বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইরান: রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চাওয়া খামখেয়ালি সব প্রার্থীদের কথা

ইরানে রাষ্ট্রপতি প্রার্থী পদের জন্য ১০০০ প্রার্থী অনলাইনে নিবন্ধন করেছেন। এ বছরের জুন মাসে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সকল প্রার্থী আজ থেকে (৫ মে ২০০৯) পাঁচদিনের মধ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের প্রধান দপ্তরে গিয়ে দেখা করবেন। রেজিস্ট্রেশন হয়ে যাবার পর ১২ সদস্যের গার্জিয়ান কাউন্সিল প্রার্থীদের বাছাই করবেন এবং চুড়ান্ত নির্দেশ দিবেন কারা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবে।

এর আগের রাষ্ট্রপতি নির্বাচন ২০০৫ সালে অনুষ্ঠিত হয়। সেবার ১০০০ রেজিস্ট্রি করা প্রার্থী থেকে দশজনের কম প্রার্থী নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করার সুযোগ পায়। সকল সৌভাগ্যবান প্রার্থী ছিল ইসলামিক প্রজাতন্ত্রের প্রতি বিশ্বাসী ও আস্থাভাজন।

তবে এবার বেশ কয়েকজন ভিন্ন ধরনের প্রার্থীর উপস্থিতি (চার বছর আগের মতোই) অনেকের মনোযোগ আর্কষণ করছে। একজন ইরানী ব্লগার এবং সাংবাদিক ডিজিটাল কালশনিকভ এই গৌরবময় ক্ষণ এবং কিছু প্রার্থীর ছবি তুলে ধরেছেন। তারা তখন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে উপিস্থিত ছিল।

১) একজন ব্যাক্তি একটি কাউবয় (আমেরিকার রাখালদের পরনে যে টুপি থাকে) টুপি পরে ছিল। আমেরিকায় হয়তো একজন কাউবয় হ্যাট পরা প্রার্থী অনেক সাধারণ- অন্তত কয়েকটি প্রদেশে- কিন্তু ইসলামিক প্রজাতন্ত্রে এটি একটি উল্লেখযোগ্য ঘটনা:

উপরের ভিডিওতে যে লোকটি কাউবয় টুপি পরে ছিলেন, তিনি জানালেন তিনি উচ্চমাধ্যমিক স্কুল শিক্ষাও সমাপ্ত করেননি। তিনি বললেন, তিনি ইরানের সকল মানুষের সেবায় নিয়োজিত। তিনি ইরানের ৭০০০ বছরের পুরোনা সভ্যতাকে অবার ফিরিয়ে আনবেন।

টুপি পরে আসা প্রসঙ্গে আসা প্রশ্নের উত্তর তিনি বলেন, এটা একটা সংকেত, তিনি হজরত ইমাম আলীর সেবক এবং সকল দেশেই খারাপ ও ভালো লোক রয়েছে।

২) অন্য আরেক ব্যাক্তি ইরানের পতাকা মাথায় দিয়ে এসেছেন। তিনি বলছেন, কেউ তার সাথে এই নির্বাচনে জিততে পারবে না। বৃদ্ধ লোকটি আরো জানাচ্ছেন, “‍তিনি তার নাগরিক দায়িত্ব পালন করছেন এবং তিনি ইরানের নেতাদের অনুসরণ করছেন, একজন প্রার্থী হিসেবে নিজেকে উপস্থাপন করছেন। তিনি দাবী করেন, ইতিমধ্যে তিনি সরকার পরিচালনা করার একটা পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন এবং একদল মন্ত্রীর তালিকা তৈরী করেছেন যারা তারই মতো”।

৭তীর লিখেছেন(ফার্সি ভাষায়), ইরানী কর্তৃপক্ষ এই সমস্ত ভাঁড়দের জন্য প্রচুর প্রচারণার ব্যবস্থা করেছে। গার্জিয়ান কাউন্সিল এই নির্বাচনে অংশ নেবার সৌভাগ্য থেকে বেশীর ভাগ রেজিস্ট্রার্ড প্রাথীকে বাদ দিয়েছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .