বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

প্যালেস্টাইন: বন্দী মুক্তিতে আনন্দ

ইজরায়েলী জেল থেকে ১৯৯ জন বন্দীর মুক্তি নিয়ে ফিলিস্তিনিরা আনন্দ করছে। গত সোমবার এই মুক্তি ঘোষণা করা হয়েছিল, আর সময়টা মনে হয় কন্ডোল্লিজ্জা রাইসের ইজরায়েল সফরের সাথে সঙ্গতি রেখেই করা হয়েছিল।

ইজরায়েলী ক্যাবিনেট বেশ কয়েকবার মুক্তির প্রক্রিয়াটি থামিয়ে দেয়, যেখানে এই ব্যাপারে ৩টি আলাদা ভোট হয়। মুক্তিপ্রাপ্ত বন্দীদের মধ্যে সাইদ আল আত্তাবা আছে, ইজরায়েলে সব থেকে দীর্ঘ সময় ধরে বন্দী ফিলিস্তিনি যাকে ১৯৭৭ সাল থেকে বন্দী রাখা হয়েছে আর মোহাম্মদ ইব্রাহিম আবু আলী যিনি ১৯৭৯ সাল থেকে বন্দী ছিলেন।

বডি অন দ্যা লাইন নাবলুসে ছিল অভ্যর্থনা আনন্দে শরিক হওয়ার জন্য আর গত জুলাইতে সামির কুন্তারের মুক্তিতে আনন্দ উৎসবের সাথে এর তুলনা করেছে। এই ব্লগার লিখেছে:

আমরা দু:সহ গরমে কয়েক ঘন্টা অপেক্ষা করলাম (নাবলুস শহরতলী থেকে হুওয়ারা ১০ মিনিটের ড্রাইভ)। আমার মনে পড়ে গেল এই গ্রীষ্মে সামির কুন্তারের বাড়ী ফেরার উৎসবে যাওয়ার কথা, যদিও হেজবুল্লাহ আমাদের জন্য চেয়ার আর খুব ভালো লাইভ সঙ্গীত রেখেছিল (এখানে অবশ্য মানুষের হাতে নাড়ানো পতাকার দ্বারা আমাদের মাথায় আঘাত পাইনি)। তবে এখানে আমি স্টেজের অনেক কাছে আসতে পেরেছি, এখানে পুরুষ মহিলা ভাগ ছিলনা, আর ভীড় অনেক কম ছিল (আমার মনে হয়না দাহিয়ার পুরো ভীড় নাবলুসের শহরতলীতে আটবে)। আমার এক বন্ধু পরে যোগ দিল আর আমি শুনছিলাম সবাই গরমের জন্য অভিযোগ করছে। সত্যি, অবিশ্বাস্য রকমের গরম ছিল; কিন্তু আমি চিন্তা করছিলাম এই সব লোক যে অত্যাচার আর বিভীষিকা সহ্য করেছে- একজন তো ৩২ বছর- আর আমি ভাবলাম যে আমরা খুব কম যা করতে পারি তা হলো এখানে দাঁড়িয়ে তাদেরকে নায়কোচিত অভ্যর্থনা দেয়া।

এই ব্লগার যেসব বন্দী মুক্তি পায়নি তাদেরকেও স্মরণ করেছে:

অবশ্য অনেক বিখ্যাত রাজনৈতিক বন্দীদের তাদের নির্যাতন কক্ষ থেকে আজকেও মুক্তি দেয়া হয়নি: যেমন মারোয়ান বারঘুতি আর আহমাদ সাদাত। শহরতলী নাবলুসে একটা বিশাল পোস্টার ছিল (নীচে দেখুন) সাদাতকে নিয়ে। অবশ্যই স্মরণে রাখতে হবে যে এখনো দশ হাজারের ও বেশী বন্দী ইজরায়েলী জেলে। সাথে সাথে এটাও মনে রাখতে হবে যে প্রতি রাত্রে ইজরায়েলী সন্ত্রাসী বাহিনী (আইটিএফ) ফিলিস্তিনি রাজনৈতিক বন্দী অপহরণ আর বন্দী করছে। আমার বন্ধু মুস্তাফা, যে পুরানো নাবলুসে থাকে, আমাকে প্রতিদিন গল্প বলে আইটিএফ বোমা, বন্দুক নিয়ে এসে বিভিন্ন পরিবারদের ভয় দেখায়। একদিক দিয়ে পুরানো নাবলুস একধরনের শরণার্থী ক্যাম্প যেটা প্রতি রাতে হামলার শিকার হয়। যেমন গতকাল পশ্চিম তীরের বিভিন্ন শহর থেকে ৯ জন ফিলিস্তিনি অপহরিত হয়েছে

গল্পের সাথে ব্লগারের নীজের তোলা ছবি ছিল যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য এটি:
Nablus

ফিলিস্তিনি ব্লগগুলো থেকে আরো তথ্যের জন্য দেখুন প্যালেস্টাইন ব্লগস

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .