বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

আফঘানিস্তান: ব্লগের লেখা বিতরনের জন্যে মৃত্যুদন্ড

আফঘান একদল বিপ্লবী ব্লগার কতৃক প্রতিষ্ঠিত এসোসিয়েশন অফ ব্লগ রাইটার্স (আফঘান পেনলগ) সাইয়েদ পারভেজ কামবাখস নামের একজন তরুন সাংবাদিককে আদালত কর্তৃক মৃত্যুদন্ডে দন্ডিত করায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

তিনি জাহান-ই-নও নামক সাপ্তাহিকের একজন সাংবাদিক এবং বল্খ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের একজন ছাত্র।

আফঘান পেনলগ এবং অন্যান্য আন্তর্জাতিক প্রচার মাধ্যম অনুযায়ী পারভেজ কামবাখস গত অক্টোবরের ২৭ তারিখে আফঘান কর্তৃপক্ষ কর্তৃক গ্রেফতার হয়েছিলেন। তার প্রতি অভিযোগ ছিল এক ইরানী ওয়েবলগে প্রকাশিত একটি আর্টিকেল ডাউনলোড করে বন্ধুদের কাছে বিতরন করা। এই আর্টিকেলটিতে নারী অধিকার, কোরান এবং মহানবী (সা:) এর কথা লেখা ছিল। উত্তর আফঘানিস্তানের মাজার-ই-শরীফের এক স্থানীয় কোর্ট তার প্রতি ব্লাসফেমীর (ইশ্বর নিন্দা) অভিযোগ এনে তাকে মৃত্যুদন্ডে দন্ডিত করে।

আন্তর্জাতিক মিডিয়া ওয়াচডগ রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারস বলছে যে “বিচারকার্য অতি দ্রুত সমাধা করা হয়েছে এবং সংবিধান কর্তৃক নিশ্চিত বাকস্বাধীনতা রক্ষায় কোন আমল দেয়া হয়নি”।

ইন্ডেক্স অন সেন্সরশীপ বলছে:

অতি রক্ষণশীল আফঘান মোল্লারা যারা কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট কোনদিন ব্যবহার করেনি, বিশ্বাস করেছে যে কামবাখস নিজেই ওই লেখাটি লিখেছে এবং তাই তাকে ব্লাসফেমীর অভিযোগে অভিযুক্ত করেছে। যেহেতু ইন্টারনেট থেকে অনৈসলামিক লেখা ডাউনলোড করার কোন শাস্তি আইনে বলা নাই , প্রাথমিক আদালত মোল্লাদের এ ব্যাপারে মতামত দিতে বলেছিল। রক্ষণশীল মোল্লারা, যারা এর তদন্তে সম্পৃক্ত ছিলনা, তার মৃত্যুদন্ড চেয়েছে।

সাংবাদিকের ভাই হয়ত তাদের লক্ষ্য

সিএনএন এর ভাষ্য মতে অনেকে বিশ্বাস করে কামবাখস হয়ত গ্রেফতার হয়েছিলেন তার ভাইয়ের লেখা কিছু আর্টিকেলের জন্যে, যাতে প্রদেশের কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল। তার ভাই, সৈয়দ ইয়াকুব ইব্রাহিমী, অনেক মানবাধিকার সংক্রান্ত লেখা লিখেছেন।

আফঘান পেনলগ গতকাল একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছে যেখানে তারা বলেছে যে আফঘান কর্তৃপক্ষ মূল ঘটনা ধামাচাপা দিতে চাইছে “…আফঘান সংস্কৃতি মন্ত্রনালয় আজ বিকেলে একটি চিঠি দিয়েছে যেখানে তারা বলেছে পারভেজ কামবাখস সাংবাদিক ছিলনা এবং তার মামলাটির সাথে প্রচার মাধ্যমের কোন সম্পর্ক নেই। ” আফঘান পেনলগ নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছে এবং অতি সত্বর পারভেজ কামবাখস এর মুক্তি দাবী করছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .