বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইরান: নতুন বিক্রয় করের কারনে ধর্মঘট

Tehran Grand Bazaar

তেহরানের গ্রান্ড বাজারের বিক্রেতারা আর ইরানের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ শহর যেমন তাবরিজ, ইশফাহান আর মাশাদের বিক্রেতারা প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে ধর্মঘটে আছে নতুন ৩% বিক্রয় করের (সেলস ট্যাক্স) প্রতিবাদে – যাকে ভ্যালু এডেড ট্যাক্স (ভ্যাট) ও বলা হয়।

সরকার আইনটা স্থগিত করেছে, আর কিছু রিপোর্ট ইঙ্গিত দিচ্ছে যে বাজারগুলো আবার আগের মতো ব্যবসা শুরু করেছে। তবে অন্যরা বলছে যে ধর্মঘট এখনো চলছে।

ইরানে ধর্মঘট সহজে দেখা যায় না, আর সে দেশে কোন আইন সঙ্গত ট্রেড ইউনিয়ন নেই। বেশ কয়েকজন ইরানী ব্লগার এই ঘটনা সম্পর্কে বলছেন। কেউ কেউ এ নিয়ে মন্তব্য করেছেন আর বাকিরা শুধু জানিয়েছেন তারা যা দেখেছেন।

ঘাজারবয়েস তেহরানের গ্রান্ড বাজার এর ছবি পোস্ট করেছে (উপরে দ্রস্টব্য) থেকে আর বলেছে:

আজকে (১২ অক্টোবর) আমি তেহরানের বাজারে গেছি আর দেখলাম যে সব দোকান বন্ধ কিন্তু বিক্রেতারা সেখানে আছে আর খবরের অপেক্ষা করছে… একজন বলল যে তারা এখন বেশ ক্ষুব্ধ কারন একটি পত্রিকা তাদেরকে চোরাকারবারী বলেছে! ধর্মঘট মনে হলো যে চলছে কারন বিক্রেতারা বিশ্বাস করে যে দুই মাসের জন্য আইনটা শিথিল করলে তা যথেষ্ট না।

চেরিকোনলাইন লিখেছেন যে তেহরানের গ্রান্ড বাজারের দোকান বন্ধ ছিল ১২ অক্টোবর আর আইন শৃঙ্খলা বাহিনী সব জায়গায় উপস্থিত ছিল।

খিয়ালাত ইশফাহানের ধর্মঘট সম্পর্কে বলেছেন:

আমার মনে হয় অর্থনৈতিক সিদ্ধান্তের থেকে বেশী এটা ইরানের রাজনৈতিক অবস্থার কারনে আর হয়তো মানুষের অতৃপ্তি (সরকারের প্রতি) পরিণত হয়েছে জনগনের প্রতিবাদ মিছিলে… ইশফাহানেও প্রতিবাদ হয়েছে যেখানে মানুষ স্লোগান দিয়েছে এরকম: “প্যালেস্টাইনকে ভুলে আমাদের কথা চিন্তা করো” আর “আমরা ন্যায় বিচার চাই না!”

দুটো মন্তবই ইরানী প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আহমাদিনেজাদের জনপ্রিয় স্লোগানের প্রতি ইঙ্গিত করে। তিনি দেশে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার জন্য কথা দিয়েছিলেন আর ফিলিস্তিনি জঙ্গী দল হামাসকে সমর্থন করেন।

মা হামেহ খোবিম জানিয়েছেন যে ইশফাহানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনী একজন বিশিষ্ট ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করে কিন্তু কয়েক দিন পর তাকে ছেড়ে দেয়।

একজন আহমাদিনেজাদপন্থী ব্লগার হামেদ তালেবি তার খাবারনেগার মোসালমান (মানে মুসলিম রিপোর্টার) ব্লগে বলেছেন:

কিছু বড় ক্যাপিটালিস্টদের উস্কানীর ফলে কতিপয় ব্যবসায়ী ধর্মঘটে চলে যায় সরকারের কথা দেয়া সত্ত্বেও যে আইনটা দুই মাসের জন্য শিথিল করা হচ্ছে। সরকার ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে এই ব্যাপারে তাদের মতামত জানাতে… আমরা সেনা আক্রমণ আর সন্ত্রাসবাদের মুখোমুখি হয়েছি… এটা দু:খজনক যে কয়েকজন গুন্ডার মুখোমুখি আমরা হতে পারছি না।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .