বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ভারত: উৎকট আঞ্চলিক জাতীয়তাবাদ বাড়ছে আর তা থামানোর জন্য কেউ নেই!

ভারতে প্রাদেশিক পর্যায়ে সন্ত্রাসবাদ আর জাতীয়তাবাদের বিষ ছড়ানো হচ্ছে। সাম্প্রতিক যে প্রদেশের কথা শিরোনামে এসেছে তা হলো মহারাষ্ট্র। দক্ষিণপন্থী রাজনীতিবিদ রাজ থ্যাকারে এতদিন শুধুমাত্র মুখের শব্দ ব্যবহার করে উৎকট আঞ্চলিক জাতীয়তাবাদ জাগিয়ে রাখতেন আর ভয় দেখাতেন অ-মহারাষ্ট্রবাসীদেরকে যাদের অনেকে কয়েক প্রজন্ম ধরে মহারাষ্ট্রে বাস করছে আর কাজ করছে!! বিগত কয়েক মাস ধরে বিচ্ছিন্ন কয়েকটা সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে তবে এখনো বড় কিছু ঘটার অপেক্ষায়। কিন্তু থ্যাকারের কথা অনুযায়ী এই সব হচ্ছে যেই সিনেমা দেখানো হবে তার বিজ্ঞাপণ মাত্র। আসল ঘটনা কয়েক দিন আগে ঘটেছে যখন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের গুন্ডারা, যেমন রাজ থ্যাকারের মহারাষ্ট্র নবনির্মান সেনা আর শিব সেনা (রাজনৈতিক দল আর স্বনিয়োজিত নৈতিক পুলিশ যা থেকে বের হয়ে রাজ তার নিজের রাজনৈতিক দল শুরু করেছে) যে কয়টা দক্ষিন ভারতীয় তরুণকে পেয়েছে তাদেরকে মেরেছে, জানিয়েছে নিতিশ (হিন্দি ভাষায়)।

যেসব দক্ষিণ ভারতীয়রা মার খেয়েছে তারা এসেছিল ভারতীয় রেলওয়েতে চাকুরির জন্য পরীক্ষা দিতে। প্রথমে শুধুমাত্র রাজ এর এমএনএস ছিল যারা আঞ্চলিকতার গান গাইতো, যা বেশীরভাগ মানুষ বোঝে স্থানীয় ভোট পাওয়ার জন্য তার নোংরা রাজনীতি হিসাবে। নিতিশ জানিয়েছে যে এখন মনে হয় অন্যান্য রাজনৈতিক দলও এতে অংশগ্রহণ করছে। সে বলেছে যে হঠাৎ করে মহারাষ্ট্রের সব স্থানীয় রাজনৈতিক দল বলছে যে এটা জনগণের লড়াই আর জনগণের প্রতিনিধি হিসাবে তারা এই আঞ্চলিকতা তুলে ধরছে। অন্য কথায় তারা এই সেন্টিমেন্টের কারনে যে ভোট পাওয়া যাবে তার একটা অংশ চায়। আর রেলের চাকুরির জন্য আসা দক্ষিণ ভারতীয় প্রার্থীদের মারার পরে দক্ষিণ ভারতের রাজনৈতিক দল আর নেতারা রাজ থ্যাকারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে। কয়েকজন যেমন রেল মন্ত্রী লালু প্রসাদ যাদব এতদুর পর্যন্ত বলেছেন যে রাজ থ্যাকারে পাগল!!

নিতিশ আর একটা পোস্টে লিখেছেন (হিন্দি ভাষায়) যে জামশেদপুর হাই কোর্ট রাজের বিরুদ্ধে অজামিনযোগ্য গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারি করেছে যা মুম্বাই পুলিশ গ্রহন করেছে। পুলিশ আইন শৃঙ্খলা ভঙ্গকারী এমএনএস কর্মীদেরকে গ্রেপ্তার করা শুরু করে আর শেষ খবর অনুযায়ী ১১০০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। নিতিশ সর্বশেষ জানিয়েছে যে মহারাষ্ট্র পুলিশ শেষ পর্যন্ত সাহসের পরিচয় দিয়ে রাজকে গ্রেপ্তার করেছে। ভিলাস রাও দেশমুখের মহারাষ্ট্র সরকার অনেক চাপের মধ্যে ছিল এই পাগলামী বন্ধের জন্যে যা এই প্রদেশকে বেশ কয়েক দিন ধরে উত্তপ্ত রেখেছে আর যার ফলে দিন দিন সহিংসতা বাড়ছে। তবে এটা পরিষ্কার না যে এই গ্রেপ্তার তা থামাবে কিনা, কারন রাজ গ্রেপ্তারের ঠিক পরেই এমএনএস কমীরা সহিংস হয়ে ট্যাক্সি আর অটো রিক্সা ভাংচুর করে আর গাড়ী পোড়ায়। আর নিতিশ জিজ্ঞাসা করেছে যে কি কারনে প্রাদেশিক প্রশাসন রাজ থ্যাকারেকে এতদিন ধরে বাঁচিয়ে এসেছে?!

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .