বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ক্যারিবিয়ান: বোল্ট আবার তা করে দেখালো!

অলিম্পিকে ১০০ ও ২০০ মিটার দৌড়ে স্বর্ণ জয়ী এবং বিশ্বরেকর্ড ধারী জ্যামাইকার উসাইন বোল্ট অলিম্পিকের চেয়েও এক উন্নত ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শন করে গত সপ্তাহে বার্লিনে অনুষ্ঠিত আইএএএফ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশীপ প্রতিযোগিতায় জয় ছিনিয়ে নিয়েছে। ১০০ মিটার দৌড়ে ৯.৫৮ সেকেন্ড সময় নিয়ে বোল্ট নিজের গড়া পূর্বের রেকর্ড ভাঙ্গেন। আঞ্চলিক ব্লগাররা এর ফলে এক উৎসব মুখর ভাবে রয়েছে, বিশেষ করে জ্যামাইকার ব্লগাররা….

লাই, আনস্ক্রীপেটড, অন দ্যা রক, কোন রাখ ঢাক না করে বলেছেন:

আমি আনন্দে মুখরিত!

বেড়ে কাজ করেছ বোল্ট ও আসাফা, বজ্র বিদ্যুৎ বোল্ট ঝড়ো গতি তুলেছে এবং আসাফা [পাওয়েল, যে ৯.৮৪ সেকেন্ড সময় নিয়ে একই প্রতিযোগিতায় জ্যামাইকার জন্য ব্রোঞ্জ পদক এনে দিয়েছে] আমাদের দেখিয়ে দিয়েছ তোমরা কিসের তৈরি।

যে সমস্ত ক্যারিবিয়ান ক্রীড়াবিদ এই প্রতিযোগিতায় ভালো করছে তাদের সবার জন্য শুভেচ্ছা জমা রইল।

আবেং নিউজ ম্যাগাজিন এই জয় সম্বন্ধে লিখছে:

উসাইন বোল্ট উত্তেজনাকর ৯.৫৮ সেকেন্ডে ১০০ মিটার দৌড়ে বিশ্বরেকর্ড গড়ার মধ্যে দিয়ে রবিবার জ্যামাইকাকে আরো একবার উৎসব করার সুযোগ করে দিল, যদিও বর্তমানে জ্যামাইকা এক কঠিন অর্থনৈতিক দুরবস্থার মুখে রয়েছে।

দি ফিনিক্স ইন এ গ্যাস হাউস বলছে, এই বিশেষ অর্জন হারিয়ে যাবে না:

একদিন উসাইন বোল্ট এমন কাজ করবে যা সাধারণ মানুষ করে। সে তার চা ছলকে ফেলবে অথবা সে তার মুরগীর ভাজা টুকরো (নাগেট) ফেলে দেবে বা জুতোর ফিতের উপর দাঁড়াবে।

একদিন। এখন সে যা করছে, তা দিয়ে সবাইকে সে বিস্মিত ও বিমোহিত করে চলেছে।

এখন থেকে প্রায় ৭৩ বছর আগে একই অলিম্পিয়া স্টাডিয়ন স্টেডিয়ামে জেসি ওয়েন্স এক ক্রীড়া নৈপুণ্য প্রদর্শন করেন যা ক্রীড়া জগৎে এক ইতিহাস তৈরি করে। রবিবার রাতের আগে কারো পক্ষে ভাবা অসম্ভব ছিল যে দৌড়ে কি ঘটতে যাচ্ছে।

সেটা ছিল ৯.৫৮ সেকেন্ডের পূর্বের ঘটনা, সেটা ছিল উসাইন বোল্টের আগের কারো দৌড়।

ইতিহাসের সবচেয়ে সেরা ১০০ মিটার দৌড়? নি:সন্দেহে। সর্বকালের সেরা দৌড়বিদ? প্রশ্নাতীত ভাবে।

এদিকে গার্লস উইথ এ পারপাজ “এখনো অভিভূত… এক বিস্ময়কর বিস্ময়ে এবং শ্রদ্ধায়!”

স্টানার’স এফ্লিকশন যোগ করেছে:

আরো একবার এই মানুষটি পৃথিবীর সবচেয়ে দ্রুতগতিতে দৌড়ে প্রমাণ করল কেন তার উপাধি পেয়েছে যা সে অর্জন করেছে এক বিশেষ যোগ্যতায়।

ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর ব্লগাররাও তাদের দুইটি অর্জনের ব্যাপারে বলছে। ত্রিনিদাদ এন্ড টোবাগো নিউজ ব্লগ এই জয়কে বিস্ময়কর উপাধি দিয়েছে এবং টিটিগ্যাপারস.কম বলছে:

উসাইন বোল্ট আবার প্রমাণ করল এমন এক পৃথিবীতে সে দৌড়ায় যা তার একান্ত নিজের।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .