বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কুয়েত: নির্বাচনে ব্লগারদের অগ্রবর্তী ভূমিকা

কুয়েতে এখন গ্রীষ্ম শুরু হয়েছে, তাপমাত্রাও বেড়ে দাড়িয়েছে ৪২ ডিগ্রী সেলসিয়াসে। সেই সাথে ১৭ই মে তারিখে নির্ধারিত সংসদ নির্বাচনের দৌড়ও উত্তাপ ছড়াচ্ছে বেশ।

null

ইন্টালএক্সপাটর
উপরের ছবিটি দেখে বিরাজিত আবহাওয়াকে ব্যাখ্যা করেছেন এভাবে,

১০৬ ডিগ্রী ফারেনহাইট/৪২ ডিগ্রী সেলসিয়াস। উত্তপ্ত ও ধুলোয় ধূসরিত। বিকেল সাড়ে তিনটাতে এমনি লেগেছিলো:

ছবিটাতে কোন অদলবদল করা হয় নি। হলদেটে কমলা রঙটা আসলে আকাশেরই। নিদারুণ ভয়াবহ একটা ছবি। বৃহৎ ঘূর্ণ্যমান ঢেউ ধেয়ে আসছে, ভাল একটা ছুটির দিন ভেস্তে গেল বলে!

কুয়েত দ্যা প্যানিক বাটনে - কিউ৮০ সারাসেন বেশীর ভাগ কুয়েতীদের ভোট প্রদান পদ্ধতি সম্পর্কে তার ধারণা ব্যক্ত করেছেন। তিনি বলেছেন:

সেই সমস্ত কুয়েতী যারা জানে না কিভাবে ভোট দিতে হয় – তাদের প্রায়শ:ই একটি স্ব-আরোপিত বিধি মেনে চলতে দেখা যায়। ব্যক্তি বিশেষের ক্ষেত্রে আলাদা হলেও মাত্রাটা যেভাবে বেড়ে যায় তা নিঃসন্দেহে হাস্যরসের যোগান দেয়।

ইতোমধ্যে, কুয়েতী ব্লগাররা নির্বাচনের নিরপেক্ষ মতামত ও সংবাদ সরবরাহের জন্য একটু নতুন ব্লগে একত্রিত হয়েছেন।

৫-কিউ৮ নামের সেই ব্লগটিতে ফরজাক৮ একটা যৌক্তিক প্রশ্ন উত্থাপন করেছেনঃ

العديد من المرشحين يأتون و يطرحون البرامج تلو الاخر
فهذا سيقلب الكويت تحفه الزمان و الاخر سيقاتل من اجل الحريه و اخر من اجل الاسلام

و لكن السؤال الذى ينبغى طرحه ما الثمن ؟
عندما تنزل انتخابات و تصرف مبلغا يفوق الــ 30 ألف دينار
( هناك مصادر تتحدث عن ارقام بالملايين ) أليس من واجبنا ان نسأل لماذا هو مستعد ان يلقى بكل هذا المبلغ ؟

অনেক প্রার্থীই আসে এবং এক একজন অন্যকে ছাপিয়ে একটা নির্বাচনী ইশতেহার উপস্থাপন করে। কেউ বলে সে কুয়েতকে শ্রেষ্ঠ বানিয়ে ছাড়বে, অন্যজন কুয়েতকে স্বাধীন করবে, তৃতীয় কেউ বলে ইসলামকে রক্ষা করবে।

কিন্তু যে প্রশ্নটা স্বভাবতই চলে আসে, তা হচ্ছে, কি মূল্যে?
যখন আপনি নির্বাচনে অবতীর্ণ হচ্ছেন এবং ৩০ হাজার কুয়েতী দিনার (অন্য অনেক সূত্র এই পরিমাণকে মিলিয়ন বলে উল্লেখ করে থাকে) খরচ করছেন, তখন এটা জানা কি আমাদের দায়িত্বের মধ্যে পড়ে না যে কেন এই সকল প্রার্থীরা এত টাকা ব্যয়ে প্রস্তুত হচ্ছেন?

مثلا فى الانتخابات الامريكبه صرف المرشح اوباما ما يقارب الـ 5 ملايين دولار للإعلانات فى احدى الولايات
و لكن مهلا ، نقود اوباما كانت من تبرعات من اشخاص يعتقدون بأنه قادر على اداء المهمه
ما العائد الذى يتوقعه المرشح عندما يصرف الالوف على ترشيحه ؟ و اذا كان حريص على مصلحه الكويت
و لديه نقود زائده فلم لا يتبرع بها لمشروع لمصلحه الكويت افضل من ان التنظير ؟

উদাহরণস্বরূপ, আমেরিকার নির্বাচনে একটা রাজ্যেই টেলিভিশনের বিজ্ঞাপন বাবদ বারাক ওবামা ৫ মিলিয়ন ডলার খরচ করেছেন, কিন্তু কথা আছে, সেই অর্থ ওবামার নিজের নয়। এই অর্থ সেই সমস্ত জনগণের অর্থ সাহায্যের মাধ্যমে সংগৃহীত হয়েছে যারা বিশ্বাস করে ওবামা প্রেসিডেন্ট পদের জন্য যোগ্য লোক।

ক্যাম্পেইনে হাজার হাজার খরচ করার পরে প্রার্থীরা বিনিময়ে কি পেতে চাইবেন? যদি সে কুয়েতের স্বার্থ নিশ্চিত করতে আগ্রহীই হয়ে থাকেন এবং তার ছড়ানো ছিটানো প্রভূত অর্থ থেকেই থাকে, তাহলে সে এত কথা না বলে কুয়েতকে সাহায্য করার জন্য কোন প্রজেক্টে সেই অর্থ কেন দান করে দেন না?

৫-কিউ৮ এক্সজোমবি নির্বাচনে ব্লগারদের ভূমিকা প্রসঙ্গে বলেছেন:

في ظل التقنين و الحصارالاعلامي و الاعلاني المفروضين على المرشحين، تبرز اهمية الاعتماد على الوسائل الحديثة في السباق لاستقطاب اكبر عدد من الناخبين، و لذلك يتجه المرشحون الى الوسيط الاسهل و الاسرع انتشارا بين اوساط الشباب عبر المدونات. البلوغرز حاليا سيكونون تحت المجهر بعد ادراك وسائل الاعلام و المجتمع لدورهم و لأهميتهم خصوصا في هذه الفترات الحرجة من عمر اي مرشح، لذلك فان الجميع يأمل ان يحقق البلوغرز ما يصبو له اي مرشح و هو استقطاب و تجنيد العدد اللازم من الاصوات لإنجاحه و الاخذ بيده لكرسي البرلمان
و رغم ان بعض المرشحين قد اتجهوا لانشاء قنوات فضائية تدعم المرشح و توجهاته الا ان البلوغرز سيكونون العوامل المحركة للترويج عن مرشحين و عرض اهدافهم و برامجهم الانتخابية بين فئة عريضة من المتابعين لهم من الشباب و حتى كبار السن، هذا بالاضافة لدعوة عدد من البلوغرز للمشاركة في بعض من هذه القنوات كمقدمي برامج او حتى كمراسلين، و قد رصدت مدونة الدوائر الخمس بالفعل قبول بعض البلوغرز لذلك

ব্লগাররা ২০০৮ এর কুয়েতী নির্বাচনে শক্তির পরিবর্তক হিসাবে কাজ করবে।

পত্রিকা ও বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে প্রার্থীতা প্রচারে বিধিনিষেধ আরোপিত হবার পরে, বেশীর ভাগ ভোটকেন্দ্রের ভোটার আকর্ষণের জন্য আধুনিক জনসংযোগ পদ্ধতি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। সেজন্য যথেস্টসংখ্যক প্রার্থীগণ তরুনদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে ওঠা সহজ ও দ্রুতবর্ধনশীল মিডিয়া ব্লগের উপরে নির্ভর করতে শুরু করেছেন। প্রার্থীদের দুরূহ এই ক্যাম্পেইনের সময় ব্লগারদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে; মিডিয়া ও কমিউনিটিতে এই উপলব্ধি সঞ্চারিত হবার পরে ব্লগাররা আরো দৃষ্টিগ্রাহ্য হতে চলেছে। সবাই আশা করছে ব্লগাররা প্রার্থীদের চাহিদা পূরণ করবে এবং একজন প্রার্থীকে সংসদে একটা আসন নিশ্চিত করার মত পর্যাপ্ত ভোটার সংগ্রহ করতে সক্ষম হবে। যদিও কোন কোন প্রার্থী পুরোমাত্রায় নিদৃষ্টসংখ্যক প্রার্থীর নির্বাচনী ইশতেহার প্রচার করার জন্য নিজস্ব স্যাটেলাইট চ্যানেল চালু করেছেন, তারপরও সমাজের বিশাল একটা অংশ বিশেষত তরুন ও বৃদ্ধদের কাছে প্রার্থীদের ভাবমূর্তি সম্প্রসারণ ও নির্বাচনী অনুষ্ঠানমালা পরিচিত করার জন্য ব্লগিং একটা শক্তিশালী মাধ্যম। এছাড়া উক্ত চ্যানেলগুলোতে অসংখ্য ব্লগাররা আমন্ত্রিত হয়েছেন উপস্থাপনা ও প্রতিনিধিত্ব করার জন্য। ৫-কিউ৮ জানিয়েছে যে কোন কোন ব্লগার সে আমন্ত্রণ গ্রহণও করেছেন।

الجدير بالذكر ان العديد من المرشحين يأمل بالاستفادة من امكانيات البلوغرز في حملته الانتخابية بعدة طرق مبتكرة ففي حين يعتزم مرشح الدائرة الثالثة محمد المنيفي اقامة حلقات نقاشية بمشاركة البلوغرز الذي وافق بالفعل بعض منهم، يقوم اكثر من مرشح لاغراء مقربيهم من البلوغرز كي يكون مراسله الاعلامي و بوقه الانتخابي في الوسط الالكتروني، و لذلك سنشاهد العديد من المدونات الي ستغطي عملية تسجيل ناخب و ندواته و زياراته و حتى تصريحاته

প্রার্থীরাও ব্লগারদের সৃজনশীল সম্ভাবনাকে ব্যবহার করতে শুরু করেছেন, যেমন তৃতীয় জেলার প্রার্থী মোহাম্মদ আল মুনাইফি ব্লগারদের সাথে সরাসরি বিতর্কে অংশগ্রহণ করবেন। কিছু প্রার্থী তাদের আত্মীয়স্বজনদের ব্লগস্ফিয়ারে ব্লগিং করার জন্য জোর তাগিদ দিচ্ছেন যেন ব্লগ তাদের নির্বাচনদৌড়ের সব খুটিনাটি যেমন নিবন্ধন, প্রার্থীদের সেমিনার, ভ্রমণ এবং বক্তব্য ইত্যাদি সম্যকভাবে ভোটারদের অবহিত করতে পারে।

যখন আমরা এই বিষয়ে আলাপ করছি তখন বিনত আলসামিয়া তার ব্লগে নারীর ভোট অধিকার বিষয়ে একটি চমৎকার নিবন্ধে নারীদের নিজস্ব ভাবনা তুলে ধরেছেনঃ

عزيزتى المرأة……..من مشاهداتى فى الإنتخابات
السابقه الغالبية العظمى من النساء والشابات
كن ينتخبن بتأثير خارجى عليهن ولم يكن رأيها
الشخصى البحت أو من قناعاتها الذاتيه
فقد كنت أعفى السيده المسنه و المتوسطه التعليم
ولكن الصدمه الكبرى لى كانت فى فئة المتعلمات
والمثقفات كن يتبعن طوائفهن وأسرهن ونعراتهن الاجتماعي تبعيه عمياء ويقادون إلى
صناديق الإنتخابات وهن لايعرفن من المرشح
غير أسمه وشكله……أما فكره وتوجهه السياسي
لا شيئ عنه……؟؟؟؟؟؟

প্রিয় ভদ্রমহিলাবৃন্দ …… গত নির্বাচনে আমার অভিজ্ঞতা থেকে দেখেছি যে বেশীরভাগ তরুনী ও বৃদ্ধারা তাদের নিজস্ব সিদ্ধান্তের আলোকে প্রার্থী বাছাই না করে বাইরের প্রভাবে ভোট প্রদান করে থাকেন।

বৃদ্ধা ও মোটামুটি শিক্ষিত রমনীদের কথা না হয় বাদই দিলাম, দুঃখজনক হচ্ছে উচ্চশিক্ষিত রমনীরাও তাদের পরিবার ও শ্রেণীর পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে থাকেন। প্রার্থীর নাম ও দেখতে কেমন – মাত্র এসব জেনেই তারা ভোটিং বুথে জমায়েত হয়। প্রার্থীর রাজনৈতিক ধ্যান-ধারণা ও চিন্তা-ভাবনা সন্বন্ধে এই রমনীরা পুরোপুরি অজ্ঞ থাকেন!!!
আপনারা কি কুয়েতকে ভুলে গেছেন?

দেশটির জন্য আপনাদের অনুভূতি কোথায়?

মহিলাটির ভাই, চাচাত ভাই, ভগ্নিপতি অথবা বাবা প্রার্থীকে জানেন – এই ভিত্তির উপরে ভর করে ভোট দিয়ে যাচ্ছে মহিলারা – যা কখনই একজন মহিলার প্রার্থী বাছাইয়ের শর্ত নয়।
এটা একটা ভয়াবহ সমস্যা।

আমার ভোটদাতা ভগ্নীরা, যদি আপনি আপনার স্বাধীনতা চান এবং আপনার বাড়ীর সব সমস্যা দূর করায় প্রধান ভূমিকা রাখতে চান – আপনার পছন্দকে যে কারো চাপ থেকে মুক্ত রাখুন – এবং নিজের বিশ্বাসকে দৃঢ় করুন।

পিতা, স্বামী, ভ্রাতা – কেহই আপনার মত ধারণ করেন না। অন্য কেউ আপনার উপরে তার রাজনৈতিক মতামত চাপিয়ে দিতে পারে না – সে নিজের ঘরের কেউ হলেও না। তরুনীদের উচিত তাদের জননীদের পাশে দাড়ানো।

আপনার হাতেই রয়েছে কুয়েতের বিশ্বাস – আপনার ভোট আপনার দায়িত্ব।

ছবির জন্য ইন্টালএক্সপাটর এর কাছে কৃতজ্ঞ।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .