বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

সৌদি আরব: যদি অলিভ রিলেহ শুরু থেকে ব্লগ করতেন!

পৃথিবীর সব থেকে প্রবীণ ব্লগার অস্ট্রেলিয়ার অলিভ রিলেহ ১০৮ বছর বয়সে মারা গেছেন। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করার সময় সৌদি আরব থেকে মোহাম্মাদ আল শেহরি ভাবছেন যদি ইন্টারনেট আর ব্লগিং অনেক আগে থেকে পাওয়া যেত রিলেহ যে ধন দুনিয়ার জন্যে রেখে যেতেন!

তিনি লিখেছেন (আরবী ভাষায়):

আমাদের অস্ট্রেলিয়ার সহব্লগার, পৃথিবীর প্রবীণতম ব্লগার, রিলেহ ১০৮ বছর বয়সে মারা গেছেন। তিনি প্রথম আর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ দেখেছেন, তাদের আবর্তন আর শিল্পায়ন, তাদের গড়া আর ভাঙ্গা, তাদের একনায়কতন্ত্র আর তার শিকার এবং তাদের আনন্দ আর বেদনা। তিনি তার সাথে স্মৃতির সংগ্রহশালা নিয়ে ঘুরেছেন, যা একটা ব্লগে ধরানো যাবে না। আর তার পর তিনি তার এই বয়সে আবিষ্কার করেছেন ব্লগিং আর তার মজা!

আমার সাথে কল্পনা করেন, ব্লগিং এখন যেমন আছে, যদি আগেও থাকতো আর অলিভ এইসব বছর ব্লগ করতে পারতেন, তার জীবনের সব অভিজ্ঞতা লিখতে পারতেন, ভাবনা আর ঘটনা, তার যৌবন থেকে মৃত্যু পর্যন্ত, তাহলে তার ব্লগের আর্কাইভ কেমন হতো?

আমি নিশ্চিত দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ যখন শুরু হলো সেই সময়ের তার ডায়রি পড়লে আমরা উত্তেজিত হতাম, তার ভাবনা, সংবাদপত্রের লেখার ব্যাপারে তার প্রতিক্রিয়া আর কি ঘটছে সে সম্পর্কে তার ধারণা। তার প্রথম ভালোবাসার ব্যাপারে একটা লেখা পড়া মুগ্ধকর হতো, বা সে যখন প্রথম টেলিভিশন দেখলো তখনের তার মনোভাব যা তার ২২ বছর বয়সে উদ্ভাবিত হয়েছিল!

ব্লগাররা আজকের ইতিহাস কালকের পাঠকের জন্য লিখছে! আর অলিভ তার ব্লগিং দিয়ে এই কালের প্রথম সাক্ষী হতে পারতো, যদি তখন ব্লগিং পাওয়া যেত। ভবিষতের পাঠকরা কতো ভাগ্যবান! আমার তাদেরকে হিংসা হয়! আমি ভাবি যে এই পরিণত বয়েসে কি কারনে অলিভ ব্লগিং শুরু করেছিলেন!

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .