বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কলম্বিয়া: বারাঙ্কুইলার বন্যার ভিতরে বাস

ছবি প্যাটনের সৌজন্যে

ছবি প্যাটনের সৌজন্যে

কলম্বিয়ার সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ সমুদ্রতীরবর্তী শহর বারাঙ্কুইলার একটি বিশেষত্ব আছে: বৃষ্টির পানির নিষ্কাশনের কোন ব্যবস্থা নেই। তাই যখনই বৃষ্টি হয়, সারা শহর বিপদজনক দ্রুতগামী নদীর পানি দ্বারা বন্যা কবলিত হয় (যাকে আরোয়ো বলা হয়) যা রাস্তাকে ডুবিয়ে দেয়। নীচের ভিডিওগুলোতে দেখা যাবে ট্যাক্সি, গাড়ি, এমনকি বাসও রাস্তায় ভেসে যাচ্ছে আর অন্যান্য নাগরিকরা সাহায্য করছে যাতে এগুলো ভেসে না যায়।

‘আরায়োস’ থেকে বিপদজনক যে পরিস্থিতি সৃষ্ট হয় তা খারাপ নগর পরিকল্পনার ফল। কোন নিষ্কাশনের ব্যবস্থা নেই, নালার ধারে যথেষ্ট পরিষ্কার জায়গা নেই নির্মানের আগে আর যারা স্রোতের সাথে চলতে চায় তাদের বিপদজনক আচরণ এই পরিস্থিতির জন্যে দায়ী। নীচে প্রকৃতির এই মুগ্ধ করা শক্তির কিছু ভিডিও যা ক্যারিবিয়ান তীরের সব থেকে গুরুত্বপুর্ন শহরের নিয়ন্ত্রণকে নিয়ে নেয়।

ব্লগার প্যাটন, যিনি সম্প্রতি বারাঙ্কুইলাতে গিয়েছিলেন, অল্প বৃষ্টির পরে পানি যে রাস্তা ভরে ফেলেছিল তার লাইভ স্ট্রিমিং করেছেন। মারিয়া ছিল তার সাথে যিনি ভিডিওতে বর্ণনা করেছেন আর টুইটারে আমাদেরকে জানিয়েছেন। প্যাটন বন্যাকবলিত রাস্তার আরো ভিডিও আপলোড করেছেন ছবি সহ, যেমন একটা এই পোস্টে ব্যবহার করা হয়েছে, তার ফ্লিকার আকাউন্টে, আর তার সাথে দৃষ্টি আকর্ষণ করিয়েছেন মানুষ কিভাবে এই পরিস্থিতির সাথে খাপ খাইয়েছেন।

বারাঙ্কুইলা থেকে @এলিফার একই ঝড়ের সময়ে টুইটারে তার বাড়ির ঠিক বাইরের বেশ কিছু ছবি পোস্ট করেছেন

Este es el arroyo que pasa por la puerta de mi casa, con una ... on Twitpic

Un poco más de cerca, con árbol de por medio, se ve así el... on Twitpic

Este taxista decidió devolverse. Yo pregunto ¿para dónde? ... on Twitpic

যদিও বন্যা নিয়ন্ত্রণ করা যাবে বলে মনে হয় আগের ভিডিও দেখলে, মনে রাখবেন যে অল্প বৃষ্টি থেকে এই আরোয়োস হয়েছে। বারাঙ্কুইলাতে অবস্থিত একটি প্রযোজনা সংস্থা টেলিকিনেশিশড এর তৈরি নীচের ভিডিওটি দেখিয়েছে পানি বড় একটা পিকআপ ট্রাক টেনে নিয়ে যাচ্ছে।

বারাঙ্কুইলার স্থানীয় সরকার দ্বারা নির্মিত আর শাকালেল দ্বারা ইউটিউবে আপলোড করা পরের এই প্রামান্য চিত্র বর্ণনা করেছে কেন এই শহরে বৃষ্টির পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা নেই। কারন মনে করা হয়েছিল যে কাজ হবে না যেহেতু শহর মাগদালেনা নদীর ইচ্চতার নীচে, কলম্বিয়ার আর বারাঙ্কুইলা এলাকার সব থেকে বড় নদী। আরোয়ো এর আগে মানুষের জীবনহানী ঘটিয়েছে, আর জিনিষপত্র ও প্রকৃতির বেশ ব্যাপক ক্ষতি করেছে বিশেষ করে দরিদ্র এলাকায়, যা সাধারণত: ছোট শাখা আর নালার খুব কাছে নির্মিত হয়।

বারাঙ্কুইলার আরোয়োর উপরে রিপোর্ট করা নাগরিক ভিডিওর সংখ্যা অনেক। প্রায় সব কটায় একজন চালক তার গাড়ি নিয়ে কিভাবে আরোয়োর পথে যুদ্ধ করছে তার ছবি আছে। কেউ কেউ সৌভাগ্যবান, আর অন্যরা পানি তোড়ে নদীতে ভেসে যায়। কিছু চালক সৌভাগ্যবান আর বেশী দেরী হওয়ার আগে গাড়ি থেকে বেরিয়ে যেতে পারেন। পরিস্থিতি আরো খারাপ হয় কারন এটা এতো সাধারণ ঘটনা: প্রত্যেকবার চালকরা এটাকে বিপদজনক হিসাবে ধরেন না, তারা সিদ্ধান্ত নেন ঝুঁকি নিয়ে ভালোর আশা করার।

মাঝে মাঝে চালকরা বিপদকে পরোয়া করেন না আর অপেক্ষা করেন যখন খুব দেরী হয়ে যায় গাড়িকে নিরাপদে নেয়ার জন্য। কাফুস্টারের এই ভিডিও দেখিয়েছে একজন ট্যাক্সি চালক গাড়িকে পার্কিং এ নেয়ার চেষ্টা করছেন, আর পানি যখন গাড়িটাকে প্রবেশ পথ থেকে টেনে সরিয়ে নেয়, মানুষ সর্ব শক্তি দিয়ে এটাকে ভিতরে সরিয়ে আনতে সাহায্য করে, এক সময়ে সাতজন পুরুষ, চালকসহ পানির বিরুদ্ধে লড়ছে। পরিশেষে আরোয়া বেশী শক্তিশালী হয়ে ট্যাক্সিকে ভাসিয়ে নিয়ে যায়।

ট্রাইটএক্সইউ আরো তথ্য দিয়েছেন নীচের ভিডিও সম্পর্কে যেখানে আর একজন ট্যাক্সি চালক আরোয়ার ভিতর দিয়ে গাড়ি চালানোর চেষ্টা করছেন তার স্ত্রী আর বাচ্চাকে গাড়িতে নিয়ে যখন পানিতে তারা ভেসে গেলেন আর আর একটা গাড়ি দ্বারা আঘাত পেলেন যেটা পানিতে নিজেও ভেসে যাচ্ছিল। ভাগ্যক্রমে তারা বেঁচে যান:

এখানে আরোয়ার আরো ভিডিও আছে, সাধারণ নাগরিকদের তোলা:

রেনাল্ডো পিনিল্লা (রেপিনি):

লুইস জুনিওরিস্তা:

প্রুবাসিয়োপাব্লিকো:

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .