বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

বলিভিয়া: সেন্ট. রোশ এর ভোজ উৎসবে কুকুরকে সম্মান প্রদর্শন করা

প্রতি বছরের ১৬ই আগস্ট বলিভিয়ার প্রতিটি গৃহে সেইন্ট রোশ (অথবা স্প্যানিশ হিসেবে সান রকে) উৎসব পালন করা হয়। সেইন্ট রোশ এমন এক সাধু ছিলেন যিনি কুকুরদের পৃষ্ঠপোষকতা করতেন। এই ফরাসী সাধুর কথা বলিভিয়ার সারা দেশের সবাই হয়তো ভালো মত জানে না, কিন্তু এই উৎসবের দিনে বলিভিয়ানরা তাদের গৃহপালিত পশু ও পাখীর বিশেষ যত্ন নিতে ভুলে না।

যদিও একটা কুকুরের জীবন সবসময় এত সহজ নয়, যেমনটা একজন ব্লগার তার পাঠকদের মনে করিয়ে দেন। এল আলটো নোটিসিয়ার [স্প্যানিশ ভাষায়] আলবার্তো মেদরানো লিখেছেন যে, আমাদের ভুলে যাওয়া উচিত নয় যে এল আল্টো ও লা পাজের রাস্তায় অনেক বেওয়ারিস কুকুর ঘুরে বেড়ায়; তারা অসুস্থ এবং যে কোন সময় দেহত্যাগ করতে পারে।

সারা দেশে অনেক কুকুর রয়েছে যারা তাদের মালিকের ভালোবাসায় প্রতিপালিত হয় এবং এই দিনটিতে ব্লগাররা নাগরিক মিডিয়ার মাধ্যমে তাদের এ ধরনের ভালোবাসা প্রকাশের সুযোগ নিয়ে থাকে। যাই হোক, উৎসবের শুরুতে লা পাজের আর্চবিশপ বা প্রধান যাজকের ব্লগ এই সাধুর জীবন নিয়ে কিছু তথ্য সরবরাহ করেছে

Seguro que tus padres o tus abuelos te habrán ya contado la preciosa narración del perro de San Roque. Si te fijas en la estampa, nuestro santo va acompañado de un simpático chucho. ¿Quien fue este perro?. Pues … fue su salvador. Cuando hoy en día, sobre todo en verano, se abandonan por las calles tantos perros que nos han mostrado su cariño a lo largo del año, bueno será explicarles a aquellos que hacen este tipo de salvajadas la historia de este animal que le salvó la vida a un santo tan importante como fue Roque.

Se explica, que cuando nuestro santo se trasladó al bosque para no infectar de esta manera a los vecinos de Piacenza, recibía cada día la visita de un perro que le llevaba un panecillo. El animalito lo tomaba cada día de la mesa de su amo, un hombre bien acomodado llamado Gottardo Pallastrelli, el cuál, después de ver la escena repetidamente, decidió un día seguir a su mascota. De esta forma, penetró en el bosque donde encontró al pobre moribundo. (…) Cabe decir que otras versiones populares afirman que fue el mismo perro quien le curó, después de lamerle la herida de su pierna varias veces cuando el santo estaba en el bosque.

নিশ্চিতভাবে বলা যায় আপনার বাবা-মা বা দাদা-দাদী আপনাকে সেইন্ট রোশের কুকুর সম্বন্ধে মূল্যবান গল্প বলেছে। যদি এর দিকে তাকান তাহলে দেখবেন আমাদের এই সাধুর এ চমৎকার এক কুকুর সঙ্গী ছিল। এই কুকুরের পেছনে কি গল্প রয়েছে? ঠিক আছে, এই কুকুর তার জীবন রক্ষা করেছিল। আজকের দিনে বিশেষ করে গরমের সময় রাস্তার যে সমস্ত কুকুরদের প্রতি দয়া প্রদর্শন করা হয় সারা বছর তা অনুপস্থিত থাকে। এটা খুব ভালো হবে যদি যে সমস্ত লোকেরা কুকুরদের প্রতি বর্বর আচরণ করে তাদেরকে বিষয়টি খুলে বলা যায়, যে এমন এক প্রাণীর গল্প যে কিনা এক গুরুত্বপূর্ণ সাধু সেইন্ট রোশের মত ব্যক্তির জীবন বাঁচিয়েছিল।

গল্পে যে ভাবে রয়েছে তাতে জানা যাচ্ছে যে, আমাদের এই সাধু রোগাক্রান্ত শরীরে বনে চলে যান, যাতে পিয়াসেন্জার বাসিন্দারা একই রোগে আক্রান্ত না হয়। সেখানে এক কুকুর প্রতিদিন তাকে দেখতে আসত। আসার সময় কুকুরটি তার মালিকের টেবিল থেকে নেয়া এক টুকরো রুটি সাথে নিয়ে আসত। তার মালিক ছিল একজন ভালো মানুষ যার নাম নাম ছিল গোটার্ডো পালাসাট্রালি। তিনি তার কুকুরের প্রতিদিনের এই কাণ্ড দেখে কৌতূহলী হলেন। তিনি সিদ্ধান্ত নিলেন তার এই পোষা কুকুরটিকে তিনি অনুসরণ করবেন। এই ভাবে কুকুরটিকে নিয়ে তিনি বনে গেলেন এবং তারা মৃতপ্রায় মানুষটিকে আবিষ্কার করলেন (…)। এখানে উল্লেখ করা প্রয়োজন যে এর আরেকটি জনপ্রিয় সংস্করণ রয়েছে। এই গল্পে একই কুকুর বনের ভেতর সাধু ব্যাক্তিটিকে সুস্থ করেন তার রোগাক্রান্ত পা চেটে দিয়ে।

Photo of Tomoyo by Edwin Velásquez and used under a Creative Commons license.

Photo of Tomoyo by Edwin Velásquez and used under a Creative Commons license.

অনেক ব্লগার তার নিজস্ব পোষা প্রাণী সম্বন্ধে লেখার এই সুযোগ গ্রহণ করেছে এবং তাদের প্রভাব নিজের জীবনে কতখানি পড়েছে তা অন্য ব্লগারদের সাথে ভাগ করে নিয়েছে। এডুইন ভেলাসকুয়েজ তার কুকুর সম্বন্ধে লিখেছেন যার সঙ্গ সবসময় উপভোগ্য [স্প্যানিশ ভাষায়]।

Tomoyo, tenia otro nombre, otros dueños y otra vida. Tenía que ser sacrificada por sus anteriores dueños, porque estos tenían muchos perros y ya no podían cuidarlos a todos, al saber esto, mi padre la compro, y después me la regalo. Yo le puse un nuevo nombre, la bañe, le corte el pelo y le dí de comer. Tomoyo, estaba aterrorizada y por dos días no quiso comer, esto me preocupo mucho, pero con paciencia y cariño, Tomoyo, se adapto a su nueva vida.

টমোইয়র অন্য এক নাম, মালিক, এবং অন্য এক জীবন রয়েছে। এই মেয়ে কুকুরটিকে তার আগের মালিক আর রাখতে চাচ্ছিলো না, কারণ ইতিমধ্যে তাদের অনেক কুকুর হয়ে গিয়েছিল এবং তারা সবগুলোর যত্ন নিতে পারছিল না। এটা জানার পর আমার বাবা তাকে নিয়ে আসে এবং পরে আমাকে দিয়ে দেয়। আমি তার অন্য নাম দেই। তাকে গোসল করাই, তার চুল কেটে দেই এবং তাকে খাবার দেই। টমোইয় সে সময় আতঙ্কিত ছিল এবং দুই দিন সে কিছু খেতে চায়নি। এটা আমাকে উদ্বিগ্ন করে তোলে। তবে খানিকটা ধৈর্য্য আর যত্নে সে তার নতুন জীবনকে গ্রহণ করে।

অন্য আরেক ব্লগার মারিয়া ক্রিস্টিনা মেরোনো যে সান্টা ক্রুজের একজন, তিনিও তার কুকুর ডানিলোকে শুভেচ্ছা জানানোর সুযোগ গ্রহণ করেছেন। ভদ্রমহিলা এই দিনটিকে উদযাপন করার সেরা উপায় নিয়ে লিখেছেন।

Asi que hoy más que nunca hagan felices a sus mascotas con caminatas, buena comida, agua fresca y muchos mimos… porque los perros son los mejores amigos del hombre…

আজ যে কোন দিনের চেয়ে আপনার পোষা প্রাণীটিকে সুখী করার চেষ্টা করুন, তাকে হাঁটতে নিয়ে বের হোন, ভালো খাবার দিন, পরিস্কার পানি ও তার প্রতি অনেক মনোযোগ দিন… কারণ কুকুরা মানুষের সবেচেয়ে সেরা বন্ধু।

এছাড়াও তিনি নীচের এই ভিডিওটি যুক্ত করেছেন:

সবেশেষে, ইয়াকুইবা শহরের জোসে লুইস অনেক রাত ধরে সেইন্ট রোশের গল্প সমন্ধে গবেষণা করেন এবং লেখেন [স্প্যানিশ ভাষায়] যে (এই সম্মান লাভ করা কুকুর) এই উৎসব কেবল একদিন করার মতো বিষয় নিয়ে প্রশ্ন তৈরি করে না বরঞ্চ তা প্রতিদিন উদযাপন করার মতো প্রশ্ন তৈরী করে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .