বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

পরিবেশঃ দূষন থেকে ঝড় – চীনদেশের বিবিধ সমস্যা

চায়না ডায়ালগে ডেল ওয়েন লিখেছেন সেই অলীক ধারণার কথা যা বলে যে পশ্চিমের দেশগুলোতে উচ্চ আয়ের জীবনযাত্রা সাথে বিশুদ্ধ পরিবেশ বজায় রাখা সম্ভব। তিনি বলেছেন যে চীনের উচিত তাদের উন্নয়নের পদ্ধতি পূন:বিবেচনা করা।

আমেরিকার (অসম্ভব) স্বপ্ন: ‘দূষণ রপ্তানি':

গত কয়েক দশকে পরিবেশ সংক্রান্ত অভিযান পশ্চিমে স্থানীয় ভাবে বেশ কিছু সাফল্য পেয়েছে। বাতাস আর পানির দূষণ নিয়ন্ত্রণে আনা গেছে , সবুজ এলাকা রক্ষা করা গেছে, কিন্তু এইসব দেশের মধ্যবিত্তদের এলাকায় এটি বিশেষ করে হচ্ছে। বেশীর ভাগ সমস্যা সমাধান করা হচ্ছে না, বরং অন্য এলাকায় সরিয়ে দেয়া হচ্ছে। যেমন, দূষণ করছে এমন কারখানা দেশের গরিব এলাকায় সরিয়ে নেয়া হয়, আর বৈদ্যুতিক যন্ত্রের বর্জ্য (কখনো বেআইনী ভাবে) চীন আর ভারতের মতো দেশে রপ্তানি করা হয়।

আমাদের জানা উচিত যে সমস্যা বাইরে পাঠিয়ে দিয়ে এর সমাধান সম্ভব কিনা। গ্রীন হাউস গ্যাস একটা সারা বিশ্বের ব্যাপার আর এটা রপ্তানি করা যাবে না: আমরা সবাই একই গ্রহে বাস করছি। ২০০৭ সালের প্রথম ভাগে বেইজিং শহর থেকে অন্যান্য শহরে ২০০টি কারখানা সরানো হয়েছে। অনেক শহর, পানি দূষণ রোধ না করে, আরও দূর থেকে পানি আনছে, আর রাস্তা বাড়াচ্ছে যাতে দূষিত পানি আরো দূরে গিয়ে পড়ে। একজন গ্রামের বাসিন্দা আমাকে বলছেন,”শহরে দূষণ হলে শহরতলীতেও দূষণ।”


চীনের চরম ভাবাপন্ন আবহাওয়া বোঝা:
“চীনের চরম ভাবাপন্ন আবহাওয়ার অবস্থা থেকে কি কি জরুরী শিক্ষা গ্রহণ করা উচিত?”

এই ঘটনা থেকে চীন যে গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা নিতে পারে তা হলো যে জলবায়ূ পরিবর্তনের ফলে যে ক্ষতি হয় এটি সত্য আর এই ক্ষতিপূরণের মূল্য অনেক বেশী। এটি সত্য যে ইউরোপ আর আমেরিকা বেশীর ভাগ গ্রীন হাউস গ্যাসের জন্য দায়ী। তবে বর্তমান উন্নয়নের ধরন থেকে বোঝা যায় চীন একাই গ্রীন হাউস গ্যাসের বড় ধরনের যোগান দাতা হবে ভবিষ্যতে। চীনের জন্য তাই এটি বোঝা গুরুত্বপূর্ণ যে ভবিষ্যত অর্থনৈতিক উন্নয়নে পরিবেশের দিকটাও খেয়াল রাখতে হবে। বর্তমানের পরিবেশ দূষণকারী অর্থনীতি হয়ত সবচেয়ে দ্রুত অর্থনৈতিক উন্নয়নে সহায়ক, কিন্তু ভবিষ্যতে জলবায়ুর পরিবর্তন যে ক্ষতির পরিমান বয়ে আনবে সেটি অস্বীকার করাও খুবই অবিবেচক।

ইকোপলিটোলজির টিম হার্সট একটি ছোট ভিডিও প্রকাশ করেছেন: যার নাম স্টেট অফ রিজল্ভ (সংকল্পের শক্তি)

“এই ছোট পিবিএস ভিডিও ক্যালিফোর্নিয়ার প্রগতিশীল পরিবেশ নীতিকে উল্লেখ করে আমাদের জাতীয় নীতির অভাব কে তুলে ধরছে। এই চমৎকার প্রযোজনাটি দেখায় যে চীনে পরিবেশ দূষণ আমাদের বস্তুগত অত্যাধিক চাহিদার সাথে সম্পর্ক যুক্ত”

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .