বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মিশরীয় নারীদের তালাকের ব্যাপারে নতুন দৃষ্টিভঙ্গী

মিশরীয় সমাজে তালাক সব সময়ে লজ্জার বিষয়। এখন পরিবর্তনের বাতাস এই দিকে বইছে।

ব্লগার শায়মা এল গাম্মাল একটি অনলাইন রেডিওর ব্যাপারে ব্লগ করেছেন যা তালাকপ্রাপ্তা নারীদেরকে উৎসর্গ করা। ‘আমি তালাক চাই’ ব্লগ আর রেডিও এর মালিক মাহাসেন সাবেরের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি লিখেছেন:

“بعد تجربة المدونة، وصلت إلى التفكير فى عمل إذاعة على النت، أولا لأننا نسمع أكثر ما نقرأ، وهذا معناه أننى سأصل بذلك إلى فئة أكبر عددياً، وشرائح عمرية وطبقية أوسع، والآن حان الوقت لتنفيذ الفكرة وسأبدأ بـ4 برامج رئيسية، هى: برنامج اسمه “يا مفهومين بالغلط يا إحنا” ويناقش أبرز ما تعانيه المطلقة مع الرجال فى المجتمع، سواء كانوا زملاء العمل أو الجيران، أو الأقارب ، فقد لاحظت أن الجميع وبدون فوارق علمية أو اجتماعية يشترك فى نظرة مفادها أن المطلقة سهلة، والطمع فيها كثير، ومن الممكن أن تسقط أخلاقياً بسهولة، كما أن الكلام عليها سهل وكثير، وبالتالى لابد من أن تضع رقيبا على نفسها، وتبقى دائماً فى موقف المدافع عن نفسه والمبرئ لساحته.
আমার ব্লগিং এর অভিজ্ঞতার পরে আমি অনলাইনে ব্রডকাস্টের সিদ্ধান্ত নেই; মানুষ পড়ার থেকে শুনতে পছন্দ করে আর এর ফলে আমি বয়স, সংখ্যা আর সামাজিক অবস্থানের দিক থেকে বেশি মানুষের কাছে পৌঁছাতে সমর্থ হব। আমি চারটা প্রধান অনুষ্ঠান দিয়ে শুরু করব; প্রথমটার নাম ‘ভুল বোঝা- আপনার একান্ত’ যেটা তালাকপ্রাপ্তাদের মূল সমস্যা নিয়ে কথা বলে যেটা তারা পুরুষ শাসিত সমাজে সম্মুখীন হন তা সহকর্মী, প্রতিবেশী বা আত্মীয় হোক। আমি লক্ষ্য করে দেখেছি যে তাদের সামাজিক বা শিক্ষাগত যোগ্যতা যাই থাকুক না কেন, পুরুষরা তালাকপ্রাপ্তাদের সম্পর্কে একই চিন্তা করে থাকেন- সহজ, লভ্য, অরক্ষিত, মানসিকভাবে ভঙ্গুর আর রটনার বিষয়বস্তু। এর ফলে তালাকপ্রাপ্তারা তাদের নিজের জেল রক্ষকে পরিণত হন কারন তিনি সবসময়ে দোষী অন্য কিছু প্রমানিত না হওয়া পর্যন্ত।

ইউয়োম৭ সংবাদপত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে হায়াত দ্বিতীয় প্রোগ্রাম সম্পর্কে বলেছে:

أما البرنامج الثانى فعنوانه “من تحت سريرى” ويناقش المشكلات العاطفية التى تتعرض لها المطلقة، وذلك بالاشتراك مع نخبة من الاختصاصيين النفسيين.
‘আচ্ছাদনের ভিতর থেকে’ তালাকের মনস্তাত্ত্বিক দিক নিয়ে কথা বলেছে আর বিশেষজ্ঞ মনোবিদের অনুষ্ঠানে আনে।

আর তৃতীয় প্রোগ্রাম সম্পর্কে তিনি লিখেছেন:

أما برنامج” طليقك على ما تعوديه” فسيكون بمثابة المرشد الأمين للمطلقة لكى تتعامل مع طليقها بما هو لائق لها أولا ثم لأولادها ولطليقها، باعتبار الجميع أطراف فى التجربة، سنقول لها كيف تتعامل مع الطليق الشرس الذى منعها ومنع أولادها من حقوقهم، ومع الذى اتقى الله فيها وفى أولادها ولم يبخسها حقوقها بعد الطلاق، ومع الطليق المراوغ.. وهكذا، وكل هدفى أن نصل بالمطلقة إلى علاقة محترمة مع الطليق.

‘আপনার ভূতপূর্ব স্বামী আপনার নিজের তৈরি’ একটি নিরাপদ গাইড যে কিভাবে ভূতপূর্বদের সাথে ব্যবহার করতে হয় যে তার আর তার সন্তানের জন্য কি ঠিক- ভূতপূর্ব আগ্রাসী, ন্যায়পরায়ন নাকি সুবিধাবাজ।

চতুর্থ হচ্ছে:

وأخيراً برنامج “ابنك على ما تربيه” وهو عن أبناء الطلاق ومشكلاتهم الخاصة، وهذه قضية كبيرة تحتاج للكثير من الضبط والترشيد الدائم، فهؤلاء الأبناء لا ذنب لهم ولا ينبغى أن يترتب على انفصال والديهم معاناة من جراء ذلك.
“আপনার সন্তান- আপনার থাকবে যেহেতু আপনি তাদেরকে তৈরি করেছেন’ তালাকের পরে সন্তানদের দেখাশোনা করা- তাদের নিয়ম, পরিচালনা, শেখানো আর সমর্থন করা।

ব্লগার এমান হাশিম একটি সামঞ্জস্যপুর্ন প্রতিবেদন লিখেছেন ‘আমাদেরকে দোষ দিতে হবে’ শিরোনামে:

اللى بتخاف من الارملة لتخطف جوزها الست
و اللى بتخبى حملها على صحبتها العانس الست
و اللى بتفكر فى الحسد و الأر و النبر و تعمله الف حساب عادة الست

اللى ربى الراجل على ان المطلقة دى واحدة هاتموت و تبقى مع اى راجل و لو نص ساعة الست
و اللى قبلت انها عشان كبرت فى السن فمش من حقها تطلب اى طلبات و عادى انها تتجوز متجوز عشان تشتغ له شغالة ست
اللى ربت بنتها انها تقبل اى اهانة فى الخطوبة عشان تتجوز لحسن ده خلاص مفيش عرسان ست

و اللى انضربت قدام ابنها و بنتها و ما قالتش حاجة لحست تتطلق و المطلقة دى سبة … برضه ست

সে যে ‘ঘর ভাঙ্গা তালাকপ্রাপ্তাকে’ ভয় পান, সে একজন মহিলা।

সে যে তার অন্ত:সত্ত্বা হওয়া তার ‘অবিবাহিতা’ বন্ধুর কাছ থেকে লুকায়, সে একজন মহিলা।

সে যে আর এক মহিলার কুটিল দৃষ্টি ভয় পায় সে নিজেও আর একজন মহিলা।

সে যে একজন পুরুষকে এই বিশ্বাস নিয়ে বড় করেছেন যে একজন তালাকপ্রাপ্তা একজন পুরুষকে আধা ঘন্টার জন্য পেতে সব কিছু করবে, তিনিও একজন মহিলা।

সে যে হতাশ হয়ে হাল ছেড়ে দিয়ে একজন বিবাহিত পুরুষকে বিয়ে করে তার ‘চাকর’ হতে সম্মত হয়েছে সেও একজন মহিলা।

সে যে তার মেয়েকে বড় করেছে যাতে সে সব ধরনের অপমান সহ্য করে তার বাগদত্তের কাছ থেকে যাতে সে বিয়ের বাইরে না অবস্থান করে, সেও একজন মহিলা।

সে যাকে তার সন্তানদের সামনে মারা হয় আর এটা সহ্য করে তালাকের কালিমা থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য, সেও একজন মহিলা।

আর পরিশেষে আসের ইয়াসের মিশরীয় নারী সম্পর্কে সাম্প্রতিক কিছু পরিসংখ্যান (সেপ্টেম্বর ২০০৮) প্রকাশ করেছেন দেখাতে যে পুরুষ পাওয়ার ভীতি থাকার কোন কারন নেই:

بلغت نسبة الذكور 51,1% فى تعداد 2006 من عدد السكان ونسبة الإناث 48,88%
পুরুষ ৫১.১% আর নারী ৪৮.৮৮%

আগে ছিল ১ জন পুরুষ : ৪ জন নারী অনুপাত।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .