বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

সিরিয়া: হারিরির বিচারের রায়ের প্রতিক্রিয়া

জাতিসংঘের লেবাননের জন্য বিশেষ ট্রাইবুনাল আজকে আদেশ দিয়েছে ২০০৫ সালের ১৪ই ফেব্রুয়ারি বৈরুতে ভূতপূর্ব লেবাননী প্রধানমন্ত্রী রাফিক হারিরির হত্যাকান্ডের জন্যে সন্দেহভাজন চারজনকে মুক্তি দেয়ার। সিরিয়াকে অনেকাংশে এই হামলার জন্য দায়ী করা হয়, আর এর ফলে পশ্চিমের সাথে তাদের সম্পর্ক খারাপ হয়। এর ফলশ্রুতিতে বুশ প্রশাসন ডামাস্কাস থেকে তাদের রাষ্ট্রদূতকে ফিরিয়ে আনে।

চারজন লেবানী নাগরিক সবাই জেনারেল ছিলেন যারা সিরিয়া- সমর্থিত নিরাপত্তা আর ইন্টেলিজেন্স বিভাগের প্রধান ছিলেন হারিরির হত্যাকান্ডের সময়ে, প্রেস রিপোর্ট অনুসারে।

দ্যা সিরিয়ান নিউজ ওয়াইয়ার এর সাসা এই রায়ে আনন্দিত আর তার ব্লগে রিপোর্ট করছেন আর টুইটারে জানিয়েছেন রায় সাথে সাথে। তিনি লিখেছেন:

যদিও ভবিষ্যৎে তাদেরকে অভিযুক্ত করা হতে পারে, এটা কার্যত সিরিয়াকে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়েছে আর জাতিসংঘের বিশেষ বিচারালয়কে অর্থহীন করে তুলেছে।

এই চারজনকে তিন বছর বিনা বিচারে ধরে রাখা হয়েছে। লেবানন ভেবেছিল তারা কোন সাক্ষ্য খুঁজে পাবে- জাতিসংঘ বলছে বিচারের সম্মুখীন হওয়ার মতো তাদের কোন ক্ষেত্র নেই।

আর ৩আব্দুলসালাম পুরো বিচারালয়কে আর মার্চ ১৪ এর দল যারা এর দাবী করছিল তাদের সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেছেন:

بعد حبس استمر ثلاث سنوات الضباط الأربع أحرار بناء على قرار من المحكمة الدولية التي كلفت لبنان مبالغ فلكية نرجوا ألا تذهب سدى خصوصا أن بوادرها لاحت بما لا يشتهي فريق 14

الشهر.
وهل سيكون عداد انتظار الحقيقة وشعار الحرية والسيادة والإستقلال ومجموع الإتهامات التي لم تعرف سوى مسار واحد والمطالبة المحمومة بقيام المحكمة الدولية حصير الشوك الذي غزلوه بيديهم؟

তিন বছর ধরে কারারুদ্ধ থাকার পরে, চার জন অফিসার মুক্ত হয়েছেন আর্ন্তজাতিক বিচারালয়ের এক নির্দেশে যার মূল্য লেবাননকে বিশাল অঙ্কে দিতে হয়েছে। আমরা আশা করেছিলাম যে এত টাকা যেন নষ্ট না হয়, বিশেষ করে এখন যখন মার্চ ১৪ দলের পছন্দ না এমন একটা অবস্থান নিচ্ছে বিচারালয়।

সত্যের জন্য অপেক্ষা কি চলতে থাকবে আর ‘মুক্তি, স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব’ স্লোগান আর সকল দোষারোপ এক দিকে ধাবিত হবে আর আর্ন্তজাতিক বিচারালয়ের মরিয়া সকল দাবি কি তাদের নিজেদের ভুল কাজে পরিণত হবে।

ঘোষণার পরে লেবানিজ ব্লগার কিফা নাবকি টুইট করেছেন যে তিনি বৈরুতে ‘উৎসবমূখর গুলির’ আওয়াজ শুনেছেন:

tweeter

<এই বিষয় শেষ হতে অনেক বাকি, কিন্তু ইঙ্গিত করছে সিরিয়া আর লেবাননের মধ্যে সম্পর্ক স্বাভাবিকের দিকে যাত্রার।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .