বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মাদাগাস্কারে বাড়তে থাকা সামরিক চাপ

মাদাগাস্কারে আরো প্রতিবাদ বাড়ছে এবং সামরিক শক্তি দ্বারা তার অবদমন হচ্ছে। মাদাগাস্কারের অন্তর্বর্তীকালিন সরকার তাদের ক্ষমতায় আসার ঘটনা আর্ন্তজাতিক সম্প্রদায়কে ব্যাখা করতে গলদঘর্ম হচ্ছে। সম্প্রতি উচ্চ সাংবিধানিক আদালতের রায়ে (এইচসিসি) এই ক্ষমতা হস্তান্তরকে অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে (ফরাসি ভাষায়)। এতে মনে হচ্ছে অর্ন্তবর্তীকালিন সরকারে আটকা পড়ে গেছে এক বিস্ময়ে এবং যার ফলে এইচসিসির নিরাপত্তা বিভাগের প্রধানকে গ্রেফতার করা হয়েছে

জাতিসংঘের নিরাপত্তা বিভাগের প্রধান এবং আফ্রিকান ইউনিয়ানের প্রতিনিধিরা আদ্দিসআবাবায় মাদাগাস্কার কনট্রাক্ট গ্রুপ-এর এক সভায় বসেছে। তারা এটা নিশ্চিত করতে চাইছে যে জাতি সাধারণ মতামত গ্রহন করুক, যাতে দেশটির সাংবিধানিক অবস্থা আবার ফিরে আসে। যদিও মালাগাছির সকল রাজনৈতিক দল ঘোষণা দিয়েছিল সভায় তাদের একজন প্রতিনিধি উপস্থিত থাকবে। কিন্তু বাস্তবে যখন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার জন্য সভা অনুষ্ঠিত হয় তখন বিরোধী দলের কেউ সভায় উপস্থিত ছিল না।

এই সভায় বর্তমানে দক্ষিণ আফ্রিকায় নির্বাসনে থাকা প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি মার্ক রাভালোমানানা নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন মানডানাফাই রাকোতোনিরিনাকে যাতে সে একটি নতুন সরকার গঠন করতে পারে। অন্তর্বর্তীকালিন সরকারের সাংবিধানিক অবৈধতার কারনেই তিনি এই সিদ্ধান্ত নেন। তার নতুন মন্ত্রীসভা গঠনের কয়েকিদন পর রাকোতোনিরিনা ও তার সহযোগীদের নিরাপত্তা বাহিনী গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তিনি অবৈধভাবে নিজেকে প্রধানমন্ত্রী ঘো্ষনা করেছেন, লুটপাট করেছন এবং অস্ত্র রেখেছন।

মালাগাসি ব্লগাররা এই গ্রেফতারের বিষয়ে খুব দ্রুত তাদের প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছে:

Rakotonirina arrested by Commander Andrianasoavina via andrydago.wordpress.com

রাকোতোনিরিনা গ্রেফতার হচ্ছেন কমান্ডার আন্ড্রিয়ানাসোয়াভিনা কর্তৃক – andrydago.wordpress.com এর সৌজন্যে

মালাগাসি ব্লগার এ্যানড্রিদাগো বেশ কিছু ছবি পোস্ট করেছেন। তিনি রাকোতোনিরিনা গ্রেফতারের বিষয়টি বিস্তারিতভাবে প্রকাশ করেছেন। একই সাথে তিনি বিস্ময় প্রকাশ করেছেন এই কারনে যে সামরিক বাহিনী ভাবছে যে এই গ্রেফতার হয়তো এই আন্দোলনকে থামিয়ে দেবে।

আভিলাভিতরা গ্রেফতারেরর ভিডিও চিত্র তার ব্লগে প্রকাশ করেছেন:

জেনটিলিসা বর্ণনা করেছেন এবং প্রতিলিপি করেছেন ভিডিওতে আসলে কি ঘটেছে:

Efa tsy zoviana intsony fa ny Komandà Charles Randrianasoavina no nitarika ny miaramila hisambotra ireto mpitari-tolona ireto. Io Komand io no nitazona tamin'ny vozon'akanjony ny praiminisitra Manandafy sady niedinedina hatrany niteny hoe : “Ahy ialahy manomboka androany! Ahy ialahy manomboka androany!”

কমান্ডার চার্লস রানড্রিআনাসোয়াভিনা ছিলেন গ্রেফতার এর নির্দেশদাতা। আপনারা দেখতে পাচ্ছেন এক সৈনিক প্রধানমন্ত্রী মানাডানাফাই এর জামা দম্ভ ভরে ধরে টেনে নিয়ে যাচ্ছে এই বলতে বলতে যে, তুমি আমার দিনের শুরু! তুমি আমার দিনের শুরু।

অর্ন্তবর্তীকালিন সরকার গ্রেফতারের বিষয়টিকে বৈধ বলছে। এই বলে একে বৈধ বলেছে যে মানাডানাফাই রাকোতোনিরিনার বিরুদ্ধে অবৈধভাবে নিজেকে প্রধানমন্ত্রী ঘোষনা দেবার দাবী, সম্পত্তি ধ্বংস করার প্ররোচনা দাতা, এবং আগ্নেয়াস্ত্রও রাখার অভিযোগ তৈরী করা হয়।

সেদিন একটি ভিডিও ধারণ করা হয়। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে রাকোতোনিরিনাকে মুখের উপর আঘাত করে তার বাসা থেকে তাকে টেনে আনা হচ্ছে।

তাকে গ্রেফতারের সময় দ্বৈতনীতি গ্রহণ করা হয়। সামরিক বাহিনী যে ক্ষমতার প্রকাশ করে তার সীমা ছিল না। অনেক ব্লগার রিপোর্ট করেছে যে সামরিক বাহিনীর লোকজন সারা শহরে ৪x৪ যান চড়ে টহল দিয়েছে। তারা রাস্তায় চলাচল করা ভীত পথচারীর মাথার উপর ফাঁকা গুলি ছুড়ে। সলোফো একটা ছবি পোস্ট করছে যেখানে দেখা যাচ্ছে একটি যানের জানালার পাশে একটি মানুষ বন্দুক হাতে দাড়িয়ে রয়েছে এবং যাকে অনুসরণ করছে একটি সামরিক সৈন্যযান। এই যানটির মধ্যে সৈনিকে ভর্তি ছিল।

ভোলা এই পোস্টের মন্তব্য বিভাগে একটি লেখা পোস্ট করছে। লেখক লিখেছে, সামরিক বাহিনীর প্রধান দুই প্রতিবাদকারীর মৃত্যুর কারন ব্যাখা করেছেন:

… ils se sont cognés avec des véhicules dans la mêlée [..] il est comique Noël Rakotonandrasana sur ce coup là quand même. Ecoutez l'interview [RFI] à la fin

যখন গোলাগুলি চলছিল তারা তখন গাড়ী দুর্ঘটনায় মারা যায়(…)। এই রক্তননাড্রাসানা নামের ভদ্রলোক বেশ রসিক, নয় কি? আরএফআই-এর সাক্ষাৎকার-এর শেষ অংশ শুনুন

আরেকটি ঘটনা ঘটেছে যার মধ্যে দিয়ে সামরিক বাহিনীর ক্ষমতার অপব্যবহার করা হয়েছে। এটি জানা গেছে রাজিলি নামক ব্যাক্তির চলতে থাকা ঘটনার ক্ষেত্রে। রাজিলি একজন তরুণ যে কিনা সামরিক বাহিনীর দিকে পতাকা নিয়ে এগিয়ে যায়। পতাকা চুরির দায়ে ঘটনাস্থলেই সে গ্রেফতার হয়। এথান জুকারমান রাজিলির গ্রেফতার হওয়া গল্পের পিছনে বিষয়টি ব্যাখা করেন। এ বিষয়ে একটি পিটিশন তৈরী করা হয়েছে যাতে সামরিক শক্তি রাজিলির ব্যাপারে সব তাজা বা আপেটড সংবাদ জানায় এবং তারা এই বিচারের সময় ও ক্ষণ জানাবে এই আবেদন করে। এই দরখাস্তে বেশ কয়েকজন স্বাক্ষর করেছে এবং বেশ কয়েকজন টুইটার ব্যবহারকারী তা ধারাবাহিকভাবে অন্যের কাছে ছড়িয়ে দিচ্ছেন।

twitter users concerned about Razily's fate

টুইটার ব্যবহারকারীরা রাজিলীর অবস্থা নিয়ে চিন্তিত

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .