বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কোরিয়া: হিলারি ক্লিন্টনের সফর

আমেরিকার পররাষ্ট্র মন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টন সম্প্রতি দক্ষিণ কোরিয়া সফর করেন। অন্য কোন বিষয় ছাড়া উত্তর কোরিয়ার ব্যাপারে আলোচনাই মূল লক্ষ্য ছিল। কিছু মানুষ তাকে রাস্তায় স্বাগত জানায়, পোস্টার তুলে ‘স্বাগত হিলারি’ আর ‘কিম জুং ২ নিপাত যাক'। তারা কিম জুং এর ছবি পুড়িয়েছে।

যেহেতু দুই দেশের মধ্যে বেশ কিছু ঝামেলার কারনে উত্তর কোরিয়া সরকারের প্রতি দক্ষিণ কোরিয়া সরকারের সাম্প্রতিক নীতিকে সমালোচনা করা হয়েছে, তার সফর আর সফরসূচী সবাই কাছে থেকে লক্ষ্য করছে।

নট এ ফিউ ব্লগার্স হিলারির সম্পর্কের কথা উল্লেখ করেছেন আগের প্রেসিডেন্ট কিম দাই-জুং এর সাথে, যাকে নোবেল পুরষ্কার দেয়া হয়েছিল আর যিনি সানশাইন পলিসি কাজে পরিণত করেছিলেন।

오늘 아침, 눈을 의심할 정도로 놀랜 사건이 있다. 힐러리 장관이, 김대중 전 대통령에게, 남편이 안부를 전해달라고 했다”며 “저와 남편은 김 전 대통령과 함께 일했던 시절에 대해 `긍정적이고 따뜻한 추억'(positive and fond memories)을 간직하고 있다” 는 말을 한 것 이다. 외교적 수사는, 아시다시피 고도로 계산되고 계획된 용어만을 사용한다.

그런데 옛날엔 Positive (긍정적) 이 었다 ?? ….. 그렇다면 지금은 부정적 (Negative) 이라는 지적으로 이해 할 수도 있는 것 인가?? 둘째, 따뜻한 (Fond) !!!! 이것은 또 무슨 단어인가 ?? 김대중 대통령은 ‘햋볕 (Sunshine) 정책'을 이끌고 노벨상을 수상했다…..햋볕을 상기 시킬수 있는 따뜻한 추억이라는 표현….차가운 현실과 반대되는것으로 간주 될 수 있는, 또는 ‘냉전’ 과 같은 단어와는 반대로 간주될 수 있는 표현…..바로 이 두 단어가 키워드 인것이다.[…] “90년대 금융위기와 대북 관계에 대해 보여준 `본보기'(example)와 지도력에 감사한다” 는 말까지는 굳이 부연 설명이 필요 없을 것 같다. 그럼 도대체 지금은 모야 ?[…]

আজকে একটা আশ্চর্যজনক ঘটনা ঘটেছে। যে মন্ত্রী হিলারির কাছে গিয়েছিলেন তিনি পূর্ববর্তী প্রেসিডেন্ট কিম দাই- জুং এর কাছে জানিয়েছেন যে হিলারির স্বামী তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আর বলেছেন, ”আমার আর আমার স্বামীর ‘পছন্দের ও ইতিবাচক স্মৃতি’ আছে যে সময়ে আমরা আপনার সাথে কাজ করেছি।” আমরা যেমন জানি কূটনীতিকদের কথা অনেক হিসাব ও পরিকল্পনা করে বলা।

আর তিনি ‘ইতিবাচক’ শব্দটা ব্যবহার করেছেন। এর মানে কি এখন নেগেটিভ? আর ‘পছন্দ'!!! আগের প্রেসিডেন্ট কিম দাই জুং ‘সানশাইন পলিসি'র নেতৃত্ব দিয়েছেন আর নোবেল পুরষ্কার পান। সানশাইন পলিসি আমাদেরকে উত্তপ্ত কিছু স্মৃতি দেয় শিতল বাস্তবতা আর ‘শিতল যুদ্ধের’ বিপরীতে। এই দুই শব্দ যে উনি ব্যবহার করেছেন এটা মূল কথা। তিনি আর কি বলেছেন সে ব্যাপারে মন্তব্য করার আর দরকার নেই, ”আপনি যে ‘উদাহরণ’ আর নেতৃত্ব দিয়েছেন ৯০ এর অর্থনৈতিক মন্দায় আর উত্তর ও দক্ষিন কোরিয়ার সম্পর্কের ব্যাপারে তার আমি প্রশংসা করি। তাহলে এখন সম্পর্কে কি বললেন?

আর একটা মত:

[…]저는 이 한통의 전화가 현 정부 인사들과 나눈 그 어떠한 대화보다 중요한 의미를 갖고 있다고 생각합니다. 미국의 입장에서는 현 정부가 미국 행정부의 대화 파트너임에는 분명하고 현 정부를 무시하고 김대중 전 대통령을 만나는 것은 여간 부담스러운 일이 아니었을 것입니다. 그래서 절묘한 형식과 타이밍을 맞춘 것이 한국의 떠나는 마지막 순간의 전화통화라는 방법을 선택한 것 같습니다.

আমি মনে করি বর্তমান সরকারী কর্মকর্তাদের সাথে তার অন্যান্য আলোচনার তুলনায় একটা ব্যাপার যা হিলারি বলেছেন তা আসলেই অর্থবহ । আমেরিকার সরকারের কাছে, বর্তমান সরকারকে কথা বলার সঙ্গী হিসাবে বাতিল করে আগের প্রেসিডেন্টের সাথে সাক্ষাৎ করা কঠিন হতো। তাই, ঠিক কোরিয়া ছেড়ে যাওয়ার আগে তিনি তাকে ফোন করার সময় নির্ধারণ করেন।


আর একটা স্পর্শকাতর দিক
- কিম জং ২ এর স্বাস্থ্য আর তার উত্তরসূরীর বিষয়টি বড় ছিল:

힐러리 클린턴 국무장관이 북한의 후계문제를 공개적으로 언급해 그 배경에 초미의 관심이 모아지고 있다. 그는 서울행 기내에서 가진 기자 간담회에서 “북한이 평화적으로 권력승계를 하더라도, 내부 권력강화를 위해 훨씬 도발적인 행동을 취할 가능성이 있다”며, “이는 점증하는 압력”이 되고 있다고 말했다. 그러면서 “북한의 정치 리더십이 불투명할 때, 북한의 행동에 영향을 행사할 수 있는 효과적인 전략을 마련하는 것이 우리의 목표”라고 강조했다.

이처럼 미국의 고위 관리가 북한의 후계체제를 거론한 것 자체가 대단히 이례적인 일이다. 더구나 후계문제는 북한이 가장 민감하게 반응하는 사안이라는 점에서 그 파장이 만만치 않을 전망이다. 북한의 반응에 따라 북미협상이 시작도 되기 전에 거친 말싸움이 오갈 수 있기 때문이다.[…]

আমেরিকার পররাষ্ট্র মন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টন জনসম্মুখে বলেছিলেন উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতা হস্তান্তরের ব্যাপারটা। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছিলেন, ”যদিও উত্তর কোরিয়ার সরকার শান্তিপূর্নভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে পারলেও তাদের মধ্যে সম্ভাবনা থাকবে আরো উস্কানিমূলক কাজ করার অভ্যন্তরীণ ক্ষমতা বৃদ্ধির।” তিনি যোগ করেছেন, “যখন উত্তর কোরিয়ার নেতৃত্ব পরিষ্কার না, আমাদের তখন লক্ষ্য উত্তর কোরিয়ার প্রতি কার্যকর পরিকল্পনা করা।”

এটা একটা বিশেষ ঘটনা যেখানে আমেরিকার সরকারের কোন উচ্চ পর্যায়ের ব্যক্তি উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতার হস্তান্তর নিয়ে মন্তব্য করেছেন। উত্তর কোরিয়ার জন্য এটা খুবই স্পর্শকাতর বিষয় আর তাই এটা আরো প্রতিক্রিয়ার দিকে ধাবিত হতে পারে। এটা বিক্ষুব্ধ মৌখিক তর্কতে পরিণত হতে পারে উত্তর কোরিয়া- আমেরিকার আলোচনা শুরু হওয়ার আগেই।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .