এক রিপোর্ট দেখিয়েছিল জাভা দ্বীপের মধ্যভাগে অবস্থিত শহরতলী তেমানংগুং শহরে সন্ত্রাস বিরোধী ইউনিট দেন্সাস ৮৮ এবং পুলিশ বাহিনীর সাথে আর একদল মানুষের মধ্যে বন্দুক যুদ্ধ। সেই সম্ভাব্য দলটি হচ্ছে শীর্ষ সন্ত্রাসী নুরুদ্দিন মোহাম্মাদ টপ আর তার সাঙ্গপাঙ্গরা এবং তাদেরই চারিদিকে খোঁজা হচ্ছে । মালয়েশিয়ার নাগরিক নুরুদ্দিন টপ বালি দ্বীপের বিনোদন কুঞ্জে আর সম্প্রতি জাকার্তায় দুটি বিস্ফোরণের জন্যে দায়ী বলে মনে করা হয়।

নুরুদ্দিন জাভার আশপাশে যাযাবরের মতো অনেক বছর ধরে আছে আর আত্মঘাতী বোমা হামলাকারীদের নিয়োগ করেছে, যাদের একজন ছিল ১৮ বছরের দানি দেউ পেরমানা, যে গত মাসে জে ডাব্লু ম্যারিয়ট হোটেলে বিস্ফোরণ ঘটিয়েছিল। দানি বিশ্বাস করত যে ইসলাম এখন বিশৃঙ্খলার মধ্যে আর কেবল জিহাদ এটা শুদ্ধ করতে পারে।

গোলাগুলির কয়েক দিন পরে, মিডিয়া জানায় যে সর্ব শেষ নিহত সন্ত্রাসী নুরুদ্দিন না, সে নুরুদ্দিনের সহমর্মী এবং জে ডাব্লু মেরিয়ট হোটেলের কর্মী ইব্রোহিম। সেই এই পাঁচ তারা হোটেলের ভেতরে বিস্ফোরক দ্রব্য পাচারে সাহায্য করে।

টি এন্ড পলিটিক্স ব্লগের এংরি ইনফিডেল বলেছেন:

খারাপ খবর: নিহত ব্যক্তি একজন ফল বিক্রেতা আর নুরুদ্দিনের অনুরাগী/সমর্থক

নুরুদ্দিন ভালো করে জানে পুলিশকে কিভাবে ফাঁকি দেয়া যায় আর তার সময় ব্যয় করছে তার সমর্থকদের নেটওয়ার্ক বাড়াতে। তারা এটাও মনে করেন যে সে একটা ‘পপ স্টারের’ মতো যা ব্যাখ্যা করে যে অন্য কোন লোক তার জায়গায় মরতে রাজি হয়ে যায় (আর অবশ্যই সম্ভাব্য মগজ ধোলাই করা যেমন তার সঙ্গীদের করে থাকে)। তার উপাখ্যান (আর এর ফলে সৃষ্ট তার অনুগ্রাহীরা) আর যারা বালি বোমা হামলার বিচার কার্যের সাথে যুক্ত ছিল তাদেরকে মেরে ফেলার সম্ভাবনা এখন বেড়ে গেছে: কোন বুদ্ধিমান সরকার তার নিহত হওয়া নিয়ে কোন কথা বলত না, যদি সম্ভাবনা থাকত (যদিও সেটা খুব কম) তার বন্দিত্ব থেকে পালানোর। বিশেষ করে নুরুদ্দিন এর আগে পুলিশের কাছ থেকে বার বার পালিয়েছে। আমরা জানতে পেরেছি প্রেসিডেন্ট সুসিলো বাম্ব্যাং ইয়োধোইয়োনো নুরুদ্দিনের হত্যা তালিকার শীর্ষে আছেন

অনলাইন সংবাদ পোর্টাল দেতিক অনুসারে, ইব্রোহিমকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছিল পশ্চিম জাভার চিকেসে প্রেসিডেন্ট সুসিলো বাম্ব্যাং ইয়োধোইয়োনোর বাসস্থানে হামলা চালানোর জন্য। ৩৬ বছরের চার বাচ্চার বাপ একই ইব্রোহিম গোয়েন্দা বিশেষজ্ঞ দ্বারা নুরুদ্দিনের ঘুমন্ত বাহিনী হিসেবে চিহ্নিত, যার মানে কাজ শেষ করার পরে সে সমাজে সোজা মিশে যেতে পারত।

ব্লগার পাতুং নুরুদ্দিনের সর্বোচ্চ সন্ত্রাসী সেলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস বিরোধী ইউনিট ৮৮ এর অভিযানের ম্যাপ পোস্ট করেছেন

পাতুঙ্গের পোস্টে পারভিতা মন্তব্য করেছেন:

একজন নুরুদ্দিন মারা গেলে, শত শত নুরুদ্দিন জন্ম নেয়। নুরুদ্দিন তার শিক্ষা ছড়িয়ে দিয়েছে। আমি অবাক হয়েছি যে পুলিশ আগস্টে বোমা হামলা করতে চাওয়া ব্যক্তিকে ধরতে সক্ষম হয়েছে। আমি আসলেই জানতে চাই এই আত্মঘাতি হামলাকারীর মাথায় কি আছে।

পাতুঙ্গের পোস্টে ওডিনিউস ও মন্তব্য করেছেন এই বলে:

ভালো নিষ্কৃতি। দুর্ভাগ্য বশত: চরমপন্থী শূকর, যেসব ভেড়া তাদেরকে অনুসরণ করে, আর যেসব বেজী তাদেরকে জনসম্মুখে সমর্থন করে সম্ভবত যে কাউকে বোমা আক্রমণের জন্য দায়ী করবে। যে কোন যৌক্তিক মানুষ, এই সিদ্ধান্ত নেবে যে এটা ইন্দোনেশিয়ার ভিতরের ইসলামের সমস্যা, আর ইন্দোনেশিয়ার মুসলিম দ্বারা অনেকাংশে এটার প্রতিকার করতে হবে। এটাই হয়েছে। অমুসলিম ইন্দোনেশিয়ানদের ভূমিকা ছোট বা পাশ কাটিয়ে না দেখে, বা বাইরের সরকার কর্তৃক ইন্দোনেশিয়াকে ইন্টেলিজেন্স আর দেন্সাস ৮৮ বাহিনীর জন্য অর্থ দিয়ে। কিন্তু সরকারের ক্ষমতা রাজনীতির বাইরে বেরিয়ে গিয়ে এদের কে ধরা মূলতঃ বোমা আক্রমণের সাধারণ ঘৃণার ধারণার সাথে সম্পর্কিত আর ইসলামের যে বিকৃত রূপ এরা তুলে ধরে। জুলাই থেকে যতটা দেখা যাচ্ছে এটা প্রথম দিকের বোমা হামলায় দেখা যেত না।

টুইটারের মাধ্যমে, মানুষ পুলিশ আর দেন্সাস ৮৮ বাহিনীর প্রাপ্তিতে তাদের সন্তুষ্টি জানিয়েছেন।

নুরুদ্দিনটপ হোক বা না হোক, আমরা তোমাদের সাফল্যে গর্বিত দেন্সাস ৮৮ বাহিনী। বিশেষ করে বেকাসীর অভিযানের জন্যে। @ইয়াংমাওলানা

tweet

এটা ইব্রোহিম ছিল, নুরুদ্দিন না। ইন্দোনেশিয়ার পুলিস আর দেন্সাস ৮৮ কে সাধুবাদ, যারা ইন্দোনেশিয়াতে সন্ত্রাসবাদ দমনে বড় পদক্ষেপ নিয়েছেন।

প্রেসিডেন্ট সুসিলো বাম্বাং ইয়োধোইয়োনো স্বাধীনতা দিবসের আগে দেয়া তার ভাষণে জাতীয় পুলিশ বাহিনীর সাহসিকতার প্রশংসা করেছেন।

Pada kesempatan yang baik ini, saya sampaikan terima kasih dan penghargaan yang tinggi kepada segenap jajaran Kepolisian Negara Republik Indonesia yang tidak kenal lelah dan menyerah dalam memberantas terorisme di tanah air. Saya minta, aparat kepolisian dan jajaran aparat keamanan lainnya untuk tidak pernah lengah. Terus tingkatkan kewaspadaan, serta cegah dan berantas aksi teror hingga ke akar-akarnya, di manapun mereka berada, siapapun mereka, dan apapun motivasinya.

এই চমৎকার সুযোগে, আমি আমার কৃতজ্ঞতা আর সর্বোচ্চ সম্মান জানাতে চাই ইন্দোনেশিয়া প্রজাতন্ত্রের পুলিশ বাহিনীকে তাদের ক্লান্তি হীন চেষ্টা আর আমাদের মাতৃভূমিতে সন্ত্রাসবাদের কাজ শেষ করতে তাদের সাহসের জন্য। আমি পুলিস আর অন্যান্য জাতীয় নিরাপত্তা বাহিনীকে অনুরোধ করেছি তাদের সতর্কতা কখনো না কমানোর জন্য। সতর্ক থাকুন আর সন্ত্রাসবাদের কারণ গোঁড়াতে শেষ করতে আর থামাতে চেষ্টা করুন, যেখানেই সেটা থাকুক, যারাই তারা হোক আর তাদের উদ্দেশ্য যাই হোক।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .