বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মরোক্কোঃ কম ভোটারের উপস্থিতি

মরোক্কোর বহু প্রতীক্ষিত সংসদীয় নির্বাচন শেষ হয়েছে বেশ বিষ্ময়কর ফলাফলের জন্ম দিয়ে। যদিও মনে করা হচ্ছিল যে ইসলামিক পিজেডি (জাস্টিস এন্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টি) জিতবে, কিন্তু দেখা গেল যে তারা ৪৭টি আসন পেয়েছে আর রক্ষনশীল ইস্তিকলাল(স্বতন্ত্র) দল ৫২ টি আসন পেয়ে জিতেছে। এর ফলে অনেকে নির্বাচনের যথার্থতা নিয়ে প্রশ্ন করেছে কিন্তু রয়টার আফ্রিকা জানিয়েছে যে নির্বাচন ঠিকমতই হয়েছে।

গতকাল গ্লোবাল ভয়েসেস অনলাইনের ফ্রাঙ্কোফোন সম্পাদক জেনিফার ব্রিয়া ইন্তিখাবাত২০০৭ডটকম নামক একটি অংশগ্রহনকারী ফটোব্লগের (যেখানে রাজনীতি সম্পর্কে মরোক্কানরা তাদের চিন্তা ছবির মাধ্যমে প্রকাশ করে থাকে) সাথে তার সাক্ষাৎকার আমাদের সাথে ভাগ করেছেন। এই সাইটের সংগঠকরা ওই সাক্ষাৎকারে জানিয়েছে যে খুব কম রাজনৈতিক দল জনগনের দৃষ্টি আকর্ষন করতে পেরেছে আর দুর্ভাগ্যবশত: শুধুমাত্র ৩৭% ভোটার ভোট দিতে এসেছে।

ভোট দিতে না পারায় লেখক লায়লা লালামি আফসোস করেছেনঃ

যদিও আমার মরোক্কান আর আমেরিকান নাগরিকত্ব আছে আর সংবিধান অনুসারে প্রবাসী মরোক্কান হিসাবে আমি ভোট দিতে পারি, কিন্তু এই নির্বাচনে আমাকে ভোট দিতে দেয়া হয়নি, কারন অনুপস্থিতদের ব্যালটের জন্য কোন ব্যবস্থা করা হয়নি। নিয়ম ছিল ভোটারদের তাদের ভোটকেন্দ্রে অবশ্যই উপস্থিত থাকতে হবে যার ফলে প্রায় ৩০ লাখ এর মত মরোক্কোবাসী ভোট দিতে পারেনি।

এত কম ভোটার আসায় আগাদির তার হতাশা ব্যক্ত করেছেনঃ

কোন ধরনের গভীর বিশ্লেষনে যাওয়ার আগে এটা ঠিক যে ভোটার উপস্থিতি আশানুরুপ ছিলনা বরং অনেক কম ছিল। গতকাল বিকাল ৬টা পর্যন্ত ৩৪% উপস্থিতির কথা বলা হচ্ছিল আর কেন্দ্র বন্ধ হওয়ার সময় স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর হিসাব অনুযায়ী তা ৪১% পর্যন্ত হয়েছিল।

ইয়াসিন ও একই কথা বলেছেনঃ

যদিও প্রথমবারের মত মরোক্কান সরকার প্রচারের জন্য অনেক বাজেট রেখেছে কিন্তু উপস্থিতি যেমন আশা করা হয়েছিল তার চেয়ে অনেক কম ছিল। হতে পারে যে ‘সরকারি আর বিরোধী দলের মধ্যে কোন সত্যিকারের বিতর্ক হয়নি’ আর দলের প্লাটফর্ম ‘বৈশ্বিক আর অস্পষ্ট ছিল’ যেমন মোহাম্মাদ তজি বলেছেন।

আগোরা মনে করেন যে নির্বাচন হয়তোবা প্রথম ধাপঃ

আমার মতে সমস্যাটি অন্যখানে – শিক্ষায়- যা একেবারে শুরু থেকে পরীক্ষা আর পর্যালোচনা করে দেখা উচিত-এবং স্বাস্থ্য আর বিচার ব্যবস্থাতেও। যখন সর্বত্র প্রচারিত ‘আধুনিক রাষ্ট্রে’ এই তিনটি খুঁটিকে একত্র করা যাবে তখনি বাকী সব ঠিক মত চলবে। আর মানুষকে ভোটের জন্য ভিক্ষা করার আগেই স্বত:প্রনোদিত হয়ে তারা ভোট দিতে আসবে।

ব্লগার সেলওয়া পিজেডির হারকে উদযাপন করেছেঃ

আমি সন্তুষ্ট যে পিজেডি জেতেনি… কে ভেবেছিল… সবাই ভেবেছিল যে তারা ৭০-৮০ টা আসন পাবে… আর! ইতিহাসের শিক্ষাঃ কারো পেটের থেকে চোখ বড় হতে হয়না।

সর্বশেষে ইটবীজ নির্বাচনের হাইলাইটসগুলো জানাচ্ছেন এবং পুরো ব্যাপারটির উপর তার মতামত দিয়েছেনঃ

যদি কেউ বলে যে এটা মরোক্কোর গনতন্ত্রের বিজয় তাহলে সে নিশ্চয়ই গাঁজা খেয়েছে।এটি অতিসূক্ষ্ম, টেকনোক্রাটিক সিস্টেমের খেলা যা থেকে মাখজেন যা চেয়েছে তাই পেয়েছে, ৫ বছরের জন্য বিনামূল্যে ছড়ি ঘোরানো। আমি জানি না দীর্ঘসূত্রে এটি ভালো হবে কিনা, কারন বাস্তবের ঠিক নীচে যে হতাশা আছে তা এতো তাড়াতাড়ি চলে যাবেনা, শুধু সেফটি ভাল্ভটা ৫ বছরের জন্য বন্ধ করা হলো। এই প্রক্রিয়ায় আর বিজয়ী হয়েছে তারা যারা ব্যবস্থাটিকে দূর্নাম দেয়ার জন্য নির্বাচনে অংশগ্রহন করেনি, কারন ৪১% ভোটার উপস্থিতিকে ভোট অফ কনফিডেন্সে রুপান্তর করা যারা ক্ষমতায় আছে তাদের জন্য কষ্টকর হবে।

ব্লগার বিল ডে যোগ করছেনঃ

ইটবীজ যেমন বলেছেন , রাজপ্রাসাদ শুধু বিজয়ী হয়েছে।

এই নির্বাচনের উপর আরও ব্লগারদের প্রতিক্রিয়া জানার জন্যে (ফরাসী, ইংরেজী ও আরবীতে) ব্লগমা এগ্রেগেটর পড়ে দেখুন।

ছবি: ইনতিখাবাত২০০৭ডটকমের সৌজন্যে

- জিলিয়ান ইয়র্ক

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .