বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

চীন: ক্ষতিগ্রস্ত শহরের সাক্ষীরা বলছে ভুকম্পনের ক্ষয়ক্ষতি বাড়ছে

মৃতের সংখ্যা: ১২,০১২ (সরকারী পরিসংখ্যান মতে শুধু সিচুয়ান প্রদেশে)

সর্বশেষ: ভূমিকম্পের কেন্দ্রের বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া শহরগুলোতে ১৩০০ সৈন্য অবশেষে পৌঁছতে পেরেছে। তবে ভূমিধসে হাইওয়ের অনেক রাস্তাই বন্ধ হয়ে গিয়েছে, ফলে যোগাযোগে অসুবিধা হচ্ছে।
আরও প্রায় ৫০,০০০ লোকের বর্তমান অবস্থা অজানা। পেঙঝুতে প্রায় লাখখানেক লোক আটকা পরেছে পাহাড়ী অন্চলে। সৈন্যরা বাধা পেরিয়ে আস্তে আস্তে সেখানে উপস্থিত হচ্ছে।

সর্বশেষ: ৯২১৯ (সকাল ৮.০০, ০৫.১৩) ৮টি অঙ্গরাজ্য থেকে মৃত্যুর খবর এসেছে। কিন্তু এখনো ভূমিকম্পের কেন্দ্রের ৩টি শহরের কোন খবর নেই। পড়ন্ত পাথরের নীচে বে-চুয়ান অনেকটা ঢেকে গেছে। এর অনেক অংশ ধ্বংস হয়ে গেছে, বিশেষ করে কিন্ডারগার্টেন আর স্কুলগুলো সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত। এখনো ভূমিধস হচ্ছে।

বেইচুয়ান প্রদেশ ভূমিকম্পের পূর্বে:
বেইচুয়ান
বেইচুয়ান
বেইচুয়ান প্রদেশ ভূমিকম্পের পরে, ধ্বংসস্তুপে পরিণত

দুজিয়ঙ্গিয়ানের একটি উচ্চ বিদ্যালয়ে ৯০০ জন ছাত্রের চাপা পড়ার খবর আছে, আর ধসে পড়া বাড়িতে ৬০ জন ছাত্র মারা গেছে।
মৃত ছাত্র-ছাত্রীরা
খেলার মাঠে মৃত ছাত্র-ছাত্রীরা শুয়ে আছে। প্রার্থনা করুন।

এই ওয়েবসাইটে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় মারা যাওয়া লোকের হাল নাগাদ লিস্ট দেয়া হচ্ছে।

সর্বশেষ: ওয়েঞ্চুয়ান প্রদেশ যা ভূমিকম্পের কেন্দ্রে ছিল তার খবর নেই। এটা যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন এলাকা হয়ে পড়েছে। এখানে হান, তিব্বতী আর হুইরা এক সাথে থাকত।

(গত ১২ই এপ্রিল) স্থানীয় সময় বিকাল ২:২৮ মিনিটে ৭.৮ মাত্রার ভূমিকম্প চীনকে আঘাত হানে। ভূকম্পন ওয়েঞ্চুয়ান আর সিচুয়ান প্রদেশ কেন্দ্রীভূত ছিল যা চেংদু থেকে (যেখানে ১ কোটি ২০ লক্ষ লোক বাস করে) প্রায় ৫০ মাইল পশ্চিম-উত্তর দক্ষিণে। এটা শুধু তীব্র ছিল না বরং অনেক বড় মাপের হয়েছিল যেহেতু পুরো দেশ এই কম্পন অনুভব করেছে। এখন পর্যন্ত ১০৭ টি মৃত্যুর খবর দেয়া হয়েছে যার সাথে আহত আর ধসে যাওয়া বাড়ির খবরও আছে।

ওয়েন চুয়ানে যাওয়ার রাস্তা বন্ধ।

মৃতের সংখ্যা বাড়ছে।

সর্বশেষ: বিকালে বিচুয়ান প্রদেশে ৩০০০ থেকে ৫০০০ মৃতের খবর এসেছে যা কেন্দ্রের কাছাকাছি ছিল।

কম্পনের প্রায় এক ঘণ্টা পরে অনেক ওয়েবসাইটে সংশ্লিষ্ট খবর বেরিয়েছে যার মধ্যে জিনহুয়া নেট, সরকারি বার্তা সংস্থাও আছে।

প্রধানমন্ত্রী ওয়েঞ্জিয়া বাউ ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় পৌঁছে উদ্ধার কাজে নেতৃত্ব দিতে গেছেন। তিনি বলেছেন ‘পরিস্থিতি বিশেষ ভাবে খারাপ'। ৫০০০ সৈন্যকে উদ্ধার কাজে নিয়োজিত করা হয়েছে।

কম্পনের প্রভাব আর এর বলয় অনেক তাই কম্পনের এত কম সময়ের মধ্যে সব খবর নেয়া সম্ভব না। দক্ষিণের শহর হংকং আর হাইকু আর উত্তরের শহর বেইজিং পর্যন্ত, বা জনসংখ্যাবহুল এলাকা যেমন চঙকিং আর সাংহই পর্যন্ত কম্পন, আর মাথা ঘোরা ভাব অনুভূত হয়েছে বিভিন্ন মাত্রায়।

শত শত লোক অনলাইনে ১০ সেকেন্ডের কম্পন নিয়ে তাদের অভিজ্ঞতা জানাতে চেয়েছেন। এগুলোর সংকলন আসছে।

বেইজিং থেকে একজন নেটিজেন জানিয়েছেন:

木樨地有震感!我还以为是自己头晕呢,原来是发地震了!
আমি কাঠের জমিনে কাঁপন অনুভব করেছি! প্রথমে আমার মনে হয়েছে যে আমার মাথা ঘুরছে। পরে বুঝতে পেরেছি এটা ভূমিকম্প।

তিয়াঞ্জিং থেকে আর একজন নেটিজেন জানিয়েছেন:

我单位在16层,震感很明显,持续了约2分钟。
আমি ১৬ তলায় কাজ করি, আর কম্পন ওখানে খুব স্পষ্ট ছিল। প্রায় ২ মিনিট ধরে তা চলেছে।

বেইজিং আর তিয়াঞ্জিং ভূমিকম্পের কেন্দ্রের উত্তর পূর্ব দিকে ৯৬০ মাইল দূরে, যার ফলে মানুষ বুঝতে পেরেছে কম্পন কত জোরালো ছিল। নীচের ছবি দেখিয়েছে বেইজিং এর অফিসিয়াল বাতা সংস্থা জিনহুয়া নেট এর ভবনে থেকে বের করে আনা লোকদের।
জিনহুয়া

তিয়ানিয়া ওয়েবসাইটে একটা বিশেষ পাতা খোলা হয়েছে সারা দেশব্যাপী এই দুর্যোগের সময়ের খবর জানানোর জন্য।

ব্রিল বলেছেন তিনি মধ্য চীনের লুয়াং, হেনানেও এটি অনুভব করেছেন:

我在十楼上。。。突然发现自己在晃。灯在乱抖,然后外面有玻璃哗啦掉的声音。。
晃的好厉害啊!现在好了。
আমি ১০ তলায় ছিলাম আর হঠাৎ করে দেখলাম যে আমি কাঁপছি। আলো দুলছিল আর বাইরে থেকে গ্লাস ভাঙ্গার আওয়াজ হচ্ছিল। সব কিছু পাগলের মতো কাঁপছিল! এখন পরিস্থিতি ভালো আছে।

পূর্ব দক্ষিণের সমুদ্রের ধারের শহর নিংবোতেও এর ব্যতিক্রম ছিল না। নেভারফ্লাই বলেছেন:

 摇的非常厉害啊 我在18楼,前后摇晃的感觉非常明显,感觉在坐船一样
而且人有明显的恶心头晕感 我出门问别人什么事 单位同事叫我跑下去
我们走到消防楼梯一看,全是人 走到楼下一看,写字楼的人基本都跑出来了
到现在还觉得有点头晕恶心呢

ভয়ঙ্কর ভাবে কাঁপছে! আমি ১৮ তলায় ছিলাম আর জোরালো ভাবে বাড়ির এইদিক ওই দিকের কম্পন অনুভব করেছি ঠিক নৌকার মতো। আমার তখন মাথা ঘুরছিল। যখন দৌড়ে বাইরে গেছি জিজ্ঞাসা করতে যে কি হয়েছে আমার সহকর্মীরা তখন আমাকে নীচে যেতে বলল। লোকে সিঁড়িতে ভীড় করে ছিল। আর আমি দেখলাম যে অফিসের সব লোক বাইরে।

আমার এখনো অস্বস্তি হচ্ছে।

অনেক লোকের প্রাথমিকভাবে মাথা ঘুরেছে যখন কম্পন শুরু হয়েছে। বেশীর ভাগ এই ঘটনায় অবাক হয়ে গিয়েছে, কারন তাদের কোন ধারণা ছিল না যে কি হচ্ছে। কিন্তু শীঘ্রই সহজাত প্রবৃত্তি তাদেরকে পরিচালিত করতে সাহায্য করেছে।

তিয়েনিয়া.কম (Tianya.com) এ ‘আপনি কি কম্পন অনুভব করছেন?’ শীর্ষক ভোটে ৩ কোটি লোকের শহর চঙকিং তালিকার প্রথমে আছে যেখানকার লোক কম্পন সব থেকে বেশী অনুভব করেছে। এই শহর সিচুয়ান প্রদেশের কাছে ছিল।

১৬৩.কম এ চঙকিং থেকে কোন একজন তার কষ্টের কথা বলছেন:

当时正睡午觉,货架上的货物哗哗掉,只见房子剧烈晃动,老公拉上我就跑,车都没敢去开~~~~ 从来没想过,合川还会地震
আমি তখন ঘুমাচ্ছিলাম, আর তখন সব মালামাল পড়ার আওয়াজ পেলাম আর বাড়ি ভয়ঙ্করভাবে কাঁপছিল। আমার স্বামী আমাকে তখনি টেনে বের করেছে গাড়ির জন্য অপেক্ষা না করে। আমি কখনও ভাবি নি এই শহরে ভূমিকম্প হবে।

চঙকিং
চঙকিং শহরে আতন্কের মধ্যে লোকজন

ওয়াইওয়াইবিজেড০২০১২৩ মধ্য চীনের শহর জিয়ান সম্পর্কে বলেছেন:

西安震感强烈,有十几秒,大地在抖,窗子,门,在响,现在院子里都是人,手机没型号
শহরটি ১০ সেকেন্ডের বেশি সময় ধরে কাঁপছিল, মাটি কাঁপছিল, জানালা কাঁপছিল, দরজা আওয়াজ করছিল। এখন মানুষ সামনে জড়ো হচ্ছে। কিন্তু মোবাইল কাজ করছে না।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী ২৩০০ মোবাইল টাওয়ার কম্পনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে যার ফলে উদ্ধার কাজে কষ্ট বেড়েছে।

ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্ধার করা হচ্ছে

সাংহাইও আক্রান্ত হয়েছে।

上海有震感,我们大楼晃了几分钟,头晕得厉害
এখানেও কম্পন অনুভূত হয়েছে। আমাদের বাড়ি কিছুক্ষনের জন্য কেঁপেছে যার ফলে আমার মাথা ঘুরছিল।

ডিপ এডভেঞ্চার গুয়াংঝো তে ছিল:

广州感觉到了 我还以为我患了帕金逊
当时蹲在椅子上 全身不自觉左摇右摆 好可怕
7.8级 祈求不要有人员伤亡 今年有点烦
গুয়াংঝোতেও হয়েছে। আমার মনে হয়েছিল আমার পারকিন্সন্স রোগ হয়েছে।
তারপর আমি আমার চেয়ারে নীচু হয়ে বসে ছিলাম, ডানে-বামে কাঁপতে কাঁপতে। কি ভয়ঙ্কর!
৭.৮ মাত্রার! প্রার্থনা করেন যেন কেউ আহত না হয়। কি একটা বছর!

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .