বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কাজাখস্তান: ব্লগাররা লোক প্রশাসন নিয়ে আলোচনা করছে

এ দেশের ব্লগারা বোঝার চেষ্টা করেছে দেশে কি ঘটছে এবং কাজাখস্তানের লোক প্রশাসন কতটা সন্তোষজনক ভাবে চলছে।

মেগাখুমিয়াক মনে করেন স্থানীয় রাজনৈতিক অভিজাত শ্রেণির ভবিষ্যত নির্ভর করছে তাদের শিক্ষা গ্রহণ করার ধারার উপর [রুশ ভাষায়]:

২০ শতকের শুরুর দিকে এবং ১৯৭০-এর শেষের দিকে কাজাখস্তানের অভিজাত সম্প্রদায় রাশিয়া পড়তে যেত, বিশেষ করে মস্কোয়। তারপর ১৯৯০ এর শুরুতে তরুণরা তুরস্কে যেতে শুরু করে। ১৯৯৮ সাল থেকে পড়ার জন্য ইউরোপ অথবা আমেরিকায় যাওয়া জনপ্রিয় হয়ে উঠতে থাকে। আমি আশা করছি আগামী ৫-১০ বছরের মধ্যে কেবল হাভার্ড অথবা পাশ্চাত্যের অন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর সার্টিফিকেট অর্জন করে আসা ব্যাক্তিদেরই কাজাখস্তানের সেরা সরকারী প্রতিষ্ঠানে দেখা যাবে। পরবর্তীতে এর এক প্রভাব তৈরী হবে।

থাউজেন্ড-পা অতীতের দিকে ফিরে তাকাচ্ছেন এবং খেয়াল করেছেন [রুশ ভাষায়]:

নাজারবায়েভের ১৯ বছরের শাসনামল সমন্ধে কেউ একজন উপসংহার টানতে পারে, যে তিনি এ দেশে সফল একদল বিশাল পুঁজিবাদি গোষ্টী তৈরী করতে সমর্থ হয়েছেন। কিন্তু মধ্যবিত্ত শ্রেণির অবস্থা অনেক বেশী জটিল হয়ে গেছে। দারিদ্র, ১৯ বছর আগে যেমনটা ছিল, এখনও তেমনি আছে। বড় বড় শহরে দারিদ্রতার হার কমে এসেছে, কিন্তু ছোট ছোট শহর ও গ্রাম্য এলাকায় সম্ভবত তা আগের চেয়ে বেড়ে গেছে [স্বাধীনতার সময় যতটা ছিল]।

সাডেনোভা বিস্মিত যে দুর্বল মানের আমলাতান্ত্রিক প্রশাসন থাকা সত্বেও সরকার এখনও সঠিক ভাবে চলছে [রুশ ভাষায়]:

আমাদের দেশ এক অদ্ভুত দেশ। এই দেশ অপেশাদারদের দেশ। এখানে আপনি আসবেন আর পাবেন ভীতিকর এক “মানব সম্পদ”। এমন দেশ বাস্তবে ব্যর্থ হবার কথা, কিন্তু কোন এক কারণে তা হয়নি…

[যখন বিশ্ব অর্থনীতি সর্তক করে দিচ্ছে যে সম্ভবত দ্বিতীয় দফায় এক মন্দা আসছে] কাজাখস্তানের সরকারী কর্মকর্তার এই প্রাক-মন্দায় কি ধরনের সমস্যা হতে পারে তা নিয়ে ইতিমধ্যে এক “সৃষ্টিশীল উন্নয়ন” নিয়ে আলোচনা করেছে। বেশীর ভাগ সময় যা হয়, এমনকি কাজাখস্তানেও এই সমস্যার এক বিশেষ জাতীয় সমাধান রয়েছে! আমার বন্ধুরা সাধারণভাবে ব্যাখা করেন, কোথা থেকে এই আশাবাদ তৈরী হয়, “তেলের দাম সামান্য বেড়ে গেছে। এই কারণে প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা এখন নিরুদ্বেগ, তারা তাদের টাই এর বাঁধন খুলে ফেলেছেন এবং হুইস্কির পেয়ালায় চুমুক দিচ্ছেন”।

এই লেখাটি নিউইউরাশিয়াও পোস্ট করা হয়েছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .