বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

পাকিস্তান: লাহোর পুলিশ একাডেমীতে হামলা

আজকে সকালে পাকিস্তানীরা লাহোরের মানাওয়ান পুলিশ প্রশিক্ষণ স্কুলে সমস্ত্র হামলার খবর শুনে চমকে ওঠে। প্রায় ৭০০ প্রশিক্ষণার্থী যখন তাদের সকালের শারীরিক অনুশীলন করছিল তখন পুলিশের পোশাক পরা ১০-১২ জন মুখোশ পরা বন্দুকধারী চারদিক থেকে তাদের আক্রমণ করে। বিবিসি রিপোর্টে বলে যে তারা সেই স্কুলটিকে দখলে নিতে সমর্থ হয় এবং বেশ কয়েক ঘন্টা পর বোঝা যায় যে ৩০-৪০ জন প্রশিক্ষনার্থী ভেতরে আটকা পরে আছে। নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মীরা পুলিশ একাডেমীর দখল ফিরে পেতে লড়াই করে চলেছে।

অল থিংস পাকিস্তানের আদিল নাজাম একজন প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে বলছেন:

এখন বেলা দশটা বাজে, গোলাগুলি শুরু হবার পর ৩ ঘন্টা অতিবাহিত হয়েছে। বিভিন্ন সূত্রের খবর থেকে এখন পরিস্কার যে সন্ত্রাসীরা এই পুলিশ সেন্টারে হামলা চালীয়ে ২০ জনের অধিক লোককে মেরেছে এবং আহতের সংখ্যা শতাধিক। গোলাগুলি এখনও চলছে। আমার বাড়ী ঘটনাস্থল থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দুরে। আমি এখান থেকেই তা শুনতে পাচ্ছি।

চৌরঙ্গী ব্লগ লিখছে:

মার্চের পাগলামী এখনও পাকিস্তানে চলছে। শ্রীলন্কা ক্রিকেট দলের উপর আক্রমণ এবং লং মার্চের পরে লাহোর আবার সংবাদে আসে যখন শহরতলীতে একটি পুলিশ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে সশস্ত্র জঙ্গীরা হামলা চালায়।

এই ব্লগ একটি টিভি ফুটেজের ভিডিও পোস্ট করেছে যা দেখাচ্ছে যে ঘটনা প্রচার করতে আসা টিভি কর্মীরাও গোলাগুলির কবলে পরেছেন:

অনেকে এই ঘটনার দিকে নজর রেখেছিল টুইটারের মাধ্যমে কারন নাগরিক সাংবাদিকরা সাম্প্রতিক খবর জানাচ্ছিল কিছুক্ষণ পরপরই।

টিথ মায়েস্ট্রো দ্রুতই এই ঘটনার একটি লাইভ কাভারেজ চালু করে দেয়।

এই কাভারেজ থেকে:

বিকেল ৪:৫২ (পাকিস্তান সময়) টিথ মায়েস্ট্রো:

সাম্প্রতিক খবরে জানা গেছে যে পুলিশ একাডেমী সন্ত্রাসীদের কাছ থেকে উদ্ধার করা গেছে। এই হামলা নিয়ে আলোচনা চলতে থাকবে তবে আমরা এখন এই লাইভ ব্লগিংটা বন্ধ করতে পারি। এই লাইভ ব্লগের কথোপকথন সংরক্ষণের জন্যে অচিরেই আবার এখানে (টেক্সট আকারে) প্রকাশ করা হবে।

এই পর্যন্ত ২৭জন পুলিশ মারা গেছে এবং ১০০ এর বেশী লোক আহত হয়েছে। অল থিংস পাকিস্তান সর্বশেষ খবরে জানিয়েছেন:

চারজন সন্ত্রাসী মারা গেছে এবং চারজনকে জীবিত গ্রেফতার করা হয়েছে। আমরা আশা করতে পারি যে গ্রেফতারকৃতদের ঠিকমত জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে আরও তথ্য পাওয়া যাবে, বিশেষ করে কারা এর পরিকল্পণা করেছে এবং পাকিস্তানে (বর্তমান ও অতীতের) বিভিন্ন হামলা সম্পর্কে।

জাহানে রুমির রাজা রুমি খুবই চিন্তিত:

এর পরে কি হবে? সবাই জানে যে এই শেষ নয়। বিভিন্ন দল, ব্যক্তি এবং স্বার্থ কাজ করে যাচ্ছে পাকিস্তানকে ধ্বংস করার জন্যে।

চুপ!- চেন্জিং আপ পাকিস্তান প্রশ্ন করছে:

ভয়ন্কর ব্যাপার হচ্ছে বন্দুকধারীরা এরকম প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ঢুকে অনায়াসেই এমন হামলা করতে পারে। জারদারী যেহেতু পান্জাবের গভর্নর রুল উঠিয়ে দিতে চাচ্ছে, এই শুণ্যতা কি আরও সংঘাতের জন্ম দেবে?

ডেডপ্যান থটস মন্তব্য করছে:

আমাদের এই অনাসৃষ্টি থেকে উদ্ধার পাবার জন্যে এবং আমাদের দেশকে রক্ষার জন্যে সর্বাত্মক চেষ্টা করতে হবে। না হলে আমাদের পরিণতি হবে অনেকটা ইরাকের মত। তাই আমাদের সরকারের ভেতরকার নিরাপত্তা এবং পরিকল্পনাহীনতার জন্যে জবাবদিহীতা চাইতে হবে। যুদ্ধ আসছে এটা আর এখন রুপকথা নয়। শত্রু এখন আমাদের দোরগোড়ায়।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .