বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মিশর: নারীরা ইন্টারনেটের আশ্রয় নিচ্ছে নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে লড়ার জন্য

মধ্যবিত্ত ও উচ্চবিত্ত মিশরীয় তরুণীরা সমাজের নিষিদ্ধ জিনিষের বিরুদ্ধে লড়ার জন্য ইন্টারনেটের সাহায্য নিচ্ছে। বিবিসি এদের কয়েকজনের সাক্ষাৎকার নিয়েছে আর ব্লগার্স টাইমসের মোহাম্মাদ হামদি প্রতিবেদনের উপরে মন্তব্য করেছেন:

আল ইয়ুম ৭ সংবাদপত্রের রায়েম আব্দেল হামিদের উদ্ধৃতি দিয়ে, হামদি লিখেছেন:

وتروى النساء تجاربهن الشخصية مستغلات السرية التى يتيحها الإنترنت. كما تتبادل النساء الآراء السياسية والثقافية ويتحدثن عن الإحباطات اليومية اللاتى يتعرضن لها.
ইন্টারনেটের পরিচয়হীনতার সুযোগ নিয়ে মহিলারা তাদের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেন। তারা রাজনৈতিক আর সাংস্কৃতিক দৃষ্টিভঙ্গী নিয়েও মত বিনিময় করেন আর তাদের দৈনন্দিন হতাশা আলোচনা করেন।

ডায়লা জাইদা সৌদি আরব সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মহিলাদের প্রতি পক্ষপাতিত্ব না করতে এবং বিবিসি তার উল্লেখ করেছে। হামদি জানিয়েছেন:

وتقول إن المدونة داليا زيادة على سبيل المثال دعت السعودية إلى إنهاء ما تصفه بالتمييز ضد المرأة فى حملة تزامن توقيتها مع ذكرى المولد النبوى. وتقول داليا: “لم يُسمح لى بأداء العمرة، لماذا؟ لأن سيدة شابة تحت سن الـ45. والحل الوحيد بالنسبة لى هو الذهاب مع محرم لأن أمى لا تكفى”. وتضيف: “هل تعرفون محرما لى، فوالدى متوف وشقيقاى غير مهتمين بالأمر ولا أستطيع تحمل نفقاتهما، وليس لدى زوج وبالطبع ليس لدى ابن”.

প্রতিবেদনে যেমন বলা হয়েছে, যে ব্লগার ডায়লা জাইদা সৌদি আরব সরকারের প্রতি আহ্বান জানান মহিলাদের প্রতি পক্ষপাতিত্ব থামানোর। তার প্রচারণার নবীর জন্মদিনের সাথে মিলে গিয়েছিল। ডায়লা বলেছেন:

“আমাকে ওমরাহ [মক্কায় একটা ছোট ধর্মযাত্রা] করতে দেয়া হয়না! কেন? কারন আমি ৪৫ বছরের কম বয়সের তরুণী! একমাত্র উপায় যেভাবে আমি মার প্রিয় নবীর দেশে যাতে পারি তা হচ্ছে একজন পুরুষকে সঙ্গী করে যাওয়া। আমার মা যথেষ্ট না!! আপনি কি জানেন পুরুষ সঙ্গী কি? প্রথম -স্তরের পুরুষ আত্মীয়: বাবা, ভাই, স্বামী বা ছেলে! আমি তাহলে বড় বিপদের মধ্যে আছি। আমার বাবা মারা গেছেন, আমার দুই ভাই উৎসাহী না আর তাদের টিকিটের দাম দেয়ার সামর্থ আমার নেই, আমার স্বামী নেই আর অবশ্যই আমার ছেলে নেই!! এখন আমি কি করতে পারি?!”

হামদি জানিয়েছেন কি করে আর একজন ব্লগার কথা বলেছিলেন আরবদের কুমারীত্ব নিয়ে বাড়াবাড়ি নিয়ে। তিনি বুঝিয়েছেন:

وتحدثت مدونة أخرى لم تذكر اسمها عن ماضيها وتعاطيها المخدرات، وانتقدت استمرار ما وصفته بهوس المجتمع العربى بعذرية الإناث. ومن ثم، تشير هيئة الإذاعة البريطانية إلى أن الموضوعات التى تعد من المحرمات فى الشارع المصرى يمكن مناقشتها على الساحة الإلكترونية مثل موضوع التحرش الجنسى

একজন ব্লগার যিনি বেনামী থাকতে চেয়েছিলেন তিনি তার অতীত আর মাদকাসক্তি নিয়ে কথা বলেছেন। তার ব্লগে তিনি বারবার আরবদের নারীদের কুমারীত্ত্বের ব্যাপারে বাড়াবাড়ির সমালোচনা করেছেন। বিবিসি আরো জানিয়েছে কিভাবে যৌন হয়রানির মতো নিষিদ্ধ জিনিষ ইলেক্ট্রনিক এই অঞ্চলে আলোচনা হচ্ছে বাস্তবতার বিপরীতে।

গার্লস অনলি গার্লস (মেয়ে আর শুধুমাত্র মেয়ে)- হচ্ছে মেয়েদেরকে উৎসর্গকৃত প্রথম অনলাইন রেডিও যা সম্পর্কে হামদি জানিয়েছেন:

وأسست هذه المحطة أمانى تونسى(25 عاماً) وهى إحدى الفتيات المصريات التى أصابها الإحباط بسبب الطريقة التى تعامل بها النساء فى مصر. تقول: ” نحن تقريبا لسنا أحياء فى ظل الاحتمالات الدائمة لتعرضنا للتحرش الجنسى”، وتتساءل عن أى حياة هذه. ومن البرامج التى تقدمها “بنات وبس” برنامج ” مش كل الطير” الذى يحمل رسالة مؤداها “ليست كل البنات حمقاوات”. ويتحدث البرنامج عن الخدع التى يستخدمها الرجال للإيقاع بالفتيات.

আমানি এল তুন্সি (২৫) এই অনলাইন রেডিও স্টেশনের প্রতিষ্ঠাতা একটা পথ হিসাবে যেখানে মিশরের নারীরা তাদের ক্রমাগত হতাশাজনক জীবন থেকে মুক্তি পেতে পারে। জীবনের মাণ নিয়ে ভাবছেন, তিনি বলেছেন: ”আমাদেরকে বাঁচার অধিকার প্রায় অস্বীকার করা হয় ক্রমাগত হয়রানীর ভয়ের কারনে।” “সব পাখি না” একটা মজার অনুষ্ঠান যা আসলেই বোঝায় যে সকল নারী বোকা না। এই অনুষ্ঠানের লক্ষ্য হলো পুরুষরা নারীদের তাদের খপ্পরে ফেলার জন্য যেসব খেলা খেলে তা তুলে ধরা।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .