বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

হিজাবব্লগিং ফ্যাশন সচেতনেরা

মার্চ মাসে আমরা নতুন এক ধরনের হিজাবব্লগারদের উপস্থাপন করেছিলাম যারা হিজাব পরেন এবং এ নিয়ে ব্লগে লেখেন। এরকম ব্লগার রয়েছেন বিশ্বজুড়ে, এবং তাদের লেখার প্রতিপাদ্য হচ্ছে সন্তান প্রতিপালন থেকে শুরু করে ফ্যাশন, ভ্রমণ বা রাজনীতি ইত্যাদি নানা বিষয়। এই পোস্টে আমরা এইসব হিজাব ব্লগাররা নতুন কি লিখছেন তা উপস্থাপন করব।

একটি চমৎকার নতুন হিজাবব্লগ হচ্ছে হিজাবস হাই। এই ব্লগে সারা বিশ্বজুড়ে হিজাব পরিহিতাদের ছবি তুলে ধরা হয়। অন্যান্য ব্লগাররা একে ‘মুসলিম ফ্যাশন ব্লগ’ বলে থাকে যদিও এই ব্লগের সম্পর্কে এই কথাগুলো লেখা আছে এবাউট সেকশনে।

হিজাবস হাই ব্লগ বিশ্বব্যাপী সেইসব ফ্যাশন সচেতন আর উদ্যমী মুসলমান মহিলাদের দ্বারা অনুপ্রানিত যারা তাদের পরিচয় সম্পর্কে অকুতোভয় এবং তাদের সৌন্দর্য এবং ফ্যাশন সচেতনতা দিয়ে বিশ্বে তাদের অবস্থান সুদৃঢ় করতে সচেষ্ট।

আমাদের আশা এই যে এই ব্লগ মুসলমানদের অনুপ্রানিত করবে, প্রনোদনা যোগাবে এবং এটি এই ব্লগের পাঠক মুসলমান এবং অন্য ধর্মের লোকদের কে আগ্রহান্বিত করবে মুসলমান মহিলাদের গতানুগতিক চিত্র যা সবার মনে আছে তা দুর করার। অনেকই মনে করে মুসলমান মহিলারা শুধু বোরখা পরে কিন্তু এই ব্লগ দেখাবে যে আমরা তার চেয়েও চিত্তাকর্ষক কিছু পরি।

হিজাব হাই এর চমৎকার চিত্রগ্রাহকদের দলকে বলছি – তোমরা জান তোমরা কে – অনেক ধন্যবাদ খুব আত্মবিশ্বাস ও গর্বের সাথে এটি করার জন্যে। 🙂

সব শেষে, হিজাব হাই দ্যা সার্টোরিয়ালিস্ট ব্লগের কাছে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছে আআর আমাদের ক্যামেরাগুলোকে ফোকাস করতে অনুপ্রানিত করার জন্যে। ধন্যবাদ।

হিজাব স্টাইল নামে আরেকটি ফ্যাশন-ফরওয়ার্ড ব্লগ সম্প্রতি মিশরীয় ডিজাইনার রেহাম ফারুকের উপর একটি ফটো পোস্ট করেছে। ফারুক শূধুই হিজাব পরা মহিলাদের জন্যে ডিজাইন করেন। হিজাবব্লগও ফারুক উপরে একটি বিশেষ পোস্ট প্রকাশ করেছে যা বেশ কিছু মন্তব্য এনেছে তার সুনাম করে।

সবশেষে নুসাইবার একটি চমৎকার পোস্ট রয়েছে। তার ব্লগ বিশেষ করে ‘অগণিত মুসলমান মহিলার কন্ঠ এবং অভিজ্ঞতা’ কে সবার সামনে তুলে ধরা ও ব্যাপক প্রচারে ব্রতী। এই ব্লগার ‘কেন নারীবাদীদের হিজাব ভালবাসা উচিৎ’ নামক পোস্টে এই ব্লগার জানাচ্ছে:

আমি সকালে সংবাদপত্র পড়ছিলাম এবং এটিতে আমার চোখ আটকালো। মনে হচ্ছে নরওয়েতে হিজাব একটি জাতীয় বিতর্ক শুরু করেছে। এটির শূরু হয় যখন একজন মুসলিম মহিলা তার পুলিশের পোশাকের সাথে হিজাব পড়ার আবেদন করে। এবং পরিস্থিতি খারাপের দিকে গড়ায় যখন আন্তর্জাতিক মহিলা দিবসে একজন মহিলা একটি হিজাবে আগুণ ধরিয়ে প্রতিবাদ করে। আহ এইসব অতি উৎসাহী নারীবাদিদের না ভালবেসে পারা যায় না! নারীবাদের নামে তারা যে কোন কিছু করতে প্রস্তুত কিন্তু একজন মুসলমান মহিলাকে হিজাব পরিহিত দেখার চেয়ে তারা তাদের নির্যাতিত হিসেবে দেখতেও প্রস্তুত!

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .